জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হবেন না, আপনি ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন দেশকে সুরক্ষিত রাখুন

Wednesday, April 8th, 2020

 

আলী জহুর (জগন্নাথপুর, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি) সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর ভাইরাস প্রতিরোধে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশনা বাস্তবতায়নে দেশজুড়ে নিরলশ কাজ করছেন পুলিশ প্রসাশনসহ সশস্ত্রবাহিনী।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন থাকার অনুরোধ জানিয়ে সহকারি পুলিশ সুপার (জগন্নাথপুর সার্কেল) মাহমুদুল হাসান চৌধুরী বলেন,আমাদের আইজিপি মহোদয় এবং জেলা পুলিশ সুপার স্যারের দিক নির্দেশনায় আমাদের সকল টিম পুরো উপজেলাজুরে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম মাকিং ও জনসমাগম রোধে তৎপর রয়েছে।

জগন্নাথপুর উপজেলার প্রধান সড়কের উপর সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছেন সেনা সদস্য ও পুলিশ সদস্য অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। বর্তমানে করোনা ভাইরাস বাংলাদেশসহ বিশ্বে মহামারি আকারে ধারণ করেছে। করোনা ভাইরাস অত্যান্ত ছোঁয়াচে রোগ। আপনার প্রয়োজন ব্যতিত কেউ ঘরের বাইরে যাবেন না। আপনি ঘরের মধ্যে থাকুন। আপনি সুস্থ্য থাকুন। আপনার পরিবার পরিজনকে সুস্থ রাখুন। আপনাদের সুস্থতাই আমাদের কাম্য।

জনসচেতনতামূলক প্রচারণা শোনে ঘরমুখি হন পথচারীসহ অপ্রয়োজনে রাস্তায় আসা লোকজন। করোনা ভাইরাস সংক্রামন ঠেকাতে সব ধরণের গণ জমায়েত ও অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হওয়া নিষিদ্ধ করেছে সরকার। একই সাথে জনসাধারণ যেন হোম কোয়ারান্টাইনে থাকে, সেটি নিশ্চিত করতে সেনা বাহিনীকেও মাঠে নামানো হয়েছে। একই সাথে সরকারের নির্দেশ পালন করতে গিয়ে যেসব হতদরিদ্র লোক জীবন যাপনে কষ্ট ভোগ করছেন তাদের সহায়তাও প্রদান করা হবে।

তিনি আরও বলেন, করোনার মতো দুর্যোগ মোকাবেলা করতে সর্বস্তরের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। যদি কেউ সরকারের আদেশ অমান্য করে তবে আইনের যথাযথ প্রয়োগ করা হবে। জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। সরকারের নির্দেশনা মেনে চলে আপনারা ঘরেই থাকুন, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাহিরে বের হবেন না। আপনাদের চাহিদা পূরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছেন। পুলিশ আসতে দেখলে ঘরে ঢুকে যাওয়া আর চলেগেলে বাহিরে চলে আসা মনে রাখবেন এই ধোকা আপনি পুলিশকে নয় নিজের পরিবার দেশ আর নিজেকেই দিচ্ছেন। করোনা সংক্রমণ রোধে জনসমাগম ও সামাজিক দূরুত্ব নিশ্চিতের দায়িত্ব শুধু প্রসাশনের নয় আপনার আমার সকলের। এখনো সময় আছে নিজ বাসায় অবস্থান করুন। প্লিজ আপনারা ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন। আমরা পুলিশবাহিনী মাঠে আছি। এছাড়া সাংবাদিক সংবাদকর্মী এবং স্বাস্থ্যকর্মী ও অন্যান্যদের মধ্যে সহযোগিতা কামনা করেছেন।