মৌলভীবাজারে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১জনের মৃত্যু ;

Monday, June 29th, 2020

জোবায়ের আহমদ, জেলা প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৌলভীবাজার পৌর শহরের শমসেরনগর সড়ক এলাকার বাসিন্দা শামসুল হক নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি নর্থইস্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে তাঁর মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে নর্থইস্ট হাসপাতালের করোনা ইউনিটের সমন্বয়ক ডাঃ নাজমুল হক।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মৌলভীবাজার শহরের শমসেরনগর সড়ক এলাকার বাসিন্দা শামসুল হক করোনা শনাক্ত হওয়ার পর মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি ছিলেন। রোববার সন্ধ্যায় তার অবস্থার অবনতি হলে নর্থইস্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই রাতে তার মৃত্যু হয়।

মৌলভীবাজার জেলায় প্রতিদিন করোনা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে।শুধু জেলা সদরেই আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৭ জন।আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪১৪ জন।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেনা কেউ। মার্কেট গুলোতে উপচেপরা ভীর। কেনাকাটায় গাদাগাদি করতে দেখা গেছে। শহরে বড় বড় হোটেল -রেস্তোরাঁ বন্ধ থাকায় এক ধরনের ছোট খাটো দোকানদার রা সুযোগে খোলে বসেছে চায়ের দোকান,যেখানে অধিকাংশ গাড়ীর চালক,দিন মজুরসহ পায়ে হাঁটা জন সাধারন গাদাগাদি করে চাপান করাসহ সিগারেট বিড়ি বসে টানছেন।যান বাহনে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী পরিবহন চলছে। এক সিটে একাধিক যাত্রী তারা পরিবহন করছে। এদিকে গত ২৭শে জুন মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মৌলভীবাজার লকডাউন করার আগে জনসচেতনতা সৃষ্টি করার লক্ষে মৌলভীবাজার পৌরসভার পক্ষ থেকে ওয়ার্ড ভিত্তিক সচেতনতা কার্যক্রম সভা শুরু করেছেন।তিনি বলেন,নাগরিকের অসচেতনতার কারণে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায়। তাহলে বাধ্য হবো লকডাউন ঘোষণা করতে।

তবে জেলার ৫টি এলাকায় ডিলেঢালা ভাবে লকডাউন চলছে।

জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ তাওহীদ আহমদ জানান, জেলার কুলাউড়ার ৩টি ও শ্রীমঙ্গলের ২ এলাকাকে রেডজোন ঘোষনা করে লকডাউন করা হয়েছে। আক্রান্তের দিক দিয়ে জেলা সদরে সবচেয়ে বেশী।

মৌলভীবাজারে করোনা পরীক্ষার জন্য পিসিআার ল্যাব না থাকায় রিপোর্ট আসতে সপ্তাহ থেকে দশ দিল লেগে যাচ্ছে। এখনও রিপোর্ট আসার অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় ৮শ। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন ৭ জন ও করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩০ জনের।