চকরিয়ায় অন্যের জমি জবর দখল ও কেয়ার টেকারকে অপহরণের চেষ্টা 

Saturday, July 4th, 2020
চকরিয়া প্রতিনিধিঃ কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম শহীদ হোসাইন চৌধুরীর মালিকানাধীন কৈয়ারবিল মৌজার বানিয়ারছড়া টিএনটি পাহাড় সংলগ্ন প্রায় ৬ একর জমি রয়েছে। উক্ত ধানিজমি পৈত্রিকভাবে দীর্ঘ শতবছর ধরে শান্তিপূর্ণ ভোগ দখল ও চাষাবাদ করে আসছেন। বিগত ২০ বছরের অধিক সময় ধরে কেয়ারটেকার হিসেবে উক্ত জমি রক্ষণাবেক্ষণ করছেন কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের মধ্যম কৈয়ারবিল ছড়ারকুল গ্রামের ছৈয়দ নুরের পুত্র আনোয়ার হোসেন।
অভিযোগ উঠেছে, চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ছিকলঘাট এলাকার নুরুল কবির মেম্বারের পুত্র মোঃ সাজ্জাদ ও কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ইসলামনগর এলাকার আবদুল মান্নান ফকিরের পুত্র মোঃ আরমান ড্রাইভারের নেতৃত্ব গত কয়েকদিন ধরে বেশ কিছু পরিমান জমি জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২ জুলাই সকালে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী লোকজন নিয়ে দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র সহকারে জমি জবর দখল করতে যায় এবং তাতে জমির কেয়ারটেকার বাঁধা দিলে প্রকাশ্যে প্রাণনাশের হুমকি দেন। এনিয়ে জমি কেয়ারটেকার আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে ওই দিনই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী দায়ের করেন। জিডি’র আলোকে থানার অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ মহসিন তালুকদার ৪ জুলাই বিকাল ৪টায় উভয়পক্ষকে বৈধ কাগজপত্র নিয়ে থানায় হাজির হতে নোটিশ দেন। অভিযুক্ত সন্ত্রাসী সাজ্জাদ নোটিশ পাওয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে ৩ জুলাই বিকাল ৪টায় ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী লোকজন নিয়ে অস্ত্র শস্ত্র সহকারে ফের জমি জবর দখলে মেতে উঠে।
এক পর্যায় জমি কেয়ারটেকার আনোয়ার হোসেন বাঁধা দেয়ায় তাকে ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে বেধড়ক মারধর করে, শ্বাসরোধ করে হত্যা ও অপহরণের চেষ্টা চালায়। তাৎক্ষনিকভাবে থানা পুলিশ খবর পেয়ে থানার অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ মহসিন তালুকদারের নেতৃত্ব পুলিশদল ঘটনাস্থলে পৌঁছালে জবর দখলকারী সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। ওই সময় পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন আহত কেয়ারটেকার আনোয়ার হোসেনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। হামলাকালে জমির ধান বিক্রির নগদ ৬৪ হাজার ৫শত টাকা ও ৩২হাজার টাকা মূল্যের একটি স্যামসাং জে-৫ মডেলের মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। এঘটনায় জমি কেয়ারটেকার আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে অভিযুক্ত  সাজ্জাদ ও আরমান ড্রাইভারসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬জনের বিরুদ্ধে ৩ জুলাই রাতে থানায় এজাহার দায়ের করেন। তিনি প্রশাসনের কাছে আইনী সহায়তা চেয়েছেন।
চুনতি রেঞ্জের আওতাধীন বানিয়ারছড়া বনবিট কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার বলেন, অভিযুক্ত মোঃ সাজ্জাদেরর নামে কোন ধরণের বনায়ন বরাদ্ধ দেয়া হয়নি, আবেদনেও তার নাম নাই। তাছাড়া তার অফিসের আওতাধীন বানিয়ারছড়া টিএনটি পাহাড় সংলগ্ন উল্লেখিত জমি ব্যক্তি মালিকানাধীন সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম শহীদ হোসাইন চৌধুরীর। উল্লেখিত সাজ্জাদ গংয়ের বিরুদ্ধে তার দপ্তর থেকে বনআইনে মামলার প্রক্রিয়াও চলছে।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, মরহুম শহীদ হোসাইন চৌধুরীর মালিকানাধীন জমি জবর দখলের চেষ্টা ও কেয়ারটেকারের উপর হামলার ঘটনায় তাৎক্ষনিক পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়েছে। আহত আনোয়ার হোসেনের দায়েরকৃত অভিযোগটি আরো তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত কার্যশেষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।