আরিফকে বাঁচাতে তৎপরতা 

Sunday, September 13th, 2020
রাজশাহী (তানোর )প্রতিনিধি:  রাজশাহীর তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের  (অফিস সহায়ক) আলোচিত কর্মচারি পিয়ন আরিফ হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে তানোর থানায় মামলা হয়েছে। চলতি বছরের ১০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ভিকটিম বাদি হয়ে দুই জনকে আসামি করে তানোর থানায় মামলা করেন মামলা নম্বর- ৩ /১৪৪। এদিকে আরিফকে বাঁচাতে ঘটনার শুরু থেকে প্রশাসনের কতিপয় কর্মকর্তা আরিফের পক্ষ নিয়ে ঘটনা ধাঁমাচাপা দিয়ে ভিন্নখাতে প্রভাবিত  ও ভিকটিমকেই অপরাধী বলে প্রমাণ করতে বিভিন্ন কৌশলে নানা অপতৎপরতা শুরু করেছে বলে ভিকটিম পরিবারের অভিযোগ। ফলে ভিকটিম ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হবার আশঙ্কা করছে। স্থানীয় সচেতন মহলের অভিমত, যেখানে দেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেত্রী ও  জাতীয় সংসদের স্পীকার নারী, সেখানে  একজন  নারীর শ্লীলতাহানীর অভিযোগ ধাঁমাচাঁপা দেবার চেস্টা যদি করা হয় তাহলে সেটা অত্যন্ত দুঃখজনক। স্থানীয়রা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের দৃস্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি), রাজশাহী পুলিশ সুপার (এসপি) ও লিগ্যাল এইড এর জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।অপরদিকে আরিফের ঘনিষ্ঠ সহচররা মামলা প্রত্যাহার ও আপোষ-মিমাংসার জন্য ভিকটিম পরিবারকে নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করছে বলেও একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে। এতে এলাকাবাসীর মাঝে চরম অসন্তোষ সৃস্টি হয়েছে। সংশ্লিস্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, আরিফকে সাময়িক বরখাস্ত করে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে। তিনি বলেন, অভিযোগের সত্যতা পেলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ওদিকে মামলার পর গ্রেফতার এড়াতে আসামিরা গা-ঢাকা দিয়েছে। এনিয়ে তানোর থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, ঘটনাটি নিয়ে আরিফের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ চেষ্টার মামলা হয়েছে এবং আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।