সাভারে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী নীলা রায়ের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে- প্রতিমন্ত্রী

Saturday, September 26th, 2020
মোঃআলী হোসেন,সাভার প্রতিনিধিঃ সাভারে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী নীলা রায়ের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা.এনামুর রহমান।
শনিবার দুপুরে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের সাভারের গেন্ডা বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় নীলা রায় হত্যাকারীদের দ্রুত ফাঁসির দাবিতে সাভার নাগরিক কমিটি আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসুচীতে যোগ দিয়ে তিনি একথা বলেন। তিনি ব্যাংক কলোনী এলাকার কিশোর গ্যাংয়ের লিডার শাকিলের বাবা পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরুকে দ্রুত বহিস্কারের জন্য নির্দেশ দেন।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজিব, পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল গনি,পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম মনিক মোল্লা,নাগরিক কমিটির সভাপতি কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম মোল্লা,তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমরসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ও সুশিল সমাজের লোকজন অংশ গ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য গতকাল রাতে নিলা রায় হত্যাকারী আসামী মিজানুর রহমান মিজানকে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের রাজফুলবাড়িয়ার কর্নেল ব্রিকস ফিল্ডের পাশে পারভেজ নামের এক ব্যক্তির বাড়ি  থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ ।এসময় পুলিশ তাঁদের কাছ থেকে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করেছে।
এর আগে গত ২৪ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার চারিগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মিজানুরের বাবা আবদুর রহমান (৬৯) ও মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাকে (৪৯)। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শুক্রবার তাঁদের তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।
নীলার পরিবারের অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় গত ২০ সেপ্টেম্বর সাভারের পালপাড়া এলাকায় স্থানীয় ব্যাংক কলোনী এলাকার অ্যাসেড স্কুলের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নীলা রায়কে কুপিয়ে হত্যা করে মিজানুর রহমান মিজান নামের এক কিশোর গ্যাং লিডার। ঘটনার পর থেকে তিনি এতদিন পলাতক ছিলো।
এ ঘটনায় নীলার বাবা নারায়ণ রায় গত সোমবার রাতে সাভার মডেল থানায় মিজানুর, তাঁর বাবা আবদুর রহমান, মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাসহ অজ্ঞাতনামা আরও চারজনকে আসামি করে মামলা করেন। আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সাভার উপজেলাবাসী।