বাড়ছে আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল ঝালকাঠিতে কিশোর কিশোরীরা  প্রেম নিবেদন করছে রেষ্টুরেন্টে

Tuesday, September 29th, 2020
আরিফুর রহমান আরিফ,ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥ ঝালকাঠির স্কুলগামী শিক্ষার্থীসহ কিশোর-কিশোরীরা প্রেম নিবেদনের জন্য নিরাপদ স্থান হিসেবে রেষ্টুরেন্টকে বেছে নিয়েছে। আর তাদের সহযোগীতা করছে রেষ্টুরেন্ট কতৃপক্ষ। শহরের হাতেগনা কয়েকটি রেষ্টুরেন্টে সকাল ১০ টার পর থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত এবং দুপুর ৩ টা থেকে ৫টা পর্যন্ত সাধারণ ক্রেতা কম থাকায় ঐ সময়টাকেই বেছে নিয়েছে যুগলরা। আর রেষ্টুরেন্ট মালিকরা কিশোর কিশোরীদের জন্য বিশেষ ধরনের গোপন কক্ষ (ফোল্ডিং পার্টিশন) বানিয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন ভাবে অপ্রাপ্ত বয়সী  যুগলদের সার্বিক সহযোগীতা দিয়ে থাকে। শহরের কুমার পট্টি রোডের ডালিয়ান চায়নিজ রেষ্টুরেন্ট, ষ্টেশন রোডের নোহা গার্ডেন, আমতলা এলাকার বার্গার ক্লাব, মহিলা কলেজ রোডের আর,এফ,সি কিশোর কিশোরীদের বেশি পছন্দের স্থান। কারন এই রেষ্টুরেন্ট গুলোতে যুগলদের জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। খাবারের অর্ডার না দিয়ে ওয়ের্টিং চার্জ দিয়ে ডেটিং করার সুযোগ রয়েছে কোনো কোনোটিতে। আরো সুবিধা হচ্ছে এইসব রেষ্টুরেন্ট গুলোতে কাষ্টমার কক্ষে নেই কোন সিসি ক্যামেরা। এসব রেষ্টুরেন্টে তারা শুধু সময় পাড় করেই ক্ষ্যান্ত নয়। এসব কক্ষে বসে তারা গার্লফ্রেন্ডের আপত্তিকর ভিডিও রেকর্ড করে মোবাইলে সেইভ করে রাখে। পরবর্তীতে নিজেদের সম্পর্কের অবনতি ঘটলে এই ভিডিও ভাইরালের ভয় দেখিয়ে মেয়েদের ব্লাকমেইল করার ঘটনাও ঘটেছে এই শহরে।  ফেসবুকে পরিচয়, রেষ্টুরেন্টে দেখা, ক’দিন পর সম্পর্কের অবনতি এমন ঘটনা এখন নিত্যদিনের। আর এ থেকে বেড়েই যাচ্ছে আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল ও আত্মহত্যারমত লোমহর্ষক ঘটনা। এমনই এক ঘটনার বলি হয়েছিলো ঝালকাঠি সরকারী মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী মুক্তা। ফেসবুক বন্ধুর সোহাগ আলী’র হাতে খুন হয় সে। অন্যদিকে প্রেমিক মাহিবির প্রতারনা সইতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় মেঘা নামের এক ছাত্রী। এরকম প্রতিটি ঘটনার  নেপথ্যেই রয়েছে মোবাইলে কথোপকথোন রেকর্ডিং, ভিডিও রেকর্ডিং এবং ফেইসবুক পোষ্ট। যার সুত্রপাত হয় এ ধরনের রেষ্টুরেন্ট থেকে। ডিবি পুলিশ কতৃক ঝালকাঠির চায়নিজ রেষ্টুরেন্ট থেকে যুগলসহ রেষ্টুরেন্ট ম্যানেজারকে আটকের ঘটনাও ঘটেছে।
নিজেদের দায় এড়াতে অভিযুক্ত রেষ্টুরেন্ট মালিকরা বলেন, তাদের অজান্তেই পুর্বে কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে। রেষ্টুরেন্ট কতৃপক্ষ বলছে, যারা খেতে আসে তাদের সবাইকেই তারা কাষ্টমার হিসেবে মুল্যায়ন করে। তবে আপত্তিকর কোন ঘটনা যাতে না হয় সে বিষয়ে আগামীতে সতর্ক থাকার কথাও বলছেন তারা। ঝালকাঠির অভিযুক্ত রেষ্টুরেন্ট গুলোর কাষ্টমার কক্ষে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করার জন্যও পুলিশের পক্ষ থেকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।