বাংলাদেশের শ্রীলংকা সফর স্থগিত: কী বলছে লঙ্কান কর্তৃপক্ষ?

Tuesday, September 29th, 2020

স্বাস্থ্য নির্দেশনা মেনে খেলোয়াড়দের ১৪দিনের কোয়ারেন্টিন থাকার শর্তে মতৈক্য না হওয়ায় আপাতত হচ্ছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি’র সভাপতি নাজমুল হাসান জানিয়েছেন, শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডকে এই সফরের সূচি পুনঃ-নির্ধারণের আহ্বান জানানো হয়েছে।

এদিকে, শ্রীলংকার ক্রীড়া মন্ত্রী নামাল রাজাপাকসা বিবিসিকে জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খেলাধুলা চালিয়ে যেতে আগ্রহী দেশটি।

অন্যদিকে, শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, বর্তমান মহামারি পরিস্থিতির কারণে এই সফর স্থগিত করা হয়েছে।

অক্টোবরের ২৩ তারিখে দুই দেশের মধ্যে এই সিরিজ শুরু হবার কথা ছিল।

শ্রীলংকা কী বলছে?

শ্রীলংকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং কোভিড টাস্কফোর্সের নির্দেশনা অনুযায়ী বিদেশী খেলোয়াড়দের ১৪দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

এক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রস্তাব ছিল ১৪দিনের পরিবর্তে খেলোয়াড়দের সাত দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখার।

দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড অন্যান্য সব বিষয়ে একমত হতে পারলেও, এই বিষয়টিতে একমত হতে পারেনি শেষ পর্যন্ত।

যে কারণে বিসিবি’র সভাপতি শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডকে এই সফরের সূচি পুনঃ-নির্ধারণের আহ্বান জানিয়েছেন।

শ্রীলংকার ক্রীড়া মন্ত্রী নামাল রাজাপাকসা বিবিসিকে বলেছেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খেলাধুলা চালিয়ে যেতে আগ্রহী দেশটি।

কিন্তু এই মূহুর্তে খেলাধুলা চালিয়ে যাবার জন্য স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষায় আগ্রহী নয় কর্তৃপক্ষ।

তিনি বলেছেন, “আমরা খেলা এবং আন্তর্জাতিক ইভেন্ট আয়োজনের ব্যাপারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, কিন্তু একই সাথে শ্রীলংকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং কোভিড টাস্কফোর্সের নির্দেশনা অনুসারে আমাদের স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে সেটি করতে হবে।

এখন সমস্ত বিষয় এবং বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে ক্রিকেট বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে, নির্ধারিত সময়ে এই সিরিজটি না খেলার।”

তিনি আরো বলেছেন, “বাংলাদেশ এবং শ্রীলংকার ক্রিকেট বোর্ড মিলে এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিতে পারে। কারণ খেলাধুলার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু একই সাথে আমাদের স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করতে হবে।”

এদিকে, আজই অর্থাৎ ২৮শে সেপ্টেম্বর ইস্যুকৃত এক বিবৃতিতে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, বর্তমান মহামারি পরিস্থিতির কারণে এই সফর স্থগিত করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ কী বলছে?

তিন ম্যাচের এই টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য গত জুলাই মাসে শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের।

কিন্তু সে সময় মহামারি করোনার কারণে গোটা বিশ্বই এক রকম থমকে ছিল।

এরপর নতুন করে সিরিজের ব্যাপারে আলোচনা শুরু হলে দুই দেশের ক্রীড়া ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মধ্যে কয়েক দফা চিঠি চালাচালিও হয়েছে।

সবকিছু ঠিক থাকলে এ সপ্তাহেই শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবার কথা ছিল বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের।

কিন্তু সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি’র সভাপতি নাজমুল হাসান সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন, শ্রীলংকার শর্তে এই মূহুর্তে খেলতে যেতে পারছে না বাংলাদেশ।

“আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে ওদের জানিয়েছি, ‘টু রিসিডিউল’, যে এটা এভাবে সম্ভব না এই শর্তে।

আমরা বলেছি তোমরা ‘রিসিডিউল’ করো, যখন পরিস্থিতি ভালো হবে, এরকম কন্ডিশন (শর্ত) থাকবে না, তখন আমরা খেলতে আসবো।”

এই সিরিজকে সামনে রেখে ১৯শে জুলাই থেকে ক্রিকেটাররা ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলন শুরু করেছিলেন।

বিকল্প ভাবছে বিসিবি

এখন বিকল্প ভাবনা হিসেবে কত দ্রুত ঘরোয়া ক্রিকেট মাঠে গড়ানো যায়, সেই চিন্তা করছে বিসিবি।

দ্রুতই ঘরোয়া লিগ শুরুর আভাস দিয়ে নাজমুল হাসান বলছিলেন, “পাঁচ-ছয়টা দল নিয়ে ৯০ জনকে অন্তর্ভুক্ত করে খেলাতে পারি। এটা কর্পোরেট লিগ বা যেকোনো লিগ হতে পারে বা বিসিবির টিমও হতে পারবে।

আরেকটি চিন্তা করছি, জাতীয় দল, এইচপি নিয়ে তিন-চারটি দল বানিয়ে ফেললাম। এদের মধ্যে একটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করলাম। এ দুইটার মধ্যে যে কোনো একটি করার চেষ্টা করব।”

এ বছরের মার্চে সর্বশেষ আফগানিস্তানের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে বাংলাদেশ।-বিবিসি বাংলা