নড়াইলের আরিফকে হত্যা করা হয়’ মার্কেট বিক্রি না করায়: র‌্যাব-৬

Thursday, October 15th, 2020

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ  নড়াইলের কালিয়া উপজেলার জামরিলডাঙ্গায় চাঞ্চল্যকর আরিফ খন্দকার (৪৫) হত্যা মামলার প্রধান আসামি বাবলু মোল্যাসহ ছয় আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে নড়াইল সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লেফট্যানেন্ট কর্নেল রওশনুল ফিরোজ বলেন, গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে নড়াইলের জামরিলডাঙ্গা গ্রামের সমাজসেবক আরিফ খন্দকারকে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে এবং হাত-পা ভেঙ্গে নৃশংস ভাবে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দেয়া হয়।

এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জন্য। র‌্যাব শুরু থেকে এ মামলার ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং অপরাধীদের গ্রেফতারে সচেষ্ট ছিল। এ প্রেক্ষিতে র‌্যাবের একটি চৌকস দল গত ১২ অক্টোবর দিনব্যাপী নড়াইল এবং যশোরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরিফ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত চার আসামিকে প্রথমে গ্রেফতার করে কালিয়া থানায় সোপর্দ করে। এরা হলো-এনামুল মোল্যা (২৮), বাদল মোল্যা (২২), মশিয়ার মোল্যা (৫২) ও ইবাদ মোল্যা (৩৬)।

এরপর  বুধবার (১৪ অক্টোবর) রাতে যশোরের শার্শা থানার সীমান্তবর্তী গোগা এলাকা থেকে এজাহারভুক্ত প্রধান আসামি বাবলু মোল্যা (৫২) ও দিলু মোল্যাকে (৩৬) গ্রেফতার করা হয়। এদের সবার বাড়ি নড়াইলের জামরিলডাঙ্গায়। এরা আরিফ হত্যার কথা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।
লেফট্যানেন্ট কর্নেল রওশনুল ফিরোজ আরও বলেন, এলাকায় মার্কেট বিক্রি না করায় অপরাধীরা আরিফ খন্দকারকে হত্যা করে বলে জানিয়ে তারা। ঘটনার সময় আরিফকে মোবাইল ফোনে ডেকে এনে হত্যা করে আসামিরা।
নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে জামরিলডাঙ্গা গ্রামের পশ্চিমপাড়ায় বাবলু মোল্যা বাড়ির পাশে ওৎপেতে থাকা সন্ত্রাসীরা আরিফকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। আরিফ জামরিলডাঙ্গা গ্রামের নুরুল খন্দকারের ছেলে।