পঞ্চগড়ে কুলখানি  দাওয়াত পেতে অভিনব পন্থা অবলম্বন করলেন ফকির কমিটির সভাপতি 

Tuesday, October 20th, 2020
মোঃ বাবুল হোসেন পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি : ডিজিটাল যুগে উন্নত হয়েছে বাংলাদেশ। বলা যায় এই যুগে কোনো কিছু পিছিয়ে নেই। আর এই ডিজিটাল যুগকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের দাওয়াত পেতে ফকিরের এক সভাপতি আজব কাণ্ড ঘটিয়েছেন। বিভিন্ন স্থানে হরেক রকম পোস্টার চোখে পড়লেও এর মধ্যে এক বা দুটো ভিন্ন খবরের পোস্টার রয়ে যায়। যা অল্পতেই সবার চোখের সামনে চলে আসে।
দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় ফকির দাওয়াতসহ কুলখানি ও দোয়া মাহফিলের দাওয়াত পেতে ফকিরের এক সভাপতি গাছে গাছে পোস্টারিং করেছেন।
এমনই এক ঘটনা চোখে পড়ে উপজেলার দেবনগড় ইউনিয়নের দেবনগড় বাজারে। এদিকে খবর নিয়ে জানা গেছে একই রকমের পোস্টার একই ইউনিয়নের মাগুরমাড়ি চৌরাস্তা বাজারের বিভিন্ন গাছেও লাগানো হয়েছে।
 দেখা গেছে বেশ কিছু গাছে পেরেক দিয়ে টাঙানো রয়েছে পোস্টার। এক গাছের কাছে গিয়ে দেখা যায় গিয়াস উদ্দীন ফকির নামে এক ফকির নিজেকে ৭ নম্বর দেবনগড় ইউনিয়নের ফকিরের সভাপতি দাবি করে দাওয়াত পেতে নিজের ফোন নম্বর ঠিকানাসহ গাছে গাছে পোস্টারিং করেছেন।
সেই পোস্টারে লেখা হয়েছে ‘এখন থেকে ফকির দাওয়াত, কুল ও দোয়া কালামের জন্য ফকিরের প্রয়োজন হলে যোগাযোগ করুন দেবনগড় ইউনয়ন ফকির সভাপতি গিয়াস উদ্দীন ফকির। ‘ ঠিকানা দেওয়া হয়েছে মাগুরমারি চৌরাস্তা বাজার বটতলা।
যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোনে গিয়াস উদ্দীন ফকির , অনেক সময় অনেকেই আমাদের খোঁজ পায় না। যার কারণে দেবনগড় ইউনিয়নে আমরা প্রায় তিন মাস ধরে এই পোস্টারের ব্যবস্থা করেছি। এই পোস্টারের মাধ্যমে মোটামুটি ভালো সাড়া পাচ্ছি। যদি কারো ফকির দাওয়াত, কুল ও দোয়া কালাম হয়ে থাকে তারা আমাদের ফোন দেয়, তখন আমরা ২-৩ জন যাই। আমরা তাদের বাড়িতে গেলে সেখানে সারাদিন সময় দেওয়ায় লোক প্রতি ৩শ টাকা নিয়ে থাকি। তবে বড়লোক পরিবারের কারো দাওয়াত হয়ে থাকলে তারা ৫শ থেকে একটু বেশিই দিয়ে থাকে।