রাণীশংকৈলে তদন্ত কালে বিবাদীকে পেটালো ডাঃ ফিরোজ 

Wednesday, October 28th, 2020
বিজয় রায়, রাণীশংকৈল ( ঠাকুরগাঁও) সংবাদদাতা: ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গর্ভবর্তী রুগী পরিছন্নকর্মী কর্তৃক লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে  তদন্ত কমিটির সভাপতি ডাঃ ফিরোজ আলম বিবাদীকে তদন্তের নাম করে বেধর মারপিট করেছে । এমন অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।
২৭ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় উপজেলা হাসপাতালের পঃপ কর্মকর্তা কার্যালয়ে ঘটনাটি ঘটেছে।  জানাগেছে, উপজেলা দোশিয়া গ্রামের জালালের স্ত্রী নূরেফা খাতুন নূরী (৩৫) গর্ভবর্তী অবস্থায় হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। গত ৭ অক্টোবর বিকেলে হাসপাতাল পরিছন্ন কর্মী আবির নামক ব্যক্তি ওয়ার্ডের সামনে ঝাড়ু দেয়। এসময় রুগীর প্রসাবের চাপ হলে তিনি বাথরুমে যাওয়ার সময় তাকে ঝাড়ুদার ঝাড়ুদিয়ে  মারপিট করে। এনিয়ে রুগীর স্বামী জালাল উদ্দীন জিল্লুর বাদী হয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে আবিরকে বিবাদী করে একটি অভিযোগ দায়ের করে।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করে। আরএমও ডাঃ ফিরোজ আলম তদন্ত কমিটির সভাপতি এবং স্যানেটারী ইন্সেপেক্টর সারওয়ার আলম ও ডাঃ আব্দুল্লা মুনায়েম আপেল সদস্য।
মঙ্গলবার দুপুরে হাসপাতাল পঃপঃ কর্মকর্তার কার্যালয়ে বাদী – বিবাদী ও স্বাক্ষীদের তদন্ত কমিটির উপস্থিতিতে শুনানী হয়। তদন্ত কালে কৌশলে বিবাদী আবিরকে বেধরক মারপিট করেছে তদন্ত কমিটির সভাপতি ডাঃ ফিরোজ আলম। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার অপকৌশল করছেন বলে দাবী করেছে বাদী জিল্লুর রহমান।
এপ্রসঙ্গে ডাঃ ফিরোজের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনাটি সত্য বিবাদীকে তদন্ত কালে চরথাপ্পর মারা হয়েছে।
এনিয়ে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মাহাফুজার রহমান সরকার’র সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তদন্তের সময় তদন্ত কমিটি বাদী-বিবাদী কে মারধর করতে পারেনা। তাদের কাজ হল তদন্ত করা। তিনি বলেন বিষয়টি আমি দেখবো।