রাজশাহীর তানোরে অপারেটরের দৌরাত্ন্য অতিষ্ঠ কৃষক

Thursday, November 19th, 2020

তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোরে বিএমডিএর একটি গভীর নলকুপ অপারেটরের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, সেচ্ছাচারিতা ও কৃষকদের জিম্মি করে সেচ চার্জ আদাযের নামে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপারেটরের ক্ষমতার অপব্যবহার ও
সেচ্ছাচারিতায় কৃষকদের মধ্যে চরম উত্তজনা ও বিস্ফোরণমুখ পরিস্থিতি বিরাজ করছে  সেচ দেয়াকে কেন্দ্র করে যেকোনো সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বা অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে বলে স্কীমের কৃষকরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছে।
গত ১৮ নভেম্বর বুধবার গভীর নলকুপ স্কীমের কৃষকরা অপারেটরের অপসারণ ও কৃষকের মতামতের ভিত্তিত্বে অপারেটর নিয়োগের দাবিতে কৃষকদের পক্ষে আতাউর রহমান বাদি হয়ে
বিএমডিও তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলীর কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
জানা গেছে,তানোরের পাঁচন্দর ইউপির জেল নম্বর  ৮০ কচুয়া মৌজার ৫৪ নম্বর দাগে অবস্থিত  বিএমডিএর গভীর নলকুপের অপারেটর  হাবিবুর রহমান। স্কীমের
কৃষকের মতামত উপেক্ষা ও রাজনৈতিক বিবেচনায় তাকে অপারেটর নিয়োগ করা হয়েছে বলে কৃষকদের অভিযোগ। এমনকি সেচ চার্জ আদায়ের নামে জমির ফসল কেটে নেয়ার অভিযোগও রয়েছে। এদিকে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় কয়েক মৌসুম থেকে গভীর কুপে পানি উঠার পরিমাণ হ্রাস পাওয়ায় স্কীমের প্রায় ২৫০ বিঘা জমিতে ঠিকমত সেচ দেয়া যাচ্ছে। কিন্ত্ত অপারেটর হাবিবুর অতিরিক্ত মুনাফার লোভে বাইরের আরো ৭০ বিঘা জমি স্কীমভুক্ত করেছে, এতে সেচ সঙ্কটের কারণে পুরো স্কীমে ফসলহানির আশঙ্কায় কৃষকরা সঙ্কিত হয়ে পড়েছে।  কৃষক আজিজুর রহমান, আফসার আলী ও আকতার হোসেন জানান, গত বোরো মৌসুমে সেচ সঙ্কটের কারণে ২০ জন কৃষকের জমির ধান নস্ট হয়েছে। অন্যান্য কৃষকরা জানান, অপারেটর হাবিবুর বিভিন্ন অজুহাতে সেচচার্জ আদায়ের নামে অতিরিক্ত টাকা আদায় করেন। এছাড়াও ড্রেন মেরামত, লাইনম্যান, ট্রান্সফরমার মেরামত-ভোল্টেজ বাড়ানো, নৈশপ্রহরী, অফিস খরচ ও সিরিয়াল ইত্যাদি অজুহাতে কৃষকের কাছে থেকে জোরপুর্বক টাকা আদায় করছে। এমনকি গভীর নলকুপের আয় ব্যয়ের কোনো হিসাব তিনি কাউকে দেন না। কৃষকরা বলেন, অপারেটর পাঁচন্দর ইউপি চেয়ারম্যান ও দলের নাম ভাঙিয়ে এসব অপকর্ম করছেন এতে দলের ভাবমুর্তিও ক্ষুন্ন হচ্ছে।
এবিষয়ে জানতে চাইলে বিএমডিএ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, কৃষকের জন্যই গভীর নলকুপ তাই কৃষকের মতামতের ভিত্তিতে গভীর নলকুপ পরিচালনা করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এবিষয়ে জানতে চাইলে অপারেটর হাবিবুর রহমান বলেন, এসব অভিযোগ সঠিক নয়, এক চেয়ারম্যান তার বিরুদ্ধে কৃষকদের লেলিয়ে দিয়েছে।