Logo
শিরোনাম

‘৪০ হাজার খরচ করে ১০ হাজার টাকার ত্রাণ দেওয়া হয়েছে’

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বন্যা পুনর্বাসন কর্মসূচি বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলেছেন, স্থানীয় জনগোষ্ঠীর মাধ্যমে ত্রাণ দেওয়া হলে এ কার্যক্রম আরও বেশি কার্যকর হবে। তারা বলেন, ১০ হাজার টাকার ত্রাণ দিতে ৪০ হাজার খরচ করা হচ্ছে।

সোমবার (৪ জুলাই) প্রায় ৭০০ জাতীয় ও স্থানীয় এনজিও এবং সুশীল সমাজ সংগঠনের নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ সিএসও এনজিও কো-অর্ডিনেশন প্রসেস (বিডিসিএসও) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তারা।

বিডিসিএসও সিলেট বিভাগের সভাপতি তোফাজ্জল সোহেল বলেন, জাতিসংঘসহ কয়েকটি সংস্থা সম্প্রতি বন্যায় আক্রান্ত এলাকার ক্ষয়ক্ষতির ওপর একটি সমীক্ষা চালিয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের পাশাপাশি তারা বন্যাপরবর্তী পুনর্বাসনের জন্য প্রয়োজনীয়তাও যাচাই করেছে। সরকারের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোরও মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

তিনি আরও বলেন, আমরা সব সময়ের মতো এই বন্যায় স্থানীয় মানুষ ও স্থানীয় সংস্থাগুলোর ভূমিকায় অনুপ্রাণিত। আমরা মনে করি, তাদের এই ভূমিকাকে স্বীকৃতি দিয়ে স্থানীয় সংস্থাগুলোর মাধ্যমেই বন্যাপরবর্তী পুনর্বাসন কর্মসূচি বাস্তবায়নে তহবিল দেওয়া উচিত। কারণ তারা স্থানীয় মানুষের প্রয়োজন সবচেয়ে ভালো বোঝেন।

‘এর ফলে তাদের দিয়ে কর্মসূচির বাস্তবায়ন অধিকতর কার্যকর হতে পারে। ভবিষ্যতে যেকোনো দুর্যোগে তাদের দ্রুত সময়ে কার্যকরভাবে পাওয়া যাবে। স্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালনায় ব্যয়ও তুলনামূলক কম।’

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জহিরুল হক শাকিল বলেন, আমি দেখেছি, একজন ৪০ হাজার খরচ করে ১০ হাজার টাকার ত্রাণ নিয়ে এসেছেন। অথচ একটি স্থানীয় প্রতিষ্ঠান এই ত্রাণ দিলে পুরো ৫০ হাজার টাকাই সহায়তা দিতে পারতো। আমাদের বৈশ্বিক বাস্তবতার আলোকে ভাবতে হবে। কিন্তু কাজটা করতে হবে স্থানীয় বাস্তবতা বিবেচনায় রেখে।

দুর্যোগ বিশেষজ্ঞ গওহার নঈম ওয়ারা বলেন, এখন স্থানীয় পুনর্বাসনের জন্য কী প্রয়োজন তার একটি চাহিদা নিরূপণ করা খুবই জরুরি। এই চাহিদাটা যাচাই করতে হবে স্থানীয় এলাকায় গিয়ে এবং স্থানীয় সংস্থাগুলোকে নিয়েই সেটি করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আন্তর্জাতিক মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের (আইএমও) মতো আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে এখন জরুরিভিত্তিতে হাওড় অঞ্চলে বন্যায় বাস্তুচ্যুত মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। এটা শুধু একটা বন্যা নয়, এটা জলবাদ্ধতা, এর প্রভাব ব্যাপক। প্রতিটি জেলায় জনসচিব পর্যায়ের একজন ত্রাণ কমিশনার নিয়োগ করা খুবই জরুরি।

বিডিসিএসও’র জাতীয় সমন্বয়কারী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর ভূমিকা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু তহবিল সংগ্রহ, কারিগরি সহায়তা ও মনিটরিংয়ে তাদের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। মাঠ পর্যায়ের কার্যক্রম স্থানীয় প্রতিষ্ঠানকেই বাস্তবায়ন করতে হবে। আর পুরো প্রক্রিয়া সমন্বয় করতে হবে সরকারকে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিডিসিএসও সিলেট বিভাগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম। এতে আয়োজকদের পক্ষ থেকে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন বিডিসিএসও সিলেট বিভাগের সভাপতি তোফাজ্জল সোহেল।


আরও খবর



ঝিনাই নদীতে নিখোঁজ শিশুর মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার ঝিনাই নদীতে নিখোঁজ দুই শিশুর মধ্যে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম বর্ষা (২)। সে উপজেলার হরিপুর পশ্চিমপাড়া এলাকার ইজিবাইকচালক বিদ্যুতের মেয়ে।

অপর নিখোঁজের নাম মারিয়া (২)। সে ওই এলাকার ট্রাকচালক মিঞ্জুর মেয়ে। সম্পর্কে তারা চাচাতো বোন।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার নাগবাড়ী ইউনিয়নের কোনাবাড়ী এলাকার ঝিনাই নদী থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। পরে স্বজনরা তার মরদেহটি শনাক্ত করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশের ঝিনাই নদীতে বোতল নিয়ে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় দুই শিশু।

টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের টিম লিডার মহিদুর রহমান জানান, খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে অভিযান সমাপ্ত করি। দুপরে এক জেলে শিশুটির মরদেহ দেখতে পেয়ে স্বজনদের খবর দেন।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুজ্জামান শেখ জানান, আইনি প্রক্রিয়া শেষে উদ্ধার মরদেহটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



হোমমেড ফুড ফেস্টিভ্যাল ২২-২৩ জুন

প্রকাশিত:বুধবার ২০ জুলাই ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হোমমেড ফুড ফেস্টিভ্যাল ‘শেফস বিয়ন্ড হোম’। আগামী ২২-২৩ জুন রাজধানীর মাইডাস সেন্টারে এ ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে এ উৎসব।

আয়োজকরা জানান, এতে স্টলের মাধ্যমে অংশগ্রহণ করবেন ১৫ জনের বেশি রন্ধনশিল্পী ও হোমমেড ফুড উদ্যোক্তা। তারা বাসায় তৈরি খাবার এবং সরাসরি রান্না করা খাবার প্রদর্শন করবেন। ভিজিটর এবং ক্রেতারা খাবার রিভিউ করার সুযোগ পাবেন এ আয়োজনে। উৎসবে উপস্থিত থাকবেন দেশের বিভিন্ন সেক্টরের তারকারা।

এতে থাকছে মেহেদি কর্নার, অতিথিদের জন্য বিশেষ ছাড় এবং ডিসকাউন্ট কুপন। উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে দর্শনার্থীদের এ কুপন দেওয়া হবে। শৈশবের স্মৃতিবহুল বায়োস্কোপ, হাতে রঙের ছাপ দেওয়া, হাওয়াই মিঠাই, সনপাপড়ি, কটকটিও থাকছে পুরো আয়োজনে।

ফেস্টিভ্যাল শেষে সেরা রিভিউদাতাদের পুরস্কৃত করবে পপ অফ কালার। পাশাপাশি খাবার নিযে কাজ করা উদ্যোক্তাদের অনুপ্রাণিত করতে পাঁচজন অংশগ্রহণকারী উদ্যোক্তাকে পাঁচ ক্যাটাগরিতে সম্মাননা দেবে।

পপ অফ কালারের প্রতিষ্ঠাতা টিঙ্কার জান্নাত মিম বলেন, ‘ফুড ফেস্টিভ্যালটি মূলত সেসব নারীর জন্য; যারা রান্নায় পারদর্শী এবং রান্নাকে পেশা হিসেবে নিয়েছেন বা নিতে চান। যারা অনলাইনে খাবার নিয়ে কাজ করছেন, তাদের বড় পরিসরে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে চাই এ উৎসবের মাধ্যমে।’

ফার্ম ফ্রেশের সৌজন্যে পপ অফ কালারের এ আয়োজনে পাবলিকেশন পার্টনার হিসেবে থাকছে সূচী শৈলি।


আরও খবর

ঘরেই তৈরি করুন ছোলা ভাটোরা

রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২




মা-বাবাকে গালি দেওয়া সম্পর্কে যা বলেছেন নবিজী (সা.)

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

যদি প্রশ্ন করা হয়, মানুষের মাঝে উত্তম ব্যবহার পাওয়ার অধিক হকদার কে? তবে উত্তর আসবে ‘মা’। নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ নসিহত পেশ করেছেন। আবার বাবা-মাকে গালি দেওয়া থেকে বিরত থাকার ব্যাপারেও তিনি নসিহত পেশ করেছেন। কী সেই নসিহত?

বাবা-মায়ের অধিকার সম্পর্কে হাদিসে পাকে নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সুস্পষ্ট ঘোষণা-

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, এক লোক রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে এসে জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল! আমার কাছে কে উত্তম ব্যবহার পাওয়ার অধিক হকদার? তিনি বললেন, তোমার মা। লোকটি বললো, তারপর কে? নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, তোমার মা। সে বললো এরপর কে? তিনি বললেন, তোমার মা। সে বললো, এরপর কে? তিনি বললেন, এরপর তোমার বাবা।’ (বুখারি, মুসলিম)

মা-বাবাকে গালি দেওয়া কবিরা গুনাহ। এ সম্পর্কে চমৎকার একটি হাদিস পেশ করেছেন। যেখানে নিজের মা-বাবাকে নয়, বরং অন্যের মা-বাবাকে গালি দিলেই নিজের মা-বাবার ওপর এ গালি পতিত হবে। তাই মা-বাবাকে গালি থেকে মুক্ত রাখতে নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসটি এভাবে বর্ণনা করেন-

হজরত আবদুল্লাহ ইবনু আমর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, কবিরা গুনাহসমূহের মধ্যে সবচেয়ে বড় হলো নিজের মা-বাবাকে লানত (অভিশাপ) করা। জিজ্ঞাসা করা হলো- হে আল্লাহর রাসুল! আপন মা-বাবাকে কোনো লোক কীভাবে লাত করতে পারে? তিনি বললেন, সে (যখন) অন্যের বাবাকে গালি দেয়, তখন সে তার (নিজ) বাবাকে গালি দেয় এবং সে (যখন) অন্যের মাকে গালি দেয়, তখন সে তার (নিজ) মাকে গালি দেয়।’ (বুখারি, মুসলিম ও মুসনাদে আহমাদ)

সুতরাং কাউকে বা কারো বাবা-মাকে গালি দেওয়া যাবে না। কারণ অন্যকে বা অন্যের বাবা-মাকে গালি দেওয়ার অর্থই হচ্ছে নিজেকে বা নিজের বাবা-মাকে গালি দেওয়া তথা অভিশপ্ত করা। সবার জন্য নবিজীর এ হাদিস শিক্ষা গ্রহণ করা জরুরি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে নবিজীর হাদিসের ওপর যথাযথ আমল করার তাওফিক দান করুন। অন্যকে বা অন্যের বাবা-মাকে গালি দেওয়া থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর

আল্লাহকে স্মরণ করার উপকারিতা

শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২




১০৬ দিনে ১০৬টি ম্যারাথন দৌড়

প্রকাশিত:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
Image

ডার্বিশায়ারের দৌড়বিদ কেট জেডেন টানা ১০৬টি ম্যারাথন শেষ করেছেন। এজন্য তার সময় লেগেছে ১০৬দিন। অর্থাৎ প্রতিদিনই তিনি একটি করে ম্যারাথনে অংশ নিয়েছেন।

সম্প্রতি তিনি সবচেয়ে বেশি দিন ধরে ম্যারাথন দৌড়ানোর (নারী) বিশ্বরেকর্ড অর্জন করেছেন। ৩৫ বছর বয়সী কেট এই ম্যারাথন শুরু করেন গত বছর, অর্থাৎ ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর। শেষ করেছেন ২০২২ সালের ১৫ এপ্রিল।

jagonews24

কেট তার এই কর্মকাণ্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতেন নিয়মিত। ১০৬টি ম্যারাথন শেষ হওয়ার পর তিনি গিনেস ওয়ার্ল্ডে তার এই সংক্রান্ত কাগজপত্র ও ভিডিও জমা দেন। সম্প্রতি গিনেস কর্তৃপক্ষ তাকে বিশ্বরেকর্ডের স্বীকৃতি দিয়েছে।

তার আগে প্রথম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালিসা ক্লার্ক ৯৫ দিনে ৯৫টি ম্যারাথনের রেকর্ড করেছিলেন। এরপর এ বছর ফে কানিংহাম ও এমা পেট্রিক নামের দুই নারী এই রেকর্ড করেন। প্রতিদিন একসঙ্গে দৌড়াতে চেয়েছিলেন স্কটল্যান্ডের দুই নারী। এ ইচ্ছা পূরণ হয়েছে তাদের। টানা ১০৬ দিনে দুজনে ১০৬টি ম্যারাথনে অংশ নিয়েছেন তারা।

jagonews24

তবে কেটের প্রথমে পরিকল্পনা ছিল ১০০ দিনে ১০০টি ম্যারাথন চালানো। এটি তিনি আলেপ্পো, সিরিয়া এবং ইউনাইটেড কিংডমের মধ্যে ২৬২০ মাইল কভার করবেন। এরমধ্যে একটি রুটে তার শরণার্থীদের সঙ্গে দেখা হয়। ম্যারাথনের মধ্যেই কেট শরণার্থীদের জন্য তহবিল সংগ্রহ করেছেন। তিনি প্রায় ৪৩ হাজার পাউন্ড সংগ্রহ করেছিলেন।

jagonews24

২০১১ সাল থেকে কেট ম্যারাথন দৌড়ে অংশ নিচ্ছেন। তিনি বেশ কয়েক বছর ধরে নিয়মিত ম্যারাথন এবং আল্ট্রা ম্যারাথন দৌড়ে অংশ নিয়েছেন। তবে বিশ্বরেকর্ডের জন্য তাকে বিশেষ প্রশিক্ষণ নিতে হয়েছে। ১০৬ দিনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গতি ছিল তার ২১ তম দিনে।


আরও খবর



কুয়েতের নতুন প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ সাবাহ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

শেখ মোহাম্মদ সাবাহ আল-সালেম আল-সাবাহকে কুয়েতের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে একটি আমিরি ডিক্রি জারি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে শেখ মোহাম্মদ আল-সাবাহকে নতুন সরকারের সদস্য মনোনীত করার নির্দেশও হয়েছে।

প্রায় তিন মাস আগে শেখ সাবাহ আল-খালিদ প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেন। এরপর থেকে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর পদ শূন্য ছিল।

নতুন প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ সাবাহ ১৯৫৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি কুয়েতের ১২তম আমির শেখ সাবাহ আল-সালেম আল-সাবাহের চতুর্থ ছেলে। তার বাবা শেখ সাবাহ আল-সালেম ১৯৬৫-১৯৭৭ সাল পর্যন্ত কুয়েত শাসন করেছিলেন।

শেখ মোহাম্মদ ক্যালিফোর্নিয়ার ক্লেরমন্ট কলেজ থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ডিগ্রি এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি ও মধ্যপ্রাচ্য স্টাডিজে পিএইচডি করেছেন।

এরআগে শেখ মোহাম্মদ আল-সাবাহ কুয়েতের উপ-প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯৩ সালে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কুয়েতের রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হন। ২০০১ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি এ পদে বহাল ছিলেন। ২০০৩ সালের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন।

২০০৬ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি শেখ মোহাম্মদ উপ-প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হন। কুয়েত সরকারের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির প্রতিবাদে তিনি ২০১১ সালের ১৮ অক্টোবর পদত্যাগ করেন। অফিস ছাড়ার পর শেখ মোহাম্মদ আল-সাবাহ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং ফেলো হিসেবে কাজ শুরু করেন।


আরও খবর