Logo
শিরোনাম

বিশ্বে দ্রুত বাড়ছে চামড়ার বাজার, বিপুল সম্ভাবনা বাংলাদেশের

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

বিশ্বজুড়ে দ্রুত বাড়ছে চামড়াজাত পণ্যের চাহিদা। এর ফলে বড় হচ্ছে চামড়ার বৈশ্বিক বাজারও। ২০২০ সালে এর আকার ছিল ৩৯৪ দশমিক ১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের, ২০২১ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৪০৭ দশমিক ৯২ বিলিয়ন ডলারে। এরপর থেকে বার্ষিক ৫ দশমিক ৯ শতাংশ হারে বেড়ে ২০২৮ সালে বৈশ্বিক চামড়া বাজারের মূল্যমান ৬২৪ দশমিক ০৮ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে বলে আশা করা হচ্ছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতভিত্তিক বাজার বিশ্লেষক এবং পরামর্শক প্রতিষ্ঠান গ্রান্ড ভিউ রিসার্চের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

মূলত ভোক্তা আয়, জীবনযাত্রাার ব্যয়, ফ্যাশন ট্রেন্ডের পরিবর্তন এবং অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পর্যটনের ওপর নির্ভর বৈশ্বিক চামড়া বাজারের ভাগ্য। তবে এর ওপর মানুষের ব্র্যান্ড সচেতনতার পাশাপাশি আরামদায়ক, ট্রেন্ডি এবং অভিনব চামড়ার পোশাক, জুতাসহ অন্যান্য আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্রের ক্রমবর্ধমান চাহিদার প্রভাবও উল্লেখযোগ্য।

চামড়া দিয়ে তৈরি আকর্ষণীয় বিলাসবহুল পণ্যগুলোকে প্রায়ই আধুনিক স্টাইল ও স্ট্যাটাসের প্রতীক হিসেবে দেখা হয়। সেদিক থেকে জর্জিও আরমানি, বারবেরি, প্রাডা, ডলস অ্যান্ড গাব্বানার মতো বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডগুলোর তৈরি সমসাময়িক ডিজাইনের পোশাক, জুতা ও অন্যান্য জিনিসপত্রের চাহিদা ব্যাপক।

jagonews24

তবে করোনাভাইরাস মহামারি সামগ্রিক চামড়া বাজারের ওপরেই মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। ওয়ার্ল্ড ফুটওয়্যারের প্রতিবেদন অনুসারে, ২০২০ সালের প্রথম ছয় মাসে কেবল যুক্তরাষ্ট্রেই চামড়ার জুতা বিক্রি কমেছে প্রায় ৩২ শতাংশ। তাছাড়া সামগ্রিকভাবে জুতার চাহিদা কমে গেলে চামড়াজাত জুতা বিক্রিও কমে। এ ধরনের অনেক প্রতিষ্ঠানই প্রস্তত ও কাঁচা চামড়ার জন্য চীনের ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু করোনা মহামারিতে সরবরাহ ব্যবস্থায় বিঘ্ন ঘটায় তাদের হাতে সময়মতো পণ্য পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

কিন্তু সেই পরিস্থিতি দ্রুতই কাটিয়ে উঠছে বৈশ্বিক চামড়ার বাজার। চীন, যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্সের মতো প্রধান বাজারগুলোতে ব্র্যান্ডেড পোশাকের প্রতি মানুষের আগ্রহের পাশাপাশি অতিধনীদের ক্রমবর্ধমান সংখ্যা চামড়াজাত পণ্যের চাহিদা বাড়িয়ে দিয়েছে।

চামড়ার তৈরি পোশাকগুলো সাধারণত এক্সক্লুসিভ ডিজাইন ও চড়া দামের হয়ে থাকে, যার প্রধান ক্রেতাই অতিধনী ব্যক্তিরা। ২০১৯ সালে ক্রেডিট সুইস গ্রুপ এজি প্রকাশিত গ্লোবাল ওয়েলথ রিপোর্ট অনুসারে, ২০১৮ সালে বিশ্বের ১০ শতাংশ অতিধনী ব্যক্তিই ছিলেন চীনে।

চামড়াজাত পণ্যের ভবিষ্যৎ

২০২০ সালে চামড়াজাত পণ্য বাজারের ৪৭ শতাংশের বেশি দখলে রেখে নেতৃত্ব দিয়েছে ফুটওয়্যার বা জুতা সেগমেন্ট। সম্প্রতি নাইকি, নিউ ব্যালেন্স, অ্যাডিডাস, পুমা, রিবক, অল বার্ডস এবং কনভার্সের মতো ব্র্যান্ডগুলো চামড়ার অ্যাথলেটিক ফুটওয়্যারের ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনায় এ ধরনের পণ্যে বিনিয়োগ করেছে।

২০১৭ সালে ‘ফ্লাই লেদার’ থেকে তৈরি স্নিকার্স বাজারে ছাড়ে নাইকি। এই ফ্লাই লেদার হচ্ছে ট্যানারিতে অবশিষ্ট চামড়ার স্ক্র্যাপ ও পলিয়েস্টার মিশ্রণের সমন্বয়ে তৈরি একধরনের নতুন উপাদান।

jagonews24

চামড়াজাত পণ্যের বাজারে ২০২১ থেকে ২০২৮ সালের মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত বাড়বে হোম ডেকর ও ফার্নিশিং সেগমেন্ট। এর বার্ষিক বৃদ্ধির হার হতে পারে ৬ দশমিক ৭ শতাংশ। বাড়ির আসবাবপত্র ও সংস্কারের পেছনে মানুষের ব্যয়বৃদ্ধি এই অংশের প্রবৃদ্ধিতে বড় ভূমিকা রাখবে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, কয়েক বছর ধরে বিশ্বব্যাপী আবাসন বাজার ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো হাউজিং সূচক, যা আবাসিক সম্পত্তির পরিবর্তনের মূল্য প্রতিফলিত করে।

আঞ্চলিক সম্ভাবনা

২০২০ সালে বৈশ্বিক চামড়া বাজার থেকে অর্জিত মুনাফার ৩৪ শতাংশ শেয়ার নিয়ে আধিপত্য ছিল উত্তর আমেরিকার। ২০১৯ সালে এ অঞ্চলে চামড়াজাত পণ্যের সবচেয়ে বড় বাজার ছিল যুক্তরাষ্ট্র, এরপরে কানাডা ও মেক্সিকো। উত্তর আমেরিকায় চামড়াজাত পণ্যগুলো প্রধানত ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, ডিসকাউন্ট স্টোর, ফ্যাক্টরি আউটলেটসহ ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিক্রি ও বিতরণ করা হয়।

চামড়াজাত পণ্যের জনপ্রিয়তার পাশাপাশি অনলাইনে কেনাকাটার হার বাড়তে থাকায় ভবিষ্যতে এ অঞ্চলে চামড়ার বাজার আরও বড় হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ক্রীড়াবিদ এবং স্বাস্থ্য ও ফিটনেস-সচেতন ব্যক্তিদের ক্রমবর্ধমান সংখ্যাও সেখানে চামড়া বাজারের প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে।

তবে ২০২১ থেকে ২০২৮ সালের মধ্যে চামড়ার সবচেয়ে দ্রুত বর্ধমান আঞ্চলিক বাজার হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে এশিয়া প্যাসিফিক। চীন-ভারতের নেতৃত্বে এ অঞ্চলে চামড়ার তৈরি বিলাসবহুল পণ্যের দ্রুত প্রসার ঘটছে। এশিয়ায় কাঁচা চামড়ার অন্যতম প্রধান উৎস ধরা হচ্ছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানকে।

লেদারেক্স ফুটওয়্যার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নাজমুল হাসানের ভাষ্যমতে, বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৫ থেকে ২০টি নতুন চামড়াজাত পণ্য ও জুতা তৈরির কারখানা খোলা হয়। চামড়াজাত পণ্যের রপ্তানি শুল্ক খুব কম হওয়ায় বিদেশি ব্র্যান্ডগুলোর জন্য আকর্ষণীয় বাজার হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ।


আরও খবর



স্ত্রী হত্যার ১৬ বছর পর স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ জুলাই ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

স্ত্রী হত্যায় দীর্ঘ ১৬ বছর পর বগুড়ায় এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার (২৪ জুলাই) দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক একেএম ফজলুল হক এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম উজ্জ্বল প্রাং (৪০)। তিনি সদর উপজেলার কৈচর দক্ষিণপাড়া এলাকার গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে। উজ্জ্বল দীর্ঘদিন ধরে পলাতক। রায়ে তাকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও এক বছর সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত।

এ মামলায় অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় চার আসামিকে খালাস দেন আদালত। তারা হলেন- উজ্জ্বলের ভাই হিরা প্রাং, উজ্জ্বলের মা আলেয়া বেওয়া, কাহালুর আলোক্ষছত্র এলাকার মৃত মজিবর রহমানের ছেলে নাজমুল হোসেন লাবু ও তার স্ত্রী লাভলী বেগম।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল-১ বগুড়ার পিপি নরেশ চন্দ্র মুখার্জী জানান, ২০০৬ সালের জুন মাসে উজ্জ্বলের সঙ্গে শহরের সূত্রাপুর এলাকার আকবর আলী শেখের মেয়ে আলো বেগমের বিয়ে হয়। এতে যৌতুক হিসেবে ৩০ হাজার টাকা দেন উজ্জ্বলকে। পরে বিদেশ যাওয়ার জন্য উজ্জ্বল আরও ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। এ নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বাকবিতণ্ডাসহ সালিশ হয়। পরে ৫০ হাজার টাকা না দিলে আলো বেগমকে তালাক দিবে বলে উজ্জ্বল জানায় এবং আলো বেগমের পরিবার থেকে আর কোনো টাকা দেওয়া হবে না বলেও উজ্জ্বলকে জানিয়ে দেয়।

পরে ১ আগস্ট বিকাল ৪টার দিকে আলো বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে নিহতের ১৮ আগস্ট নিহত আলো বেগমের ভগ্নীপতি জাহাঙ্গীর আলম উজ্জ্বলকে প্রধান আসামি করে ৫ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ ১৬ বছর পর রোববার দুপুরে মামলার সাক্ষ্যপ্রমাণে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, ২০০৬ সালের মামলায় স্ত্রী হত্যার দায়ে পলাতক স্বামী উজ্জ্বলকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত।


আরও খবর



শিক্ষাগত যোগ্যতা যাচাইয়ে নির্বাচিতদের সনদ চেয়েছে এনটিআরসিএ

প্রকাশিত:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

বেসরকারি স্কুল-কলেজ শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের সনদের তথ্য চেয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। নির্বাচিত প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা যাচাইয়ে শিক্ষক নিবন্ধন সনদ, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ ও মার্কশিটের সত্যায়িত অনুলিপি ২১ আগস্টের মধ্যে পাঠাতে হবে।

বুধবার (১০ আগস্ট) এনটিআরসিএ পরিচালক (শিক্ষাতত্ত্ব ও শিক্ষামান) কাজী কামরুল আহছানের সই করা এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়, এনটিআরসিএ কার্যালয় থেকে গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিশেষ গণবিজ্ঞপ্তি এবং তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির দ্বিতীয় ধাপে প্রাথমিকভাবে প্রার্থী নির্বাচন করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত সহকারী শিক্ষক বাংলা, সহকারী শিক্ষক ইংরেজি, সহকারী শিক্ষক ভৌত বিজ্ঞান, সহকারী শিক্ষক জীববিজ্ঞান, সহকারী শিক্ষক পদার্থবিজ্ঞান, সহকারী শিক্ষক রসায়ন, প্রদর্শক পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উদ্ভিদবিজ্ঞান, প্রাণিবিজ্ঞান, সহকারী শিক্ষক ইসলাম শিক্ষা এবং সহকারী মৌলভী পদের প্রার্থীদের নিয়োগ যোগ্যতা যাচাইয়ে নিবন্ধন পরীক্ষার সনদ, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর (যদি থাকে) পর্যায়ের সনদ ও মার্কশিট যাচাই করা প্রয়োজন।

প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের নিবন্ধন পরীক্ষার সনদ, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর (যদি থাকে) পর্যায়ের সনদ ও মার্কশিটের সত্যায়িত অনুলিপি আবশ্যিকভাবে আগামী ২১ আগস্টের মধ্যে এনটিআরসিএর কার্যালয়ে সরাসরি (হাতে হাতে) জমা দিতে হবে।

আরও বলা হয়, নির্ধারিত তারিখের মধ্যে যেসব প্রার্থী সনদ, মার্কশিটের সত্যায়িত ফটোকপি ও ছক অনুযায়ী তথ্য পাঠাবেন না তাদের নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হবে না।


আরও খবর



খাবারের দাম চাওয়ায় রেস্তোরাঁয় কিশোর গ্যাংয়ের হামলা

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লা নগরীর বাদুর তলায় খাবারের দাম চাওয়ায় একটি রেস্তোরাঁয় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। এ ঘটনায় রাব্বি নামের এক সদস্যকে আটক করেছে কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) বেলা পৌনে ১১টায় নগরীর ধর্মসাগর দক্ষিণ গেইট সংলগ্ন পিজ্জা ক্যালজুন রেস্টুরেন্টে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহিদুর রহমান জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রেস্তোরাঁর মালিক মো. শাহিদুজ্জামান বলেন, সকালে তিন-চারজন কিশোর নাস্তা করে চলে যাওয়ার সময় খাবারের দাম চাইলে হুমকি দিয়ে উল্টো আমার কাছে চাঁদা দাবি করেন। এক পর্যায়ে আমাদের গালমন্দ করতে থাকেন। মুহূর্তের মধ্যেই তাদের সঙ্গে আরও কয়েকজন এসে যুক্ত হয়ে দোকানের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

তারা ক্যাশ কাউন্টারে ঢুকে আমাকে মারধর করে তিন হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং হত্যার হুমকি দেয়। খবর পেয়ে কোতয়ালি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাব্বিকে আটক করে। এ সময় বাকিরা পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ব্যক্তি জানান, ধর্মসাগরের পশ্চিম পাড়ে কিশোর গ্যাংয়ের দৌরাত্ম্য সবচেয়ে বেশি। উঠতি বয়সের কিশোর-তরুণরা এখানে দিনভর মেয়েদের ইভটিজিং, মাদক, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে জড়িত থাকেন। ইজ্জতের ভয়ে তাদে কেউ কিছু্ই বলে না। তাদের অত্যাচারে বাদুর তলা ও ধর্মসাগর পাড়ের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে গেছে। এছাড়াও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রায় সময়ই নিজেদের মধ্যে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়াতে দেখা যায় তাদের।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহিদুর রহমান বলেন, হোটেল মালিক মো. শাহিদুজ্জামান এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। হামলার বিষয়টি তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



দিনাজপুরে বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেলো ব্যাংক কর্মকর্তার

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
Image

দিনাজপুরের বিরামপুরে চলন্ত বাসের ধাক্কায় নজরুল ইসলাম (৪০) নামের গ্রামীণ ব্যাংকের বকে কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।

রোববার (২৪ জুলাই) সকালে দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ গজ উত্তরে এ দ‍ুর্ঘটনা ঘটে। নিহত নজরুল ইসলাম ফুলবাড়ি উপজেলার সুজাপুর এলাকার জাহের উদ্দিনের ছেলে। তিনি গ্রামীণ ব্যাংক দিওড় শাখায় অফিসার পদে কর্মরত ছিলেন।

নিহতের ভাই নুর মোহাম্মদ বলেন, ‘রোববার সকালে নজরুল মোটরসাইকেল নিয়ে অফিসে যাচ্ছিল। পথে বিপরীত দিক থেকে আসা আসাদ এন্টারপ্রাইজ নামের একটি বাস মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় নজরুল ইসলামকে উদ্ধার করে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সুমন কুমার মহন্ত জাগো নিউজকে বলেন, পরিবারে পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



দেশে ফিরেছেন ১৭০৩৯ হাজি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

হজ শেষে বুধবার (২০ জুলাই) পর্যন্ত সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন ১৭ হাজার ৩৯ জন হাজি। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইটি হেল্পডেস্ক হজের বুলেটিনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত ১৪ জুলাই হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট ৪৬টি ফ্লাইটে হাজিরা দেশে ফিরেছেন। এরমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিচালিত ১৯টি, সৌদিয়া এয়ারলাইন্স পরিচালিত ২২টি ও ফ্লাইনাস এয়ারলাইন্স পরিচালিত ৫টি ফ্লাইট রয়েছে। হজযাত্রীদের ফিরতি ফ্লাইট শেষ হবে আগামী ৪ আগস্ট।

সৌদি আরবে মোট ২৩ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী মারা গেছেন। মারা যাওয়া হাজিদের মধ্যে পুরুষ ১৬ ও মহিলা সাতজন । মক্কায় ১৯, মদিনায় তিন ও জেদ্দায় একজন মারা যান।

গত ৮ জুলাই সৌদি আরবে হজ অনুষ্ঠিত হয়। ৫ জুন থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত ১৬৫টি ফ্লাইটে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যান ৬০ হাজার ১৪৬ জন হজযাত্রী (ব্যবস্থাপনা সদস্যসহ)।

হাজীদের অভিযোগ নিষ্পত্তিতে ৪টি টিম সৌদি আরবে যাওয়া সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের বিভিন্ন বিষয়ের অভিযোগ গ্ৰহণ, শুনানি করে তাৎক্ষণিকভাবে নিষ্পত্তি এবং বাংলাদেশে নিষ্পত্তিযোগ্য অভিযোগ পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশে শুনানির জন্য সংরক্ষণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে হজ প্রশাসনিক দল, হজ কারিগরি দল, প্রশাসনিক সহায়তাকারী দলের ২৭ জন সদস্যের সমন্বয়ে চারটি টিম গঠন করা হয়েছে।

এই টিম গঠন করে আদেশ জারি করা হয়েছে। টিমগুলো প্রতিদিন পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করবে।

টিমগুলো হজযাত্রিদের দাখিল করা বিভিন্ন বিষয়ের অভিযোগ গ্রহণ, শুনানি শেষে তাৎক্ষণিকভাবে নিষ্পত্তিকরণ এবং অনিষ্পত্তি করা লিখিত অভিযোগগুলো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মক্কার কাউন্সিলের (হজ) কাছে পাঠাবেন। মিশন ভবনের ১০৫ ও ১০৬ নং কক্ষে সার্বক্ষণিক অবস্থান করে দায়িত্ব পালন। প্রাপ্ত অভিযোগ নিষ্পত্তির বিবরণ রেজিস্ট্রারে তারিখভিত্তিকে লিপিবদ্ধ করতে হবে। টিমের সদস্যদের রোস্টার অনুসারে সকাল ৬টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্নভাবে নির্ধারিত রুমে উপস্থিত থেকে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে।


আরও খবর