Logo
শিরোনাম

চুয়াডাঙ্গায় শিশুর কামড়ে সাপের মৃত্যু!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২৫০জন দেখেছেন
Image

চুয়াডাঙ্গায় এক বছর বয়সী শিশুর কামড়ে একটি সাপ মারা গেছে বলে দাবি করা হচ্ছে। মঙ্গলবার (৭ জুন) সকাল ১০টার দিকে সদর উপজেলার উজলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পরে জান্নাতুল ফেরদৌস নামে ওই শিশুকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে উজলপুর গ্রামের রিয়াজুল ইসলামের মেয়ে।

শিশুটির মা শিলা খাতুন বলেন, মঙ্গলবার সকালে চাচাতো ভাই কাউসারের সঙ্গে ঘরে খেলছিল জান্নাতুল। খেলতে খেলতে একপর্যায়ে দুজনেই ঘাটের নিচে চলে যায়। এসময় ঘটের নিচে থাকা একটি সাপের বাচ্চাকে হাত দিয়ে ধরে দুই জায়গায় কামড় দেয় জান্নাতুল। পরে সাপের বাচ্চাসহ ঘাটের নিচ থেকে বের হয়ে আসে সে।

তিনি আরও বলেন, দ্রুত উদ্ধার করে জান্নাতুলকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সাপের বাচ্চাটি মারা গেছে। সেটি চিকিৎসকের কাছে দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের শিশুবিশেষজ্ঞ মাহবুবুর রহমান মিলন বলেন, সাপটিকে মৃত অবস্থায় আনা হয়। শিশুটিকে ভর্তি রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তবে তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত।


আরও খবর



সম্মেলন দাবিতে রাবি ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩১জন দেখেছেন
Image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সম্মেলনের দাবিতে দুই গ্রুপে বিভক্ত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন পদপ্রত্যাশী শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম জ্যাক ও সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন রাজুর নেতৃত্বে মিছিল দু’টি পরিচালিত হয়।

সোমবার (৬ জুন) বিকেলে প্রথমে সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন রাজু ও পরে সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম জ্যাকের নেতৃত্বে মিছিল দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেট থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় ট্রেন্টে এসে শেষ হয়। এ সময় বিভিন্ন স্লোগানের মাধ্যমে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা।

পদপ্রত্যাশী বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন রাজু বলেন, বর্তমান কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে অনেক আগেই। কিন্তু এখনো তারা কোনো নতুন কমিটি ঘোষণা করছে না। ঈদের পর শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলে এখনও তার সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছে না। আমরা অতিদ্রুত রাবি শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলন চাই।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান কমিটির মেয়াদ ৬ বছর হতে চললো, অথচ যারা এতোদিন রাজপথে শ্রম দিয়েছে তারা এখনো কমিটিতে আসতে পারেনি। নিয়মিত কমিটি না হওয়ার ফলে একটা জেনারেশনের গ্যাপ সৃষ্টি হয়েছে যা মোটেও কাম্য নয়।

সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম জ্যাক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের নতুন কমিটির দাবিতে আমাদের এই বিক্ষোভ মিছিল। আমরা চাই দ্রুত নতুন কমিটি দেওয়া হোক। না হলে আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৬ সালে ২৫তম সম্মেলন হয়েছিল ক্যাম্পাসে। তারপর থেকে আর কোনো সম্মেলন হয়নি। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি দিয়েই চলছে রাবি শাখা ছাত্রলীগ। চার বছর আগে কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও নতুন কমিটি দেওয়ার বিষয়ে কেন্দ্রের কোনো তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি। ইতোমধ্যে বর্তমান কমিটির অনেক নেতা ক্যাম্পাস ছেড়েছেন। আবার যারা সক্রিয় আছেন তাদের ছাত্রত্ব নিয়েও রয়েছে প্রশ্ন!


আরও খবর



হাওরে ইটবোঝাই নৌকাডুবি, শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে হাওরে ইটবোঝাই নৌকা ডুবে ঝন্টু দাস (৫০) নামের এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত চারজন।

সোমবার (১৩ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শান্তিগঞ্জ উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়নের সালদিঘা হাওরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঝান্টু দাস সিচনী (সৈয়দপুর) গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দিনমজুরের কাজ করতেন।

আহতরা হলেন- একই গ্রামের আবিদ আলীর ছেলে ইসরাইল (২০), তৈইমুছ আলীর ছেলে নুর আলীম (২০), মৃত হরমন দাসের ছেলে হরিধন দাস (৫৫) ও মৃত নবদ্বীপ দাসের ছেলে পিন্টু দাস (৪০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার বেলা ১১টায় সিচনী গোলাম রব্বানীর ভাটা থেকে ঝন্টু দাসসহ কয়েকজন শ্রমিক নৌকায় ইটবোঝাই করে সলফ গ্রামে নিয়ে যাওয়ার জন্য রওয়ানা দেন। দুপুর সাড়ে ১২টায় হাওরে প্রচণ্ড ঝড় শুরু হলে নৌকাটি সালদিঘা হাওরে ডুবে যায়। এ সময় ঝন্টু দাস পানির নিচে তলিয়ে গেলেও সঙ্গে থাকা পিন্টু দাস, হরিদন দাস, নুর আলীম ও ইসরাইল আলী পার্শ্ববর্তী পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধে আশ্রয় নেন।

খবর পেয়ে শান্তিগঞ্জ থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে বিকেল ৩টার দিকে ডুবে যাওয়া ঝন্টু দাসের মরদেহ পানির নিচ থেকে উদ্ধার করেন।

শান্তিগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খালেদ চৌধুরী জাগো নিউজকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর



সিলেটে নিত্যপণ্যের সংকট

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

টানা বৃষ্টি ও ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে সিলেটে নিত্যপণ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। বেশি দামেও মিলছে না চাল-ডালসহ নিত্যপণ্য। এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় দেখা দিয়েছে মোমবাতি ও দেশলাই সংকট। বন্যার পানিতে বহু দোকান তলিয়ে যাওয়ায় এ সংকট দেখা দিয়েছে বলে স্থানীয়দের দাবি।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বন্যায় বেশিরভাগ দোকান খুলছেন না দোকানিরা। এছাড়াও অসংখ্য দোকান পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে করে সব ধরনের পণ্যের দাম বেড়েছে। ৩৮ টাকা হালির ডিমের দাম বেড়ে ৪৫ টাকা হয়েছে। ২০ টাকার আলু বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়। দোকানে দোকানে ঘুরেও এসব পণ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

শহরের মদিনা মার্কেটের পরাগ স্টোরের মালিক শিমুল রঞ্জন ধর বলেন, বৃষ্টি ও বন্যার কারণে সকালে দোকান খুলিনি। দুপুরে বৃষ্টির পরিমাণ কমলে দোকান খোলা মাত্র ক্রেতারা লাইন দিয়ে নিত্যপণ্য ক্রয় করা শুরু করেন।

তিনি বলেন, যিনি আগে এক কেজি আলু কিনতেন তিনি ১০ কেজি কিনছেন। যার ফলে নিত্যপণ্যের সংকট দেখা দিয়েছে।

বাগবাড়ি এলাকার গাড়িচালক রাহাত আহমদ জানান, দুপুরে মদিনা মার্কেট ও বাগবাড়ি রোডের অন্তত ১৫-২০টি দোকানে খুঁজেও আলু ও সয়াবিন তেল পাইনি। পরে একটি দোকান থেকে দুই কেজি আলু ৬০ টাকায় কিনেছি।

রিকাবীবাজার এলাকার আল মক্কা স্টোরের মালিক মো. জসিম আহমদ বলেন, মোমবাতি ও দেশলাইয়ের চাহিদা বেড়েছে। অনেকে দুই থেকে তিন প্যাকেট করে মোমবাতি কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। এতে সংকট তৈরি হচ্ছে।

শামীমাবাদ এলাকার আনোয়ারা বেগম জানান, দোকানগুলো পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বন্ধ রয়েছে। অনেক কষ্ট করে মদিনা মার্কেট এলাকায় চাল-ডালসহ কিছু নিত্যপণ্য ক্রয় করতে এসেছি। কিন্তু এখানে ব্যবসায়ীরা সংকটের কথা বলে পণ্যের দাম ২০-২৫ গুণ বাড়িয়ে দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, দেশি মশুর ডাল ৯০-১০০ টাকা হলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। বন্যাকে পুঁজি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, বন্যায় সিলেটের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার কালিঘাট ও কাজিরবাজার পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এতে করে নিত্যপণ্যের কিছুটা সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে দোকানে পণ্যের দাম ৫-১০ টাকা বেড়েছে।


আরও খবর



পাকিস্তানে বাস খাদে পড়ে নিহত ২২

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩৮জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানে একটি বাসন খাদে পড়ে নারী ও শিশুসহ কমপক্ষে ২২ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও বেশ কয়েকজন। স্থানীয় সময় বুধবার দেশটির বেলুচিস্তান প্রদেশে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন।

কিল্লা সাইফুল্লাহর কাছে অবস্থিত আখতারজাইয়ের পাহাড়ী এলাকার একটি রাস্তায় মোড় নেওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি কয়েকশ ফুট গভীর একটি গভীর খাদে পড়ে যায়।

ডনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে যে, ওই দুর্ঘটনায় ২২ জন নিহত এবং এক শিশু আহত হয়েছে।

জোব জেলার ডেপুটি কমিশনার হাফিজ মোহাম্মদ কাসিম বলেন, ওই যাত্রীবাহী বাসটি জোব শহর থেকে লোরালিয়ার দিকে যাচ্ছিল।

তিনি জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। তবে ওই গিরিখাদটি অনেক গভীর হওয়ায় উদ্ধার অভিযান চালানো বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে।

ওই এলাকার কাছাকাছি অবস্থিত হাসপাতালগুলোতে দুর্ঘটনার বিষয়টি জানানো হয়েছে এবং কুয়েটা থেকে উদ্ধারকারী দলের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলওয়াল ভুট্টো গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

তিনি স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে আহতদের জরুরি সেবা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের দুর্ঘটনা যেন এড়িয়ে চলা যায় সে বিষয়েও পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছেন। পাহাড়ি এলাকায় আঁকাবাঁকা রাস্তার কারণে প্রতি বছর বেলুচিস্তানে দুর্ঘটনায় শত শত মানুষ প্রাণ হারায়।


আরও খবর



কায়সার হামিদের ভাই ববি হামিদ আর নেই

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

সাবেক তারকা ফুটবলার কায়সার হামিদের ভাই ও দাবাড়ু রানী হামিদের ছেলে শাহজাহান হামিদ (ববি হামিদ) আর নেই। বুধবার সকালে মারা গেছেন সাবেক এই হ্যান্ডবল ও ফুটবল খেলোয়াড় (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

অনেক দিন ধরে মস্তিষ্কের ক্যানসারে ভুগছিলেন। দেশ-বিদেশে চিকিৎসাও নিয়েছিলেন তিনি। কিছুদিন আগে তার চিকিৎসার জন্য অনুদান দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কোন কিছুতেই বাাঁচানো গেল না ববি হামিদ নামে পরিচিত এই ক্রীড়াবিদকে।

মৃত্যুর আগে তিনি রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীনা ছিলেন। বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর। আজ বাদ আসর বনানী ডিওএইচএস মসজিদে জানাজা হবে ববি হামিদের। এরপর সন্ধ্যায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কবরস্থানে দাফন করা হবে তাকে।

ববি দেশের সর্বোচ্চ পর্যায়ে ফুটবল খেলেছেন। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে খেলেছেন ঐতিহ্যবাহী ওয়ারী ক্লাবে। জাতীয় ফুটবল দলে কখনো ডাক না পেলেও হ্যান্ডবলে জাতীয় দলে খেলেছেন। ফুটবলের পাশাপাশি তুখোড় হ্যান্ডবল খেলোয়াড় ছিলেন তিনি। ক্লাব পর্যায়ে খেলেছেন ব্রাদার্স ইউনিয়নের হয়ে।

ববি হামিদের বাবা কর্নেল এমএ হামিদ বাংলাদেশ হ্যান্ডবল ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এক সময় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। মা রানী হামিদ দেশের দাবার রানী হিসেবে পরিচিত।

আন্তর্জাতিক এই মহিলা মাস্টার ৮০ বছর বয়সেও খেলে চেলেছেন দাবা। একই পরিবার থেকে তিনজনের জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাওয়ার ঘটনাও অনন্য। এই পরিবার থেকে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পেয়েছেন কর্নেল হামিদ, রানী হামিদ ও কায়সার হামিদ।


আরও খবর