Logo
শিরোনাম

দেড় মাসের নববধূ ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা! প্রতারণার অভিযোগ স্বামীর

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৮৮জন দেখেছেন
Image

বিয়ে হয়েছে মাত্র দেড়মাস। অথচ সেই নববধূই নাকি চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। চিকিৎসকের কথা শুনে চক্ষু চড়কগাছ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের। ভারতের উত্তরপ্রদেশের মহারাজগঞ্জের ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই হতভম্ব নববধূর স্বামী। তাই স্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে সরব তিনি।

জানা গেছে, উত্তরপ্রদেশের মহারাজগঞ্জের বাসিন্দা ওই তরুণ। প্রথমে তাকে বিয়ে করানোর সিদ্ধান্ত নেয় পরিবার। সেই অনুযায়ী পাত্রী নির্বাচন শুরু করে তার পরিবারের লোকজন। এক আত্মীয়ের মাধ্যমে ওই তরুণীর খোঁজ পান। দুই পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ের দিনক্ষণ পাকা হয়। এরপর নির্ধারিত দিনে বিয়েও হয় দু’জনের।

বিয়ের প্রথম দেড়মাসে দিব্যি সুখে শান্তিতেই সময় কাটছিল নবদম্পতির। বিপত্তি ঘটলো স্ত্রীর অসুস্থতায়। হঠাৎ একদিন নববধূর পেটে যন্ত্রণা শুরু হয়। অসহ্য যন্ত্রণায় কার্যত ছটফট করতে শুরু করেন তিনি। চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। কী সমস্যা হয়েছে নববধূর, তা জানতে নানা শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়। আলট্রা সোনোগ্রাফি করানো হয়। রিপোর্ট হাতে পেয়ে চক্ষু চড়কগাছ প্রায় সবার।

কারণ মাত্র দেড় মাসের বিবাহিত ওই তরুণী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। কীভাবে এই কাণ্ড ঘটলো, তা বুঝতেই পারছেন না নববধূর স্বামী। কীভাবে এমন কাণ্ড ঘটলো, তা নিয়ে ধোঁয়াশায় ওই নববধূর শ্বশুরবাড়ির লোকজনও। গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকজনকে পুরো বিষয়টি জানিয়েছেন তার স্বামী। মেয়ে যে অন্তঃসত্ত্বা, সেকথা না জানিয়ে বিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলেই দাবি তার। অবশেষে নববধূ ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে থানার দ্বারস্থ হয়েছেন স্বামী।


আরও খবর



মাতুয়াইলে পুড়লো কার্টন তৈরির কারখানা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানাধীন মাতুয়াইলের নিমতলা এলাকায় আল মদিনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং নামের একটি টিন শেড কারখানায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দিনগত রাত ৩টা ১৭ মিনিটে কার্টন তৈরির ওই কারখানায় আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

শুক্রবার (১ জুলাই) সকালে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (মিডিয়া) মো. শাহজাহান শিকদার জাগো নিউজকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ৩টা ১৭ মিনিটে আগুন লাগার খবরে আমাদের প্রথম ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৩টা ৩২ মিনিটে। এরপর একে একে আরও চারটি ইউনিট পাঠানো হয়। পাঁচটি ইউনিটের চেষ্টায় ভোর ৪টা ১২ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। সম্পূর্ণ নির্বাপণ হয় ৬টা ১০ মিনিটে।

আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কে তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ৫ লাখ টাকা। আনুমানিক ১০ লাখ টাকার মালামাল উদ্ধার হয়েছে। বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে আগুন লাগে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।


আরও খবর



প্রয়োজনে আইন সংস্কারের প্রস্তাব করতে পারে ইসি: টিআইবি

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) দায়িত্ব সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করা। এ জন্য প্রয়োজনে সরকারের কাছে আইন সংস্কারের প্রস্তাব করতে পারে ইসি। কারণ কোনো আইন পাথরে খোদাই করে লেখা নয়।

সোমবার (১৩ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

তিনি বলেন, নাগরিক সমাজের সঙ্গে কমিশনের যে বৈঠক হয়েছিলো তার ফলোআপ হিসেবে ইসির সঙ্গে বৈঠক করেছি। আমরা চাই, আপনারা চান, দেশবাসী চায়, আসন্ন নির্বাচন যেন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক হয়। এসব বিষয়ে আমরা কতগুলো প্রস্তাব করেছি।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক আরও বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার, তার চরিত্র কী রকম হবে, গঠন কেমন হবে, এই ধরনের বিষয় নিয়ে আমরা কোনো সুনির্দিষ্ট কথা নির্বাচন কমিশনকে দেইনি। বিষয়টি দেশবাসীরই একটা প্রত্যাশা, উদ্বেগের জায়গা। কাজেই সেই দৃষ্টিভঙ্গি থেকে নির্বাচন কমিশন যেভাবে মনে করে, তাদের চিন্তাভাবনা প্রসূত পরামর্শ সরকারকে বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দিতে পারে। প্রয়োজনে আইনি সংস্কারের জন্য প্রস্তাব করতে পারে।

কোনো আইন পাথরে খোদাই করে লেখা নয় উল্লেখ করে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, সংবিধান পাথরে খোদাই করে লেখা নয়। সংবিধান এবং আইন এখন পর্যন্ত যে অবস্থায় দাঁড়িয়ে, সেটা কিন্তু পরিবর্তনের মাধ্যমেই হয়েছে। কাজেই এই বাস্তবতাটাকে মেনে যদি কমিশন মনে করে, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের স্বার্থে কোনো কোনো ক্ষেত্রে আইনি সংস্কারের প্রয়োজন রয়েছে, তাহলে তারা সেই প্রস্তাব করতে পারে। কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করবে কি না সেটা পরের বিষয়।

তিনি আরও বলেন, আমরা প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনারদের কাছে প্রস্তাব করেছি, এখন যে নিয়ম আছে সংসদ সদস্য এবং মন্ত্রিপরিষদ সদস্যরা ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন করতে পারেন। এই বিষয়টি তারা বিবেচনা করে দেখতে পারেন। কারণ এখানে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নষ্ট হয় বলেই অনেকের ধারণা এবং সেটাই বাস্তবসম্মত।

নির্বাচনের সময় তথ্য প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা যেন সৃষ্টি না হয় তার দাবিও জানান টিআইবির নির্বাহী পরিচালক। তিনি বলেন, নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের অবাধে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ ও গণমাধ্যমকে তথ্য সংগ্রহ এবং প্রকাশের সুযোগ দিতে হবে। নির্বাচনের সময়ে ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণ করার চর্চাটা এর আগে হয়েছিল সেটি থেকে যেন বিরত থাকা হয়, কেন্দ্রভিত্তিক যে তথ্য তা যেন অনতিবিলম্বে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়, এগুলো আমরা প্রস্তাব করেছি।

ইভিএমের বিষয়েও আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, আমরা মনে করি, এই ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের সম্পৃক্ত করে পরামর্শ নেওয়া এবং নিশ্চিত করা যাতে কারিগরি কোনো ফল্ট না থাকে ইভিএমে।


আরও খবর



বাজেট: ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের পাঁচ দাবি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

নতুন অর্থবছরের (২০২২-২৩) প্রস্তাবিত বাজেট চূড়ান্ত অনুমোদনের সময় পাঁচটি বিষয় বিবেচনার দাবি জানিয়েছে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ।

সাধারণ বিনিয়োগকারীদের পক্ষে মঙ্গলবার (১৪ জুন) অর্থমন্ত্রী বরাবর পাঠানো এক চিঠিতে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুর রাজ্জাক এসব দাবি জানিয়েছেন।

এতে বলা হয়েছে, ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে মহাধসের ফলে বহু বিনিয়োগকারী চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। পুঁজি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে ৩৪ জন বিনিয়োগকারী আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছিলেন। পুঁজিবাজারের পতনের দায় তৎকালীন সরকারের ওপর পড়েছিল। এরপর থেকে পুঁজিবাজার আর পূর্ণাঙ্গ স্থায়ী স্থিতিশীলতা পায়নি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের বর্তমান কমিশন দায়িত্বগ্রহণের পর বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন এবং পুঁজিবাজারের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ বর্তমানে এগিয়ে থাকলেও পুঁজিবাজারের মন্দাভাবের কারণে তা বার বার ম্লান হয়ে যাচ্ছে।

২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট করপোরেট কর হার কমানোকে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত উল্লেখ করে এতে বলা হয়েছে, বাজেটে শেয়াবাজারের উন্নয়ন ও শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে পরিশোধিত মূলধনের ১০ শতাংশের অধিক শেয়ার আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হলে সেই তালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য কর হার ২২ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি একটি যুগান্তকারী প্রস্তাবনা।

বিনিয়োগকারীদের পাঁচ দাবি ও দাবির পক্ষে যুক্তি—

>> অপ্রদর্শিত অর্থ ১০ শতাংশ কর প্রদানের মাধ্যমে বিনাশর্তে শুধুমাত্র পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ দিতে হবে। এতে পুঁজিবাজারে অর্থের যোগান বৃদ্ধি পাবে, পুঁজিবাজার গতিশীল হবে, বিদেশে অর্থপাচার বন্ধ হবে, দেশীয় শিল্পউন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে। এতে সরকারেরও প্রচুর পরিমাণে রাজস্ব বৃদ্ধি পাবে।

>> প্রস্তাবিত বাজেটে তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির কর হার ২ দশমিক ৫ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু আমরা তালিকাভূক্ত কোম্পানির কর হার ১৫ শতাংশ করার জোর সুপারিশ করছি। এতে বহু নতুন ভালো প্রতিষ্ঠান পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী হবে। কোম্পানিগুলোর নিট মুনাফা বৃদ্ধি পাবে এবং লভ্যাংশ প্রদানের সক্ষমতা বাড়বে। ফলে পুঁজিবাজার গতিশীল হবে।

>> লভ্যাংশের ওপর থেকে ট্যাক্স প্রত্যাহার করতে হবে। কোম্পানিগুলো লভ্যাংশের ঘোষণার আগে সরকারকে অগ্রিম যে ট্যাক্স দিয়ে থাকে, সেটাকে চূড়ান্ত ট্যাক্স হিসাবে গণ্য করতে হবে। ভালো লভ্যাংশ পাওয়ার আশায় তখন পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীরা দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগে আগ্রহী হবে। এতে পুঁজিবাজারের বিনিয়োগ বাড়বে এবং পুঁজিবাজারের অস্থিরতা কমবে।

>> পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত অনেক কোম্পানি ভালো মুনাফা করা স্বত্ত্বেও উপযুক্ত লভ্যাংশ প্রদানে গড়িমসি করে। কোম্পানিগুলোর নিট মুনাফার ন্যূনতম ৫০ শতাংশ লভ্যাংশ হিসাবে শেয়ারহোল্ডারদের প্রদানে ব্যবস্থাগ্রহণ করতে হবে। উপযুক্ত পরিমাণ লভ্যাংশ পাওয়ার প্রত্যাশায় পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ বাড়বে এবং পুঁজিবাজার স্থিতিশীল হবে।

>> বাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়ানোর ব্যবস্থা করতে হবে। এতে পুঁজিবাজারের অর্থের যোগান বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া পুঁজিবাজারের দুঃসময়ে ওই প্রতিষ্ঠানগুলো পুঁজিবাজারকে সাপোর্ট দিতে সক্ষম হবে।


আরও খবর



তিন দেশের ১৬টি মাঠে হবে ৪৮ দলের ২০২৬ বিশ্বকাপ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

 

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় ভোরে ২০২৬ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের ভেন্যুর নাম প্রকাশ করেছে ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। উত্তর আমেরিকার তিন দেশ যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো ও কানাডার ১৬টি ভিন্ন ভেন্যুতে হবে ৪৮ দেশের এই বিশ্বকাপের আসর।

আগেই জানা, ২০২৬ সালে প্রথমবারের মতো ৪৮ দেশের অংশগ্রহণে হবে ফুটবল বিশ্বকাপ। যার ফলে স্বাভাবিকভাবেই বাড়বে ম্যাচের সংখ্যা। তাই কাতার বিশ্বকাপে যেখানে খেলা হবে ৮টি মাঠে, সেখানে চার বছর পরের আসরে খেলা হবে ১৬টিতে।

ফিফার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ১১, মেক্সিকোর তিন ও কানাডার দুইটি ভেন্যুতে হবে পুরো বিশ্বকাপের খেলা। ২০২৬ সালের বিশ্বকাপেই প্রথমবারের মতো তিন দেশ মিলিয়ে হবে একটি বিশ্বকাপ। সবশেষ ২০০২ সালে একের বেশি আয়োজক ছিল বিশ্বকাপের।

২০২৬ বিশ্বকাপের ভেন্যু শহরগুলো হলো- নিউ জার্সি/নিউ ইয়র্ক, লস অ্যাঞ্জেলস, ডালাস, সান ফ্রান্সিসকো, মিয়ামি, আটলান্টা, সিয়াটল, হস্টন, ফিলাডেলফিয়া, কানসাস সিটি, মিসৌরি, বস্টোন, গুয়াদালাজারা, মেক্সিকো সিটি, মন্টেইরি, ভ্যাঙ্কুবার ও টরোন্টো।

১৯৯৪ সালে যেবার বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল যুক্তরাষ্ট্র, তখন ফাইনাল ম্যাচটি হয় লস অ্যাঞ্জেলসের রোজ বোল স্টেডিয়ামে। তবে এবার সেই মাঠে কোনো খেলা হবে না। এর বদলে লস অ্যাঞ্জেলসের সোফি স্টেডিয়ামকে বেছে নেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



অস্ত্র আইনের মামলায় সাজাপ্রাপ্ত সাহেদের জামিন স্থগিত

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট, করোনা চিকিৎসার নামে রোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়সহ নানা অনিয়মের অভিযোগে আটক ও অস্ত্র আইনের মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মো. সাহেদকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত।

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে করা আপিল আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার (১২ জুন) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহীমের চেম্বার আদালত এই আদেশ দেন।

বিস্তারিত আসছে...


আরও খবর