Logo
শিরোনাম

ঢাবি শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস নেন না: অতিরিক্ত সচিব

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষকরা নিজ বিভাগের নিয়মিত ক্লাস নেন না, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি মনোযোগ বলে অভিযোগ করেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আবু ইউসুফ মিয়া।

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটের শিক্ষক প্রতিনিধিরা এর প্রতিবাদ জানিয়ে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে বলেন।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিকেলে অনুষ্ঠিত হওয়া সিনেট অধিবেশনে অতিরিক্ত সচিবের বক্তব্যের সময় এ ঘটনা ঘটে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট নির্বাচিত প্রতিনিধির বাইরেও উপাচার্য, রাষ্ট্রপতি, স্পিকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মনোনীত সদস্যদের নিয়ে গঠিত হয়। অতিরিক্ত সচিব মো. আবু ইউসুফ মিয়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের থেকে মনোনীত সিনেট সদস্য।

সিনেটে তার বক্তব্যের সময় তিনি বলেন, আমি যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলাম, তখন শিক্ষকরা যেভাবে ক্লাস নিতো এখনও সেভাবে নিয়মিত ক্লাস নেওয়ার কথা। কিন্তু নিয়মিত ক্লাস না নিয়ে সব ক্লাস একেবারে নিচ্ছে। এই অভিযোগটা আছে।

এসময় ঢাবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিজামুল হক ভূঁইয়া এ কথার প্রতিবাদ জানান।

তিনি বলেন, আমি মনে করি শিক্ষকরা যথাসময়ে ক্লাস নিচ্ছেন। কোনো শিক্ষার্থী বলতে পারবে না যে শিক্ষকরা ক্লাস নিচ্ছেন না।

এসময় তিনি অতিরিক্ত সচিবকে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে অনুরোধ করেন।

অপরদিকে শিক্ষক প্রতিনিধির চেয়ারে থাকা নীল দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুল মঈন, জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এ কে এম মাহাবুব হাসান ও অধ্যাপক আ জ ম শফিউল আলম ভূঁইয়া সচিবের বক্তব্যের বিরোধিতায় উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করেন।

একপর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান অতিরিক্ত সচিবের বক্তব্য প্রত্যাহার করেন। পরে অতিরিক্ত সচিব তার বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।


আরও খবর

ঢাবি ‘ক’ ইউনিটে সেরা যারা

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




সীতাকুণ্ডে আহতদের দেখতে চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে প্রতিনিধি দল

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে রাসায়নিক বিস্ফোরণে ঘটনায় আহত রোগীদের অবস্থা দেখতে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট পরিদর্শনে গিয়েছেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।

বুধবার (৮ জুন) সকাল ১০টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্নের সমন্বয়ক ডা.সামন্ত লাল সেনের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে পৌঁছান।

ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে মারাত্মকভাবে আহত ৬ জন রোগীকে চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে আনা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকেই চোখে আঘাত পেয়েছেন।

তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন শেখ হাসিনা বার্নের আবাসিক সার্জন ডা. আইউব হোসেন ও ডা. হেদায়েত।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক দীন মোহাম্মদ নুরুল হক সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত ৬৩ জন রোগী কোনো না কোনোভাবে চোখে আঘাত পেয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরুতর ছয়জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে নেওয়ার প্রয়োজন হবে। একজনের চোখের কর্নিয়া ফেটে গেছে। তাকে দেশের বাইরেও নিতে হতে পারে।

গত শনিবার দিনগত রাতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার প্রায় ৬১ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

আগুনে পুড়ে এখন পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যসহ নিহত হয়েছেন ৪৪ জন। যদিও রোববার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সিভিল সার্জন কার্যালয় মৃতের সংখ্যা ৪৯ জানিয়েছিল। তবে গতকাল সোমবার তারা জানান, মৃত মানুষের সংখ্যা গণনায় ভুল ছিল, নিহতদের প্রকৃত সংখ্যা ৪১ জন।

মঙ্গলবার মূল অগ্নিকাণ্ডের স্থান থেকে আরও দুটি মরদেহ শনাক্ত করে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। বুধবার ভোর ৪টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও একজনের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে মঙ্গলবার পর্যন্ত ২৬ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্মরণকালের ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ সদস্য, ডিপোর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকসহ দুই শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


আরও খবর



নেত্রকোনায় ভয়াবহ হচ্ছে বন্যা, আশ্রয়কেন্দ্রে সাড়ে ১৬ হাজার মানুষ

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪২জন দেখেছেন
Image

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বৃষ্টিপাতে নেত্রকোনায় বন্যা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে। এরমধ্যে কলমাকান্দা ও দুর্গাপুরের পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। জেলার সঙ্গে উপজেলার দুটির সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এছাড়া ছয় উপজেলায় সাড়ে ১৬ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই নিয়েছেন।

কলমাকান্দা ও দুর্গাপুর উপজেলা দুটির শহর থেকে শুরু করে সবগুলো গ্রামেই বন্যার পানি ঢুকেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন অন্তত সাড়ে তিন লাখ মানুষ। এছাড়া খালিয়াজুরি, সদর, আটপাড়া ও বারহাট্টা উপজেলা মিলে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ পানিবন্দি।

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, জেলার ছয়টি উপজেলায় ১৮৮টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে ১৬ হাজার ৪৮০ জন মানুষ ঠাঁই নিয়েছেন। বন্যাকবলিত প্রতিটি উপজেলায় কন্ট্রোল রুম খোলাসহ মেডিকেল টিম নিয়োজিত হয়েছে। জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন এনজিও, স্বেচ্ছাসেবীসহ প্রশাসনের লোকজন মানুষসহ গোবাদি পশু নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, বন্যাদুর্গত এলাকায় এরইমধ্যে ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ৬০ মেট্রিক টন জিআর চাল ও নগদ আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক বলেন, কলমাকান্দা ও দুর্গাপুরে ক্রমশ পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে। অসংখ্য মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন। রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, উপাসনালয় ডুবে যাচ্ছে। জেলার সঙ্গে কলমাকান্দার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক পরিস্থিতি মোকাবিলায় যথেষ্ট প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

শনিবার (১৮ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কলমাকান্দা উপজেলার কৈলাটি, পোগলা, সদর, নাজিরপুর ও বড়খাপন ইউনিয়নে গিয়ে দেখা গেছে সব গ্রামগুলোতেই পানি আর পানি। কলমাকান্দা শহরের সব এলাকায় পানি থৈই থৈই করছে। শুকনো ধান, চালসহ ঘরের আসবাপত্র সব কিছু পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেকেই বাসাবাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিচ্ছেন।

প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে কলমাকান্দ-ঠাকুরাকোনা নবনির্মিত সড়কের স্থানে স্থানে মানুষ তাবু টানিয়ে গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগিসহ গৃহপালিত প্রাণী নিয়ে আশ্রয় নিচ্ছেন। ওই সড়কটির হিরাকান্দা, আশারানী, পাবই, বাহাদুরকান্দাসহ বেশ কিছু স্থান নিচু থাকায় বন্যার পানিতে ডুবে গেছে। সড়কের কোথাও কোথাও কোমর পানি। এতে করে জেলার সঙ্গে উপজেলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

কলমাকান্দা উপজেলা পরিষদ কার্যালয়সহ চানপুর, নদীপাড়, পশ্চিমবাজার, মধ্যবাজার, পূর্ববাজার, কলেজ রোডসহ প্রায় সব এলাকায় এখন হাঁটুপানি থেকে বুকপানি। বন্যার পানিতে প্রায় সাড়ে তিন হাজার পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। গবাদি পশুর খাদ্য সংকট দেখা দিচ্ছে।

কলমাকান্দার কৈলাটি ইউনিয়নের ঘনিচা গ্রামের ময়না মোড়ল জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর থেকে পানি বেড়ে এখন তার ঘরে কোমরপানি। তিনি স্ত্রী-সন্তান নিয়ে দুপুরে অন্যের বাড়িতে ঠাঁই নিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানেও পানি থাকায় সড়কের পাশে একটি বাজারে দোকান ঘরে ঠাঁই নিয়েছেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ওয়াদুল্লাহ বলেন, কলমাকান্দা, দুর্গাপুর, বারহাট্টাসহ ছয়টি উপজেলায় প্রায় সাড়ে ছয় শতাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। এসব বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

নেত্রকোনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মোহন লাল সৈকত জানান, ভারী বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে নেত্রকোনার কংস, মোমেশ্বরী, ধনু, উব্দাখালিসহ কয়েকটি নদ নদীর পানি এখন বিপৎসীমার ওপরে। গতকাল শুক্রবার শুধু দুর্গাপুরেই ২২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। পানি আরও বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান তিনি।

কলমাকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আবুল হাসেম বলেন, কলমাকান্দায় বন্যা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে। উপজেলায় ৭৯টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এরমধ্যে ১৫টি আশ্রয়কেন্দ্রে আড়াই হাজারের মতো মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। প্রশাসন সার্বিক পরিস্থিতি মোকাবিলায় তৎপর রয়েছে।


আরও খবর



হয়ে গেলো ‘এই মুহূর্তে’র বিশেষ প্রদর্শনী

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

তিন কারিগর আর একটা শহর। পিপলু আর খান, মেজবাউর রহমান সুমন ও আবরার আতহার; এই সময়ের তিনটি গল্প নিয়ে নির্মাণ করেছেন একটি অ্যান্থলজি সিনেমা। সিটি ব্যাংক নিবেদিত চরকি অরিজিনাল সিনেমাটির নাম ‘এই মুহূর্তে’।

বর্তমানে বাংলাদেশে সবচেয়ে আলোচিত ও ভিন্ন চিন্তার এই তিন পরিচালক প্রথমবারের মতো এক ফ্রেমে কাজ করেছেন। ২৩ জুন রাত ৮টা থেকে ‘এই মুহূর্তে’ চলছে চরকির পর্দায়। এই আনন্দ উদযাপনের জন্য চরকি ২ জুলাই এক বিশেষ সন্ধ্যা সাজিয়েছিল। আয়োজন করা হয়েছিল ‘এই মুহূর্তে’র বিশেষ প্রদর্শনীর।

রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লকবাস্টারে সন্ধ্যা ৬টা থেকে প্রদর্শিত হয় ছবিটি। সেখানে বসেছিল তারার মেলা।

নীল হুরেজাহানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা ও চলচ্চিত্র নির্মাতা রেদওয়ান রনি, চরকির শুভাকাঙ্ক্ষী লেখক ও সাহিত্যিক সাজ্জাদ শরীফ। তারপর বক্তব্য রাখেন সিটি ব্যাংকের হেড অফ ব্র্যান্ড ও কমিউনিকেশন এন্ড কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স শাহরিয়ার জামিল খান।

একে একে বক্তব্য রাখেন ‘এই মুহূর্তে’র তিন পরিচালক পিপলু আর খান, মেজবাউর রহমান সুমন ও আবরার আতহার।

ওটিটিতে নিজের কাজের অভিজ্ঞতা ও অনুভূতি তুলে ধরেন জাহিদ হাসান, প্রীয়ন্তী উর্বী, তানজিম সাইয়ারা তটিনী, দিব্য জ্যোতি, ইয়াশ রোহান, সুনেরাহ বিনতে কামাল ও তাসলিমা হোসেন নদীসহ অন্যান্য অভিনেতা-অভিনেত্রীরা।

এই আয়োজনে সবাইকে চমক দিতে হাজির হন হালের জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রী আফরান নিশো ও নাজিফা তুষি। সেখানে এসে তারা তাদের আসন্ন কনটেন্ট ‘সিন্ডিকেট’-এর প্রচার করেন।


আরও খবর



দু-একদিনের মধ্যে কমবে তেলের দাম: বাণিজ্যসচিব

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম কমায় আগামী দু-একদিনের মধ্যে দেশেও সেটি কমে আসবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ।

রোববার (২৬ জুন) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার দ্বাদশ মিনিস্টারিয়াল কনফারেন্স উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

বাণিজ্যসচিব বলেন, তেলের দামের ক্ষেত্রে আগামী দুই একদিনের মধ্যে একটা সুখবর আসতে পারে। আশা করছি, তেলের দাম কমবে। এখন সেই হিসাব-নিকাশ করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ট্যারিফ কমিশন তেল রিফাইনারি শিল্প প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বৈঠক করে আমাদের জানাবে। তারপর আমরা জানাতে পারবো, কত টাকা কমবে। তবে বলা যায় যে, তেলের দাম কমবে।


আরও খবর



শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন আইজিপি, প্রাপ্ত অর্থ দেবেন বন্যার্তদের

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

শুদ্ধাচার পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। সরকার শুদ্ধাচার চর্চার স্বীকৃতিস্বরূপ আইজিপিকে শুদ্ধাচার পুরস্কার ২০২০-২১ প্রদান করেছে।

সোমবার (২৭ জুন) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে আইজিপির হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন। শুদ্ধাচার পুরস্কার হিসেবে একটি সার্টিফিকেট, একটি ক্রেস্ট এবং এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রদান করা হয়।

পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) মো. কামরুজ্জামান এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার প্রধানদের মধ্যে শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ার গৌরব অর্জন করেন আইজিপি। আইজিপি পুরস্কার হিসেবে প্রাপ্ত অর্থ দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলের সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলার বন্যাকবলিত মানুষের কল্যাণে প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন।

আইজিপি বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর এ অর্জনে তার সব সহকর্মীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের অর্জনের লক্ষ্যে সরকারের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনীর সব সদস্য জনকল্যাণে অধিকতর কর্মনিষ্ঠা, সততা ও দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এছাড়া, বাংলাদেশ পুলিশ বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) বাস্তবায়নে ২০২০-২১ অর্থবছরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেছে।

একই অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সঙ্গে আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আখতার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এসময় বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর