Logo
শিরোনাম

একসঙ্গে শাওমির স্মার্টওয়াচ ও ইয়ারবাড

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ মার্চ ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ১২২জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক বাজারে শাওমির একাধিক পণ্য। কয়েকদিন আগেই শাওমির ১২ সিরিজ লঞ্চ করেছে। এই স্মার্টফোনের সঙ্গে এসেছে একটি ইয়ারবাড ও একটি স্মার্টওয়াচ। শাওমি ওয়াচ এস ১, শাওমি ওয়াচ এস ১ অ্যাক্টিভ ও শাওমি বাডস ৩টি প্রো। দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফে এসেছে পণ্য তিনটি।

শাওমি ওয়াচ এস ১ স্মার্টওয়াচটি এলিগ্যান্ট এবং স্টাইলিশ ডিজাইনের সঙ্গে এসেছে। এতে দেওয়া হয়েছে ১.৪৩ ইঞ্চি অ্যামোলেড টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে। এর চারপাশে রয়েছে স্টেইনলেস স্টিলের ফ্রেম। এছাড়া ডিসপ্লের ওপর দেওয়া হয়েছে স্যাফায়ার গ্লাসের আচ্ছাদন।

সূর্যের আলোয় এই অ্যামোলেড ডিসপ্লে ক্লিস্টর ক্লিয়ার ভিউ দেবে। ফলে ব্যবহারকারী সহজেই তার ফোনে আসা মেসেজ, ইনকামিং কল, নোটিফিকেশন ঘড়িটিতে দেখতে পাবেন। ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দমতো লেদারের রিষ্টব্যান্ড অথবা বিভিন্ন কালার অপশনে আসা ফ্লুরো রাবারের স্ট্র্যাপ বেছে নিতে পারবেন ঘড়িটির সঙ্গে।

স্মার্টওয়াচটিতে দেওয়া হয়েছে ৪৭০এমএএইচ ব্যাটারি। যা একবার চার্জে ১২ দিন পর্যন্ত ব্যাটারি লাইফ অফার করতে সক্ষম। এর সঙ্গে দেওয়া হয়েছে ম্যাগনেটিক চার্জার।

১১৭টি স্পোর্টস মোড, স্লিপ ট্র্যাকার, হার্ট রেট মনিটর, ব্লাড অক্সিজেন মনিটর থাকছে স্মার্টওয়াচটিতে। এছাড়া এতে ব্লুটুথ কলিং ফিচার সাপোর্ট করবে। সঙ্গে থাকবে ডুয়াল ফ্রিকুয়েন্সি, জিএনএসএস পজিশন এবং অ্যামাজন অ্যালেক্সা ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট। সঙ্গে পানি থেকে সুরক্ষা দিতে থাকছে এটি ৫ এটিএম রেটিং।

অন্যদিকে শাওমি বাডস ৩টি প্রো ইয়ারফোনটি একই সঙ্গে সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার আপগ্রেডেশনের সঙ্গে এসেছে। এতে রয়েছে সিলেকশন ডিলসি কোটিংয়ের সঙ্গে ৩ এমএম ডুয়াল ম্যাগনেট ডাইনামিক ড্রাইভার। এটি এলএইচডিসি ৪.০ অডিও কোডেক সাপোর্ট করবে।

এতে ৪০ ডেসিবেল হাইব্রিড অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যান্সলেশন ফিচারের উপলব্ধ। এই ফিচারটিতে তিনটি মোড বর্তমান। এর মধ্যে অ্যাডাপটিভ মোড চারপাশের অবাঞ্ছিত আওয়াজকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম। আবার ব্যবহারকারী চাইলে এর ট্রান্সফারেন্সি মোড অন করলে আশেপাশের আওয়াজও শুনতে পাবেন।

ইয়ারবাডটি কম্ফোর্টেবল ও সিকিউর ডিজাইনের সঙ্গে এসেছে। এছাড়া এটি ডুয়াল ডিভাইস কানেক্টিভিটি সাপোর্ট করবে। অর্থাৎ একই সঙ্গে দুটি ডিভাইসের সঙ্গে ইয়ারফোনটি সামঞ্জস্যপূর্ণ।

সংস্থার দাবি একক চার্জে ইয়ারফোনটি ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত অফার করতে সক্ষম। তবে এর চার্জিং কেস সমেত এটি ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত সক্রিয় থাকবে।

বিশ্ববাজারে শাওমি ওয়াচ এস ১ স্মার্টওয়াচের দাম ধার্য করা হয়েছে যথাক্রমে ২৬৯ ডলার (প্রায় ২০ হাজার ৫০০ টাকা), শাওমি বাডস ৩টি প্রো ইয়ারফোনের দাম রাখা হয়েছে ১৯৯ ডলার (প্রায় ১৫ হাজার ১৫০ টাকা)। গ্লস হোয়াইট ও কার্বন ব্ল্যাক এই দুটি কালার অপশনে ক্রেতারা বেছে নিতে পারবেন নতুন এই ইয়ারফোনটি।

সূত্র: এনডিটিভি গ্যাজেট


আরও খবর



হৃদরোগ ইনস্টিটিউটকে ৩ কোটি ৭১ লাখ টাকা অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩১জন দেখেছেন
Image

অসহায় ও দরিদ্র রোগীদের জন্য বিনামূল্যে হার্টের ভাল্ব, রিং, পেসমেকার কিনতে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন কোটি ৭১ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন।

বুধবার (১১ মে) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সিনিয়র সচিব মো. তোফাজ্জেল হোসেন মিয়ার কাছ থেকে অনুদানের চেক গ্রহণ করেন জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীর জামাল উদ্দিন।

অনুদানের চেক গ্রহণের সময় ডা. মীর জামাল উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ অনুদান গরিব ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসকার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখাবে।

এসময় অন্যদের মধ্যে সহযোগী অধ্যাপক ও কার্ডিয়াক সার্জন ডা. আশরাফুল হক সিয়াম উপস্থিত ছিলেন।

ডা. মীর জামাল উদ্দিন জাগো নিউজকে জানান, প্রধানমন্ত্রী গত বছরের আগস্টে অসহায় হৃদরোগীদের মধ্যে বিনামূল্যে চিকিৎসাসামগ্রী বিতরণের জন্য তিন কোটি ২৯ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছিলেন। সেই অনুদানের টাকা দিয়ে ৩০০ হার্টের রিং, ১৫০টি ভাল্ব, ১০০টি পেসমেকার কিনে রোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। এবার যে অনুদান পাওয়া গেছে, তা দিয়ে চিকিৎসাসামগ্রী ক্রয় করে অসহায় সেবা তহবিলের মাধ্যমে বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।

তিনি বলেন, হৃদরোগীদের সরকারি পর্যায়ে চিকিৎসা সেবা নেওয়ার সবচেয়ে বড় হাসপাতাল জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল। অনেক রোগীদের ভাল্ব প্রতিস্থাপন, পেসমেকার স্থাপন এবং রিং বসাতে হয়। তাদের অনেকেই আর্থিক সংকটের কারণে সেই চিকিৎসা নেওয়ার সুযোগ পান না। বিষয়টি জানার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই দফা অনুদান দিলেন।


আরও খবর



নিম-নিশিন্দা পাতা দিয়ে ধান সংরক্ষণ করবেন যেভাবে

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

ধানসহ যেকোনো ফসলের বেশি ফলন পেতে হলে ভালো বীজের প্রয়োজন। এজন্য যে জমির ধান ভালোভাবে পেকেছে, রোগ বালাই পোকা-মাকড়ের আক্রমণ করেনি এবং আগাছামুক্ত জমির ধান বীজ হিসেবে সংরক্ষণ করতে হবে। ভালো ফসল পেতে হলে নিরাপদ বীজ ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য বীজ নিরাপদ রাখতে নিম- নিশিন্দা পাতা দিয়ে বীজ ধান সংরক্ষণ করা যায়। এতে সুরা, কাটারিসহ বিভিন্ন পোকা বীজে আক্রমণ করবে না।

ভালো বীজ পেতে হলে ধান মাড়াই করার সময় চাটাই, চট বা পলিথিন বিছিয়ে দিতে হবে। এভাবে ধান মাড়াই করলে ধানের রং উজ্জ্বল ও পরিষ্কার থাকে। মাড়াই করা ধান অন্তত ৪ থেকে ৫ দিন রোদে ভালোভাবে শুকানোর পর ঝেড়ে গোলাজাত করতে হবে।

এবার ধান কাটার আগেই বিজাতীয় গাছ সরিয়ে ফেলতে হবে। যেসব গাছের আকার-আকৃতি, শীষের ধরন, ধানের আকার-আকৃতি, রং এবং ধান পাকার সময় জমির অধিকাংশ গাছ থেকে একটু আলাদা সেগুলোই বিজাতীয় গাছ। পাশাপাশি সব রোগাক্রান্ত গাছও অপসারণ করতে হবে।

এরপর ফসল কেটে এবং আলাদা মাড়াই, ঝাড়াই করে ভালোভাবে রোদে শুকিয়ে মজুদ করতে হবে। বীজ ধান মজুদের সময় যেসব পদক্ষেপ নেওয়া উচিত তা জেনে নেওয়া যাক। রোদে ৫ থেকে ৬ দিন ভালোভাবে শুকিয়ে নিতে হবে যেন বীজের আর্দ্রতা শতকরা ১২ ভাগের নিচে থাকে। দাঁত দিয়ে বীজ কাটলে যদি কটকট শব্দ হয় তাহলে বুঝতে হবে বীজ ঠিকমতো শুকিয়েছে।

পরিপুষ্ঠ ধান বাছাই করতে কুলা দিয়ে কমপক্ষে দুবার ঝেড়ে নেওয়া যেতে পারে। বায়ুরোধী পাত্রে বীজ রাখা উচিত। বীজ রাখার জন্য ড্রাম ও বিস্কুট বা কোরোসিন টিন ব্যবহার করা ভালো। মাটির মটকা বা কলসে বীজ রাখলে গায়ে দুবার আলকাতরার প্রলেপ দিয়ে শুকিয়ে নিতে হবে।

আর্দ্রতা রোধক মোটা পলিথিনেও বীজ মজুদ করা যেতে পারে। রোদে শুকানো বীজ ঠান্ডা করে পাত্রে ভরতে হবে। পুরো পাত্রটি বীজ দিয়ে ভরে রাখতে হবে। যদি বীজে পাত্র না ভরে তাহলে বীজের উপর কাগজ বিছিয়ে তার উপর শুকনো বালি দিয়ে পাত্র পরিপূর্ণ করতে হবে।

পাত্রের মুখ ভালোভাবে বন্ধ করতে হবে যেন বাতাস ঢুকতে না পারে। এবার এমন জায়গায় রাখতে হবে যেন পাত্রের তলা মাটির সংস্পর্শে না আসে। প্রতি টন ধানে ৩.২৫ কেজি নিম, নিশিন্দা বা বিষ কাটালি পাতার গুঁড়া মিশিয়ে গোলাজাত করলে পোকার আক্রমণ হয় না। পাতা ভালোভাবে রোদে শুকিয়ে গুঁড়া করে ধানের সঙ্গে মিশিয়ে দিতে হবে।

তথ্য সূত্র: কৃষি তথ্য সার্ভিস


আরও খবর



প্লে-অফের সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে ব্যাঙ্গালুরুর প্রয়োজন ১৬৯ রান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৪জন দেখেছেন
Image

অধিনায়োকোচিত ইনিংস খেললেন হার্দিক পান্ডিয়া। তার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের ওপর ভর করেই প্রায় ম্যাড়ম্যাড়ে হয়ে যাওয়া ম্যাচে ১৬৮ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে পেরেছে গুজরাট টাইটান্স।

মুম্বাইর ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নামে গুজরাট। আগের ১৩ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট থাকার কারণে এমনিতেই প্লে-অফ নিশ্চিত ছিল গুজরাটের। শুধু তাই নয়, তারা যে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে যাচ্ছে, সেটাও নিশ্চিত।

কিন্তু ব্যাঙ্গালুরুকে প্লে-অফে যেতে হলে এই ম্যাচে জিততেই হবে। সে সঙ্গে কামনা করতে হবে, দিল্লি ক্যাপিটলস যেন পরের ম্যাচে হারে। তার আগে আজ গুজরাটকে হারাতে হলে ১৬৯ রান করতে হবে তাদের।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই শুভমান গিলের উইকেট হারিয়ে বসে গুজরাট। এরপর দলীয় ৩৮ রানের মাথায় হারায় ম্যাথ্যু ওয়েডকে। ১৩ বলে ১৬ রান করেন তিনি।

২২ বলে ৩১ রান করে আউট হন ঋদ্ধিমান সাহা। ৪টি বাউন্ডারি এবং ১টি বাউন্ডারির মার মারেন তিনি। ডেভিড মিলার ২৫ বলে খেলেন ৩৪ রানের ইনিংস। ২ রান করেন রাহুল তেওয়াতিয়া। ৬ বলে ১৯ রানে অপরাজিত থাকেন রশিদ খান।

শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান সংগ্রহ করে গুজরাট টাইটান্স। জস হ্যাজলউড নেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট নেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং ওয়ানিদু হাসারাঙ্গা।


আরও খবর



মির্জাপুরে আধাঘণ্টার ব্যবধানে ৭ গরুর মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আধাঘণ্টার ব্যবধানে প্রায় ১০ লাখ টাকা মূল্যের সাতটি গরুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৩ মে) রাতে মির্জাপুর পৌর এলাকার ৭নং ওয়ার্ড পাহাড়পুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় এলাকার খামারিদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জানা গেছে, প্রবাসী আমিনুর রহমানের স্ত্রী ইলা বেগম বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে পাঁচবছর আগে নিজ বাড়িতে একটি গরুর খামার করেন। তিনি নিজেই ঘাস রোপণ করাসহ কেটে এনে গরুগুলোকে খাওয়াতেন। খামারে দুধের গাভীসহ নয়টি গরু ছিল। প্রতিবছর এই খামার থেকে কোরবানির আগে ৩/৪টি ষাঁড় বিক্রি করেন তিনি। দুই বছর আগে তিন লাখ টাকা দিয়ে ফ্রিজিয়ান জাতের একটি গাভী কেনেন ইলা। ওই গাভী প্রতিদিন ১৫ লিটার দুধ দিতো। এতে তার সংসারের সচ্ছলতা আসে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে হঠাৎ দুধের গাভীটি মারা যায়। এরপর আধাঘণ্টার মধ্যে একে একে একটি গর্ভবতী গাভীসহ আরও পাঁচটি ষাঁড়ের মৃত্যু হয়। একসঙ্গে সাতটি গরুর মৃত্যুতে ইলার প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

৭নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আলী আজম খান বলেন, আধাঘণ্টার মধ্যে ইলা বেগমের সাতটি গরুর মৃত্যুতে ওই গ্রামের অন্য খামারিদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

খামারের মালিক ইলা বেগম বলেন, বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে পাঁচ বছর আগে খামারটি শুরু করি। খামারটিতে একটি দুধের গাভীসহ ৯টি গরু ছিল। আমার ছেলেমেয়ের মতো যত্ন নিয়ে গরুগুলো লালনপালন করতাম। আধাঘণ্টার মধ্যে সাতটি গরুর মৃত্যু হওয়ায় আমি সর্বস্বান্ত হয়েছি।

মির্জাপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. সাইফুদ্দিন আহমেদ জানান, বৃষ্টির পরে গজানো ঘাসে নাইট্রিক অ্যাসিড থাকতে পারে। এ ধরনের ঘাস খেয়ে গরুগুলোর মৃত্যু হতে পারে। তবে প্রকৃত কারণ জানার জন্য মৃত গুরুর মাংস ঢাকায় পাঠানো হবে।


আরও খবর



পিরোজপুরে লোহার কাঁচামাল ভর্তি ট্রাক ছিনতাইকালে ৩ যুবক আটক

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৬জন দেখেছেন
Image

পিরোজপুরের নাজিরপুরে লোহার কাঁচামাল ভর্তি ট্রাক ছিনতাইকালে তিনজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা।

রোববার (১৫ মে) সকালে উপজেলার চৌঠাই মহল বাসস্ট্যান্ড এলাকার রাবেয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- নাজিরপুর পৌরসভার কুমারখালী এলাকার মৃত আনোয়ার শিকদারের ছেলে শাহেদ শিকদার (৩৫), তার সহযোগী পালপাড়া এলাকার সেলিম কাজীর ছেলে কাইয়ুম কাজি (২৯) ও প্রাইভেটকার চালক জেলার সদর উপজেলার হরিনা গাজীপুর গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে সোহেল শেখ (৩১)।

jagonews24

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, প্রাইভেটকারে (ঢাকা মেট্রো-গ ১২-৫৩৬৯) চোখ-মুখ বাঁধা এক যুবককে দেখে স্থানীয়রা সেটি ঘিরে ধরে পুলিশে খবর দেন। পরে কারে থাকা লোহার কাঁচামাল ভর্তি ট্রাকের হেলপার মানিক মোল্লা (২৪) নামের ওই যুবককে উদ্ধার করে অপহরণকারীদের আটক করে পুলিশ। এসময় ট্রাক ড্রাইভারসহ আরও দুজন পালিয়ে যান।

নাজিরপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মাহিদুল ইসলাম জানান, লোহার কাঁচামাল ভর্তি ট্রাকটি বরিশালের বানারিপাড়া থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে। ছিনতাইকারীরা ট্রাক ড্রাইভারকে জিম্মি করে হেলপারের চোখ-মুখ বেঁধে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা কালে স্থানীয়রা তাদের আটক হন।


আরও খবর