Logo
শিরোনাম

এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের জুনের বেতন-বোনাস ছাড়

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ | ৮২জন দেখেছেন
Image

বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের জুন (২০২২) মাসের মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারের (এমপিও) চেক ছাড় হয়েছে। এ মাসের বেতন বাবদ ৭৪৬ কোটি ৩৬ লাখ টাকা দেওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) পর্যন্ত বেতনভাতার সরকারি এ অংশ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো থেকে তোলা যাবে।

রোববার (৩ জুলাই) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের সরকারি অংশ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হয়েছে। তারা ৭ জুলাইয়ের মধ্যে এ অর্থ তুলতে পারবেন। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠান প্রধানদের emis.gov.bd ওয়েবসাইট থেকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের এমপিও শিট ডাউনলোড করতে বলা হয়েছে।

এদিকে মাউশি অধিদপ্তরের আরেকটি বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ বোনাসের ২০ শতাংশ দেওয়া হয়েছে। এ অর্থ আটটি চেকের মাধ্যমে নির্ধারিত ব্যাংকে জমা দেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ জুলাইয়ের মধ্যে এ অর্থ উত্তোলন করতে হবে।


আরও খবর



বদলে যাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপের সূচি!

প্রকাশিত:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ১০জন দেখেছেন
Image

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ শুরুর বাকি আছে তিন মাসের কিছু বেশি সময়। কাতারে আগামী ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়ার কথা রয়েছে বিশ্বকাপের ২২তম আসরের। এর মধ্যেই খবর এলো, একদিন এগিয়ে আনা হতে পারে কাতার বিশ্বকাপের সূচি।

আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম দিয়ারিও ওলে'র প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে এ খবর। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে যেনো স্বাগতিক কাতার মাঠে থাকে- তা নিশ্চিত করতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে ওলে'র প্রতিবেদনে।

বিস্তারিত আসছে...


আরও খবর



জাপার সঙ্গে ইসির সংলাপ শুরু

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ সংলাপের শেষ দিন আজ। এদিন সকালে জাতীয় পার্টির (জাপা) সঙ্গে সংলাপে বসেছে ইসি।

রোববার (৩১ জুলাই) বেলা ১১টায় নির্বাচন কমিশন ভবনের সম্মেলনকক্ষে এ সংলাপ শুরু হয়েছে। জাপার মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর নেতৃত্বে দলটির ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নিয়েছে। সংলাপে প্রধান নির্ব‌াচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল সভাপতিত্ব করছেন।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কর্মপদ্ধতি ঠিক করতে গত ১৭ জুলাই থেকে সংলাপ শুরু করে ইসি। এ পর্যন্ত ২৭টি দল ইসির ডাকে সাড়া দিয়েছে। তবে ইসির প্রতি অনাস্থা ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি তুলে সংলাপে অংশ নেয়নি বিএনপিসহ ৯টি দল।

দলগুলো হলো- বাসদ, বাংলাদেশ মুসলীম লীগ (বিএমল), বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, জেএসডি, এলডিপি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, সিপিবি ও বিজেপি। এছাড়া বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) তাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কারণে পরে সময় চেয়েছে।


আরও খবর



অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনে স্থূলতা রোগ বাড়ছে: বিএসএমএমইউ ভিসি

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

দেশে ৯ থেকে ১০ শতাংশ শিশু স্থূলতা ভুগছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনে স্থূলতা রোগ বাড়ছে জানিয়ে তিনি বলেন, অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত ও শর্করা জাতীয় খাদ্য গ্রহণ, মোবাইলফোনে আসক্তি, খেলাধুলা না করার প্রবণতার কারণে শিশুদের মধ্যে স্থূলতার হার বেড়ে যাচ্ছে।

রোববার (১৪ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ব্লক মিলনায়তনে শিশু বিভাগ, এন্ড্রোক্রাইনোলজি বিভাগ ও জেনারেল সার্জারি বিভাগের যৌথ আয়োজনে স্থূলতা (ওবেসিটি) নিয়ে মাসিক সেন্ট্রাল সেমিনারে এ তথ্য জানান তিনি।

সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, বিশ্বব্যাপী স্থূলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর কারণে ডায়াবেটিস মেলাইটাস, মেটাবোলিক সিনড্রোম, বন্ধ্যাত্ব ও হৃদরোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়। বাংলাদেশে শিশু ও পূর্ণবয়স্ক মানুষের মধ্যে এ রোগে সংখ্যা বাড়ছে বলা হলেও শিশুদের স্থূলতা দিন দিন মারাত্মক আকার ধারণ করছে।

শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, স্থূলতা ওজন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ডায়াবেটিস, ভিটামিন ডি-এর স্বল্পতা, উচ্চ রক্তচাপ, রক্তে চর্বি বৃদ্ধি ও মানসিক বিষন্নতাও দেখা যায়। তাই খাদ্যাভাস পরিবর্তন ও নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে ওজন কমিয়ে এর কুফল থেকে মুক্ত থাকতে হবে। এজন্য মা-বাবাকে সচেতন হতে হবে।

তিনি আরও বলেন, স্থূলতা নিয়ে নিয়মিত কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে শিশুদের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। খেলাধুলার মাঠের সংখ্যা বাড়াতে হবে। তবেই এ প্রজন্ম সুস্থ নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শিশু বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সুরাইয়া বেগম, সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম চৌধুরী ও অ্যান্ড্রোক্রাইনোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. তাহনিয়া হক।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যলয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন, উপ-উপাচার্য ( প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ।

সেমিনার সঞ্চালনা করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল সাব-কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সবুজ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকী।


আরও খবর



রাজশাহীর সঙ্গে নৌ ও ট্রেন যোগাযোগ স্থাপনে ইতিবাচক ভারত

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
Image

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও বৈঠক করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী।

রোববার (২৪ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৩টায় নগর ভবনে মেয়র দপ্তর কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে ভারতের মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান থেকে রাজশাহী থেকে ঈশ্বরদী দিয়ে আরিচা পর্যন্ত নৌরুট চালু ও রাজশাহী থেকে কলকাতা ট্রেন যোগাযোগ চালুর ব্যাপারে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়।

বৈঠক শেষে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, নৌপথটি সচল করে ভারত থেকে মালামাল রাজশাহী দিয়ে আরিচা হয়ে ঢাকা পর্যন্ত নেওয়া যায় কিনা সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

‘রাজশাহী থেকে কলকাতা পর্যন্ত ট্রেন সার্ভিসের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছি। তিনি এসব বিষয়ে সম্মত হয়েছেন। আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। এর সুফল রাজশাহীবাসী তথা রাজশাহী বিভাগের মানুষ ও দেশবাসী পাবে।

ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, রাজশাহীর সঙ্গে ভারতের নৌরুট চালু ও ট্রেন যোগাযোগ চালুর ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে ভারত সরকারও আন্তরিক। এসব চালু হলে উভয় দেশ লাভবান হবে।

তিনি আরও বলেন, রাজশাহী ক্লিন সিটি ও গ্রিন সিটি। এরাইমধ্যে সারাদেশে রাজশাহীর সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে। রাজশাহীতে আসতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত।


আরও খবর



সালিশি আইন ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে ভূমিকা রাখছে: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

সালিশি আইন ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, বিরোধ নিষ্পত্তির পদ্ধতি হিসেবে সালিশি কার্যক্রম বাংলাদেশে দীর্ঘকাল ধরে চলে আসলেও সালিশি আইন ২০০১ বাংলাদেশকে আধুনিক সালিশি কার্যক্রমের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে এসেছে। এ আইন দেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে আসছে।

শনিবার (২৩ জুলাই) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ‘সালিশি আইন ২০০১ অবিলম্বে সংস্কার প্রয়োজন’ শীর্ষক এক সেমিনার প্রধান তিনি এ কথা বলেন। ১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল আরবিট্রেশন সেন্টার (বিয়াক) এ সেমিনারের আয়োজন করে।

বিনিয়োগ বিকাশে সালিশি আইন সংস্কারের প্রয়োজনীতার কথা স্বীকার করে আইনমন্ত্রী বলেন, বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি পদ্ধতি প্রবর্তনের মূল উদ্দেশ্যে হচ্ছে দ্রুত, সহজে ও সাশ্রয়ীভাবে বাণিজ্যিক বিরোধ নিষ্পত্তি করা। তিনি বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি (এডিআর) পদ্ধতির যথাযথ প্রয়োগ আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

বিয়াক চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান তাঁর সমাপনী বক্তব্যে বলেন, বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির পদ্ধতিগুলো আমাদের বিচার ব্যবস্থায় যথাযথ অন্তর্ভূক্তি, সব আর্থিক চুক্তিকে কার্যকর করতে এবং সংশ্লিষ্ট বিরোধসমূহকে দ্রুত সাশ্রয়ী আকারে নিষ্পত্তি করতে উল্লেখযোগ্যভাবে সাহায্য করবে।

বিয়াক-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাইজার এ চৌধুরী তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বিয়াক-এর কার্যক্রম ও অর্জনসমূহ উপস্থাপন করেন এবং বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিকে বিচার ব্যবস্থার সহায়কী ভূমিকা পালন করার লক্ষ্যে সালিশি আইন ২০০১-এর বিদ্যমান প্রতিবন্ধকতাগুলি দূর করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

সেমিনারের প্রধান বক্তা ব্যারিস্টার রেশাদ ইমাম তাঁর উপস্থাপনায় সালিশি আইন ২০০১-এর সংশোধনের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। তিনি উল্লেখ করেন যে, বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি, বিশেষ করে সালিশি পদ্ধতি, মামলায় সম্পৃক্ত পক্ষদ্বয়কে দ্রুত এবং সাশ্রয়ীভাবে বিরোধ নিষ্পত্তি করণে সহায়তা প্রদান করে। সালিশি আইন ২০০১-এর সংশোধনী, পক্ষদ্বয়কে এ পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তিতে আরও উৎসাহিত করবে যার মাধ্যমে আদালত অঙ্গনে মামলার জট কমানোর পথ প্রশস্ত করা সম্ভব।

বিয়াক চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সালিশি আইন, ২০০১ নিয়ে আলোচনা করেন বিচারপতি আবদুস সালাম মামুন, ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি, মো. অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ লিমিটেড (এবিবি)-এর চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সেলিম, আর এফ হোসেন, বিয়াকের ভাইস চেয়ারম্যান এ (রুমি) আলী পলিসি এক্সচেঞ্জ অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ড. এম মাসরুর রিয়াজ প্রমুখ।

আলোচনায় বক্তারা বিদ্যমান সালিশি আইন ২০০১-এর ক্রটি তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশে সালিশি পদ্ধতি জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে এ আইনের কতিপয় ধারা সংশোধনের জন্য সুপারিশ করেন।


আরও খবর