Logo
শিরোনাম

গরমে মাইগ্রেনের যন্ত্রণা এড়াবেন যেভাবে

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৯জন দেখেছেন
Image

রোদে বের হলে কিংবা গরমে প্রচণ্ড মাথাব্যথায় কষ্ট পান অনেকেই। আবার কেউ কেউ বুঝেই উঠতে পারেন না কী কারণে আসলে মাথাব্যথা করছে! মাথাব্যথার পাশাপাশি গরমে ঘুম না আসা, স্ট্রেস, ডিহাইড্রেশন আরও বাড়িয়ে দেয় সমস্যা।

অসহ্য মাথার যন্ত্রণা একবার হলে আবার সহজে ছাড়ে না। এর থেকে চোখে ব্যথা, গা বমি ভাব পরিস্থিতি আরও অসহনীয় করে তোলে। তবে গরমে রোদে বের হওয়ার সঙ্গে মাথাব্যথার কি কোনো সম্পর্ক আছে কি?

বিশেষজ্ঞদের মতে, বেশ কয়েকটি কারণে গরমে আপনি মাথাব্যথায় আক্রান্ত হতে পারেন। সূর্যের তীব্র আলো চোখে পড়লে এই মাথাব্যথা শুরু হয়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে অবশ্যই কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। জেনে নিন কী কী-

>> প্রথমত আপনাকে জানতে হবে ঠিক কী কারণে আপনার মাথাব্যথা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, মাইগ্রেনের সমস্যা দূর করার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো কেন মাথা যন্ত্রণা হচ্ছে তা খুঁজে বের করা।

এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে মাইগ্রেন ডায়েরি। কবে মাথা যন্ত্রণা হয়েছে, ওই দিনে কী খাচ্ছেন, বেশিক্ষণ রোদে থেকেছেন কি না সেগুলো লিখে রাখুন। এর থেকেই আপনি বুঝতে পারবেন নির্দিষ্ট কোনো খাবার বা রোদের কারণে মাথাব্যথা হচ্ছে কি না।

>> গরমের সময় ডায়েটে ফল, সবজি, গোটা শস্য ও পর্যাপ্ত প্রোটিন রাখুন। সঠিক পুষ্টির অভাবে মাইগ্রেন হতেই পারে। হঠাৎ রক্তে শর্করার মাত্রা কমে গেলেও মাথা যন্ত্রণা হতে পারে। তাই সময়মতো খাবার খেতে হবে।

>> কিছু ওষুধযুক্ত তেল মাথাব্যথা উপশম করে। এজন্য পেপারমিন্ট তেল ব্যবহার করতে পারেন। এই তেলের গুনাগুণ পেশি শিথিল করে ও মাথাব্যথা থেকে মুক্তি দেয়।

>> তাৎক্ষণিক মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পেতে আকুপাংচার অনেক কার্যকরী। এটি একটি প্রাচীন চিনের কৌশল। এতে কিছুটা হলেও ব্যথা উপশম দেয়।

>> স্ট্রেস ও টেনশনের কারণেও হতে পারে মাথাব্যথা। এক্ষেত্রে ম্যাসাজ করলে পেশির টান দূর হবে ও বাড়বে রক্ত সঞ্চালন। বিশেষ করে এটি মাথাব্যথা ও কোমর ব্যথার জন্য খুবই উপকারী।

সূত্র: হেলথলাইন


আরও খবর

কাঁচা কাঁঠালের কাবাব

শুক্রবার ২০ মে ২০22




ঈদের ছুটিতে হাতিরঝিলে দর্শনার্থীদের ভিড়

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

ঈদের ছুটিতে খোলা বাতাস নিতে রাজধানীর হাতিরঝিলে ভিড় করেছেন দর্শনার্থীরা। রাজধানীর অক্সিজেন নামে খ্যাত স্থানটিকে বিভিন্ন বয়সী লোকজন ছাড়াও তরুণ-তরুণীদের ভিড় দেখা গেছে।

বুধবার ( ৪ মে) হাতিরঝিল ঘুরে দেখা গেছে, সেখানে সব পরিবারের লোকজন ছাড়াও বন্ধু বান্ধব নিয়ে মনের সুখে এদিক-ওদিক হেঁটে বেড়াচ্ছেন। তাদের বেশিরভাগই পরনে পাজামা পাঞ্জাবি ও মেয়েরা সালোয়ার-কামিজ শাড়ি পরে এসেছে ন। অনেকেই দলে দলে সেলফি তুলছেন।

সন্ধ্যার পরে হাতিরঝিলের পানিতে আলোর রশ্মি পড়াতে এক অনিন্দ্য দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। তবে কিছু বাইকাদের বেপরোয়া গতিতে বাইক চালানো ও হর্ন বাজানোর কারণে অনেকেই বিরক্ত প্রকাশ করেন।

হাতিরঝিলে রামপুরা এলাকায় ব্রিজের কাছে সবচাইতে বেশি লোকজন দেখা। এছাড়াও অন্যান্য ওভারব্রিজ ও ফুট ওভারব্রিজে প্রচুর লোকজন ঘুরতে এসেছেন। আর হকারদের হাক-ডাকও লক্ষ্য করা গেছে। তারা পানি আইসক্রিম বাদাম হাওয়াই মিঠাই বিক্রি করছেন।

jagonews24

হাওয়াই মিঠাই বিক্রেতা নজরুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, গতকাল ঈদের দিনের তুলনায় আজ লোকজন বেশি তাদের বেচাবিক্রিও বেশি হচ্ছে।

তৃপ্তি রহমান জাগো নিউজকে বলেন, পরিবার-পরিজনসহ আমরা ছয়জন এখানে ঘুরতে এসেছি। বেড়ায় থেকে বেরোনোর সময় রাস্তায় খুব জ্যাম ছিল। কিন্তু বাড্ডার মেন রাস্তায় উঠার পর রাস্তা পুরো ফাঁকা। হাতিরঝিলের খোলা বাতাসে ঘুরতে ভালোই লাগছে।

সেখানে একদল বন্ধু বান্ধব নিয়ে যাওয়া টিকটকার ফরিদ রহমান, প্রায়ই আমরা হাতিরঝিলে টিকটকের শুটিং করতে। কিন্তু আজ লোকজন বেশি থাকায় সমস্যা হচ্ছে একটু লজ্জাও লাগছে।


আরও খবর



ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বাধা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬৬জন দেখেছেন
Image

গণমাধ্যমের স্বাধীনভাবে কাজ করার ক্ষেত্রে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে বলে জানিয়েছে সম্পাদক পরিষদ। দেশের সাংবাদিকরা কাজ করতে গিয়ে ডিজিটাল মাধ্যমে যে আক্রমণ ও বাধার মুখোমুখি হচ্ছেন তা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তারা।

মঙ্গলবার (৩ মে) মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে সম্পাদক পরিষদের সভাপতি মাহফুজ আনাম ও সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ উদ্বেগের কথা জানান তারা।

বিবৃতিতে বলা হয়, সম্পাদক পরিষদ মনে করেন ডিজিটাল যুগে বাংলাদেশে সাংবাদিকতা নানা ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। এর মধ্যে যেটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে তা হলো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন। এটি গণমাধ্যমের স্বাধীনভাবে কাজ করার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে। অনেক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে এ আইনে মামলা হয়েছে এবং অনেকে গ্রেফতারও হয়েছেন।

‘শুধু সাংবাদিক নন, বিভিন্ন ক্ষেত্রের অ্যাক্টিভিস্ট, শিল্পী, লেখকরাও এ আইনে মামলার মুখোমুখি হয়েছেন। শুরু থেকেই সম্পাদক পরিষদ এবং সাংবাদিকরা এ আইনের বিষয়ে উদ্বেগ, আপত্তি জানিয়েছেন। কিছুদিন আগে আইনমন্ত্রীও বলেছেন, এ আইনের বিভিন্ন রকম অপব্যবহার হয়েছে এবং তিনি আইনটি সংশোধনের ইঙ্গিত দিয়েছেন। মন্ত্রীর বক্তব্য সম্পাদক পরিষদের উদ্বেগকে যথার্থ বলে প্রমাণ করেছে।’

বিবৃতিতে সম্পাদক পরিষদ জানায়, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ আরও অনেক প্রতিবন্ধকতা ও হুমকি মোকাবিলা করে বাংলাদেশের সাংবাদিকরা তাদের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। ফ্রান্সভিত্তিক সংগঠন রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারসের তৈরি করা ২০২১ সালের বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম সূচকে বিশ্বে ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৫২তম। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস সাংবাদিকদের কাজ করার স্বাধীন ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিতের যে অঙ্গীকার ঊর্ধ্বে তুলে ধরে, সম্পাদক পরিষদ তার সঙ্গী। একই সঙ্গে এ পরিষদ বাংলাদেশের সংবাদিকরা কাজের ক্ষেত্রে ডিজিটাল মাধ্যমে যে আক্রমণ ও বাধার মুখোমুখি হচ্ছেন তা নিয়ে উদ্বিগ্ন।

বিবৃতিতে তারা জানান, আজ ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে বা বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘জার্নালিজম আন্ডার ডিজিটাল সিজ’ বা ‘ডিজিটাল নজরদারিতে সাংবাদিকতা’। ডিজিটাল নজরদারি এবং আক্রমণের মুখে সাংবাদিকতা আজকের দিনে বিশ্বজুড়ে যে হুমকি মোকাবিলা করছে সে বিষয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই এ প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ইউনেস্কোর ডিরেক্টর জেনারেল অড্রে অ্যাজোলে এ দিবস উপলক্ষে বলেছেন, ডিজিটাল যুগের সুযোগ ও ঝুঁকি বিষয়ে আমাদের আরও কাজ করতে হবে। সাংবাদিকতা ও সাংবাদিকদের রক্ষা করবে এমন একটি ডিজিটাল ব্যবস্থার রূপরেখা তৈরির জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তারা বলছেন, ইউনেস্কোর ‘থ্রেটস দ্যাট সাইলেন্স: ট্রেন্ডস ইন দ্য সেফটি অব জার্নালিজম’ শীর্ষক পেপার থেকে দেখা যায়, দুনিয়াজুড়ে ডিজিটাল নজরদারি ও হ্যাকিং সাংবাদিকতাকে বিপদগ্রস্ত করছে। ডিজিটাল নজরদারি সাংবাদিকের সংগ্রহ করা তথ্যকে প্রকাশ করে দিতে পারে। এতে তার সোর্সের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে। এমন নজরদারি সাংবাদিকের ব্যক্তিগত তথ্যকে উন্মুক্ত করে দিতে পারে, যা তার নিরাপত্তাকে বিঘ্নিত করবে। এ পেপারে উল্লেখ করা হয়েছে, বিশ্বজুড়ে অনলাইনে নিগ্রহ, নজরদারি, হ্যাকিংয়ের মতো ডিজিটাল অস্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে সাংবাদিকের নিরাপত্তা ও পেশাগত স্বাধীনতা বিঘ্নিত করা হচ্ছে। রাষ্ট্র এবং নন-স্টেট প্রতিষ্ঠান উভয়ই সাংবাদিকদের চাপে ফেলতে এসব ডিজিটাল কৌশল ব্যবহার করছে। বিশ্বিজুড়ে সাংবাদিকদের ওপর ডিজিটাল হুমকির ঘটনা বাড়ছে। বিভিন্ন রাষ্ট্রে নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক ডিজিটাল নজরদারির পরিধি বৃদ্ধি স্বাধীন সাংবাদিকতাকে বাধাগ্রস্ত করছে। করোনা মহামারিকাল থেকে সাংবাদিকতায় ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার বেড়েছে। এ কারণে ডিজিটাল হুমকি থেকে সাংবাদিকদের সুরক্ষা আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।


আরও খবর



রান্নায় লবণ বেশি হওয়ায় স্ত্রীকে ন্যাড়া করে দিলেন স্বামী!

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৪জন দেখেছেন
Image

স্ত্রীর বানানো খাবারের স্বাদ ভালো লাগেনি স্বামীর। তরকারিতে নাকি অতিরিক্ত লবণ হয়েছে। রান্না খারাপ করার শাস্তি হিসেবে স্ত্রীর ওপর নারকীয় অত্যাচার চালালো স্বামী। স্ত্রীর মাথা কামিয়ে দেয় সে। এমনকি লাঠি দিয়ে ওই নারীকে বেধড়ক মারধরও করা হয়। গুজরাটের আহমেদাবাদে ঘটনাটি ঘটে ৮ মে। কিন্তু স্বামীর অত্যাচারের ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখেন স্ত্রী। অবশেষে ভয় কাটিয়ে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। খবর দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

জানা গেছে আহমেদাবাদের ইনসানিয়ৎ নগরের বাসিন্দা ইমরান শেখ। পেশায় রাজমিস্ত্রী। তার স্ত্রী রিজভানা। ইমরানের স্ত্রীর অভিযোগ, দুপুর ২টার দিকে কাজ থেকে বাড়ি ফিরে খেতে বসেছিল তার স্বামী। তরকারির স্বাদ ভাল না লাগায় অকথ্য গালিগালাজ করতে শুরু করে। এরপর প্রতিবাদ করেন রিজভানা।

এমনকি অন্য তরকারি রেঁধে দেওয়ার প্রস্তাবও দেন তিনি। কিন্তু তাতেও কান দেয়নি ইমরান। গালিগালাজ চালিয়ে যেতে থাকেন। পরে লাঠি দিয়ে মারধরও শুরু করে। সেই সময় পুলিশকে ফোন করার হুমকি দেন রিজভানা। এতেই হিতে বিপরীত হয়।

মারধরের এক পর্যায়ে স্ত্রীর মাথার চুল কেটে দেয় ইমরান। বারবার অনুরোধ করেও কোনো লাভ হয়নি। উল্টো মারধর বেড়ে যায়। রিজভানার চিৎকার শুনে ছুটে আসে প্রতিবেশীরা। কোনো রকম ইমরানের হাত থেকে রিজভানাকে রক্ষা করেন তারা।

পাশাপাশি রিজভানাকে পুলিশের কাছে যাওয়ারও পরামর্শ দেন। কিন্ত স্বামীর ভয়ে সে থানায় যেতে পারেনি। অবশেষে সাহস নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন রিজভানা। এরই মধ্যে অভিযোগেরভিত্তিতে ইমরানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আদালতেও পাঠানো হয়েছে তাকে।


আরও খবর



আশুগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে দুজন নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৪৫জন দেখেছেন
Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে পৃথক দুটি ঘটনায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (১০ মে) সকালে উপজেলার আলমগর ও যাত্রাপুর এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে একজনের নাম কাইয়ূম (৫৫) বলে জানা গেছে। তার বাড়ি সিলেটের জগন্নাথপুরে। অপর নিহতের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক সালাউদ্দিন খান নোমান জাগো নিউজকে জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে যাত্রাপুর এলাকায় রেললাইন পারাপার হতে গিয়ে চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতি ট্রেনে কাটা পড়ে ২৫ বছরের এক অজ্ঞাত যুবক নিহত হন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আলমনগর এলাকায় একইভাবে ট্রেনে কাটা পড়ে কাইয়ূম নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তাদের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হচ্ছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



আজকের কৌতুক: স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়ার পরিণাম

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়ার পরিণাম
ভাঙা নাক আর ছেঁড়া ঠোঁটওয়ালা এক বক্সার গেছেন চোখের ডাক্তার দেখাতে—
ডাক্তার: ধারণা করছি, আপনি মাঝেমধ্যেই বিপজ্জনক কোনো খেলায় অংশ নেন!
বক্সার: জ্বি, মাঝেমধ্যেই স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া বাঁধিয়ে ফেলি।

****

হারমোনিয়াম আর বন্দুকের দোকান দিয়েছে আলিফ। দোকানে একদিন হাজির বন্ধু সুজন—
সুজন: কিরে, তুই তো দুইটা দুই প্রান্তের জিনিসের দোকান খুলেছিস! বিক্রি-টিক্রি হয়?
আলিফ: হয় মানে? বলিস কী? দুটোই সমানতালে বিক্রি হয়!
সুজন: কীভাবে?
আলিফ: কেউ হারমোনিয়াম কিনলেই ক’দিন বাদে তার প্রতিবেশী আসে বন্দুক কিনতে!

****

স্বামী তার গর্ভবতী স্ত্রীর খোঁজ নেওয়ার জন্য হাসপাতালে ফোন করবে। কিন্তু সে ভুলে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফোন করে জিজ্ঞেস করলো—
স্বামী: এখন অবস্থা কেমন?
উত্তর: অবস্থা ভালোই। ৩ জন আউট হইছে। আর আশা করি বাকি ৭ জন লাঞ্চের পরে আউট হবে।


আরও খবর