Logo
শিরোনাম

জুমার দিনের মর্যাদাপূর্ণ আমল ও প্রস্তুতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
Image

গরিবের হজের দিন জুমা। সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিনও এটি। জুমার নামাজের প্রস্তুতিতে করণীয় ও গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত বর্ণনা করেছেন নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। এ দিনের গুরুত্বপূর্ণ করণীয় ও ফজিলতপূর্ণ আমলগুলো তুলে ধরা হলো-

জুমার দিন যা করবেন
১. জুমার দিন মসজিদে যাওয়ার আগে গোসল করা;
২. উত্তম পোশাক পরা;
৩. সুগন্ধি ব্যবহার করা;
৪. জুমার নামাজ আদায়ের জন্য মসিজদে যাওয়া;

৫. মসজিদে কাউকে অতিক্রম করে বা ঘাড় টপকিয়ে সামনে না যাওয়া;
৬. যেখানে জায়গা পাবেন সেখানেই বসে যাওয়া;
৭. মনোযোগ সহকারে ইমামের খুতবা বা বক্তব্য শোনা;

৮. খুতবা বা বক্তব্য চলাকালীন সময়ে নীরবতা পালন করা;
৯. বিশেষ করে ছানি (দ্বিতীয়) খুতবায় ইমামের সঙ্গে দোয়ার সময় ‘আমিন’, ‘আমিন’ বলা;
১০. জুমার দিন নামাজের আগে ‘সুরা কাহফ’ পুরোপুরি তেলাওয়াত করা। সম্ভব না হলে দিনের যে কোনো সময় তেলাওয়াত করা।

১১. জুমার নামাজের আগেই চুল, গোফ, নখ কেটে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন হওয়া।
১২. জুমার দিন আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত মসজিদে অবস্থান করা।
১৩. বেশি বেশি দরূদ শরিফ পাঠ করা।
জুমার দিনের গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত
যারা এ কাজগুলো সুন্দরভাবে পালন করবে, তাদের এক জুমা থেকে অপর জুমা পর্যন্ত যাবতীয় গোনাহের কাফফার হয়ে যাবে। হাদিসের একাধিক বর্ণনায় জুমার দিনের ফজিলত ও মর্যাদা ওঠে এসেছে-
১. হজরত ইবনু আওস আস সাক্বাফি রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি, যে ব্যক্তি জুমার দিন গোসল করবে এবং (স্ত্রীকেও) গোসল করাবে, ভোরে ঘুম থেকে উঠবে এবং অন্যকে ঘুম থেকে উঠাবে; জুমার জন্য বাহনে চড়ে নয়, বরং পায়ে হেঁটে মসজিদে যাবে এবং কোনোরূপ অনর্থক কথা না বলে ইমামের নিকটে বসে খুতবা শুনবে; তার (মসজিদে যাওয়ার) প্রতি পদক্ষেপ সুন্নাত হিসেবে গণ্য হবে। আর প্রতিটি পদক্ষেপের বিনিময় সে এক বছর যাবত সিয়াম পালন ও রাতভর নামাজ আদায়ের (সমান) প্রতিদান পাবে। (আবু দাউদ, ইবনু মাজাহ, তিরমিজি)

২. হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি জুমার দিন জানাবাতের (অপবিত্রতার) গোসলের ন্যায় (ভালোভাবে) গোসল করে সর্ব প্রথম জুমার নামাজের জন্য মসজিদে চলে আসবে, সে একটি উট কুরবানির ছওয়াব পাবে।
আর যে ব্যক্তি তার পরে আসবে, সে একটি গাভি কুরবানির ছওয়াব পাবে।
তার পর তৃতীয় নম্বরে যে আসবে সে একটি ছাগল কুরবানির ছওয়াব পাবে।
তারপর চতুর্থ নম্বরে যে আসবে সে একটি মুরগি কুরবানির ছওয়াব পাবে।
তারপর পঞ্চম নম্বরে যে আসবে সে আল্লাহর পথে একটি ডিম সাদক্বাহ করার ছওয়াব পাবে।
অতঃপর ইমাম যখন খুতবা দেয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়ে আসেন তখন মালিয়া তথা ফিরিশতারা খুতবা শোনার জন্য উপস্থিত হন।’

৩. হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, ‘আরো তিন দিনের গোনাহ কাফফার হয়ে যাবে। কেননা নেক কাজের ছওয়াব দশগুণ হয়।’

৪. হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, জুমার দিনে এমন একটি সময় রয়েছে, যে সময়টি কোনো মুসলিম বান্দা যদি নামাজে দাঁড়িয়ে আল্লাহর কাছে কিছু প্রার্থনা করে, তবে অবশ্যই তিনি তাকে (চাহিদা মোতাবেক) দান করেন। তিনি (রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তার হাত দ্বারা ইঙ্গিত করে বুঝিয়ে দিলেন যে, সেই সময়টিই খুবই সংক্ষিপ্ত। (বুখারি)
৫. কোনো কোনো বর্ণনায় এসেছে, সেই সময়টি আসরের পর থেকে সূর্যাস্তের মধ্যে।
৬. কোনো কোনো বর্ণনায় রয়েছে, ইমামের বসা থেকে নামাজ শেষ করার মধ্যবর্তী সময়ের মধ্যে সেই সময়টি রয়েছে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে জুমার দিনের করণীয় কাজগুলো যথাযথ পালনের মাধ্যমে জুমার উল্লেখিতি ফজিলতগুলো লাভ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



মোবাইল অপারেটরদের কাছে বকেয়া ১৩ হাজার কোটি টাকা: মোস্তাফা জব্বার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩৫জন দেখেছেন
Image

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, দেশের মোবাইল অপারেটরদের কাছে সরকারের বকেয়ার পরিমাণ ১৩ হাজার ৬৮ কোটি ২৫ লাখ ৯৩৪ টাকা। এর মধ্যে শুধু গ্রামীণফোনের কাছেই বকেয়ার পরিমাণ ১০ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৪ লাখ ৭৬ হাজার ১৩৫ টাকা।

মঙ্গলবার (৭ জুন) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেনের (বাবলা) এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, গ্রামীণফোনের অডিট আপত্তির টাকার পরিমাণ ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৪ লাখ ৭৬ হাজার ১৩৫ টাকা। এর মধ্যে কোম্পানিটি পরিশোধ করেছে মাত্র দুই হাজার কোটি টাকা।

অন্যদিকে, রাষ্ট্রায়ত্ব মোবাইল অপারেটর টেলিটকের কাছে সরকারের পাওনা এক হাজার ৬৩১ কোটি ১৭ লাখ টাকা। তাদের বকেয়ার মধ্যে ত্রি-জি স্পেকট্রাম অ্যাসাইনমেন্ট ফি বাবদ এক হাজার ৫৮৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা ইক্যুইটিতে কনভার্সনের ব্যবস্থা করতে অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, রবি আজিয়াটার অডিট আপত্তি ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ ৯১ হাজার ৪৭৬ টাকা। এর মধ্যে ১৩৮ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে তারা। বর্তমানে কোম্পানিটির বকেয়ার পরিমাণ ৭২৯ কোটি ২৩ লাখ ৯১ হাজার ৪৭৬ টাকা।

এছাড়া প্যাসিফিক বাংলাদেশ টেলিকমের (সিটিসেল) বকেয়া ১২৮ কোটি ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৩২৩ টাকা। এ সময় গ্রামীন ব্যাংক, রবি ও সিটিসেলের বকেয়া নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান বলেও জানান মন্ত্রী।

মোবাইল গ্রাহক ছিলো আট কোটি ৬৬ লাখ

আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম বাবুর অপর এক প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা জব্বার জানান, ২০১২ সালে দেশে মোবাইল গ্রাহক ছিলো আট কোটি ৬৬ লাখ। ২০২২ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৮ কোটি ৩৪ লাখে। ওই সময় দেশে ত্রি-জি ও ফোর-জি সেবা ছিলো না। বর্তমানে ত্রি-জি গ্রাহক তিন কোটি ১৯ লাখ এবং ফোর-জি সাত কোটি ৫৪ লাখ।

ইন্টারনেটের গ্রাহক ১২ কোটি ৪২ লাখ

মন্ত্রী আরও জানান, ২০১২ সালে ইন্টারনেট গ্রাহক ছিলো দুই কোটি ৮৯ লাখ। আর চলতি বছর সেটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ কোটি ৪২ লাখে। ২০১২ সালে দেশে টেলিডেনসিটি ছিলো ৬০ দশমিক নয় শতাংশ। এখন টেলিডেনসিটি ১০৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ। এছাড়া ২০১২ সালে দেশে ইন্টারনেট ডেনসিটি ছিলো ১৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ। আর এখন সেটা বেড়ে হয়েছে ৭১ দশমিক ৫৭ শতাংশ।


আরও খবর



সাক্কুর হ্যাটট্রিক নাকি নতুন মুখ

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image

রাত পোহালেই কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন (কুসিক)। বুধবার (১৫ জুন) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। শেষ হবে বিকেল ৪টায়। এবার কুমিল্লা সিটির ২৭টি ওয়ার্ডে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হবে।

এদিকে কুসিক নির্বাচন ঘিরে সবার দৃষ্টি এখন সেখানে। যে কোনো নির্বাচনের তুলনায় বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে আবার আউয়াল কমিশনের অধীনে বড় কোনো নির্বাচন এটি। তাই এই নির্বাচনে কোনো ধরনের ফাঁক রাখতে চাচ্ছে না নির্বাচন কমিশন।

এরপরও ক্ষমতাসীন দলের মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোটকক্ষে পেশিশক্তি প্রদর্শনের শঙ্কা করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীও সদ্য সাবেক মেয়রের বিরুদ্ধে কালো টাকা বিতরণের অভিযোগ করেছেন।

এবার নির্বাচনে পাঁচজন মেয়রপ্রার্থী রয়েছেন। তবে মূল লড়াইটা হবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত ও বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত সদ্য সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু এবং নিজাম উদ্দিন কায়সারে মধ্যে। আর সাক্কু তো গত দুই মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। বাকি দুজন প্রথমবারের মতো লড়াই করছেন। ফলে কুমিল্লাবাসীর মুখে এখন প্রশ্ন- সাক্কুর হ্যাটট্রিক নাকি নতুন মুখের অভিষেক।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সব কিছুই করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা ও পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট তৎপর। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো শঙ্কার কারণ নেই।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর রয়েছে। দায়িত্বে কেউ গাফিলতি ও অনিয়ম করলে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রত্যেক পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

তিনি জানান, কুসিক নির্বাচনে তিন হাজার ৬০৮ জন পুলিশ সদস্য মাঠে থাকবেন। সাধারণ ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে থাকবেন যথাক্রমে ১৫ ও ১৬ জন করে পুলিশ। এছাড়া আনসারসহ গ্রাম পুলিশের সদস্যরাও থাকবেন।

আর পুলিশের মোবাইল ফোর্স থাকবে ২৭টি, প্রতি ওয়ার্ডে একটি। স্ট্রাইকিং ফোর্স নয়টি। রিজার্ভ ফোর্স দুটি। আর বিজিবি মোতায়েন করা হবে ১২ প্লাটুন, র‌্যাবের ২৭টি টিম থাকবে। এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাচনী ম্যাজিস্ট্রেট ও নয়জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন।

ভোটগ্রহণ কাজে নিয়োজিত থাকবেন দুই হাজার ৫৬০ জন কর্মকর্তা। তাদের মধ্যে প্রিসাইডিং অফিসার ৬৪০ জন, পোলিং অফিসার ১২৮০ জন এবং সহকারী পোলিং অফিসার ৬৪০ জন।

এদিকে এরই মধ্যে কুমিল্লা সিটির বিভিন্ন পয়েন্টে ৭৫টি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। কেন্দ্রের বাইরে-ভেতরে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা।

রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবার নির্বাচনে মোট ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২, পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর দুজন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার।

মোট ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ হবে। মেয়র ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী হয়েছেন।


আরও খবর



বিস্ফোরণ আতঙ্কে এলাকা ছেড়েছে শিশুরা

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৪জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনার পর থেকে আতঙ্কে আছেন স্থানীয় লোকজন। আবার বিস্ফোরণ হতে পারে—এ আতঙ্কে অনেকেই এলাকা ছাড়ছেন। বিস্ফোরণ আতঙ্কে শিশুদের অন্যত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন স্থানীয়রা।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সোমবার (৬ জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। ঘটনার প্রায় ৪৫ ঘণ্টা পরও ডিপোর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে না আসায় আতঙ্ক ঘিরে ধরেছে তাদের। বিএম কনটেইনার ডিপোর আশপাশের গ্রামগুলো ঘুরে এ চিত্র দেখা যায়।

বিএম কনটেইনার ডিপোর পাশের গ্রাম কেশবপুর। এ গ্রামে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিস্ফোরণের পর থেকে তারা ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া, ঘুম ও নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজ করতে পারছেন না। আবারও বিস্ফোরণ হতে পারে এমন আতঙ্কে শিশুদের অন্যত্র আত্মীদের বাসায় পাঠিয়ে দিয়েছেন।

কেশবপুর গ্রামের মালাপড়ার বাসিন্দা সত্তরোর্ধ্ব আলী। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, আমি এশার নামাজ পড়ে ঘরে ফিয়েছি। হঠাৎ বোমার মতো শব্দ। মুক্তিযুদ্ধের সময়ও এমন বোমার আওয়াজ শুনিনি। বিস্ফোরণের শব্দের পর গ্রামবাসী দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকে।বিস্ফোরণের শব্দে ঘুমান্ত ছেলে-মেয়েরা ভয়ে জেগে ওঠে। বিস্ফোরণের শব্দে ভয়ে কেঁদে ওঠে আশপাশের বাড়ির শিশুরা। ঘটনার রাতে আমাদের কারো ঘুম হয়নি। এমনকি রোববার (৫ জুন) রাতেও ঘুম হয়নি।

তিনি বলেন, আবারও বিস্ফোরণ হতে পারে ছোট ছেলে-মেয়েদের অন্য গ্রামে আত্মীর বাসায় পাঠিয়ে দিয়েছে।

বিএম কনটেইনার ডিপোর উত্তরপাশে বাড়ি এনামুল হকের। তিনি বলেন, বিস্ফোরণ আতঙ্কে তিন ছেলে-মেয়েকে পাশের এলাকায় বোনের বাসায় পাঠিয়ে দিয়েছি।

ঘটনার রাতের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, আমার বাচ্চারা জানালার পাশে ঘুমাচ্ছিল। বিস্ফোরণের শব্দে জানালার গ্লাসগুলো ভেঙে গেছে। এক বাচ্চার শরীরে কেটে যায়। ভরে ওই রাতে আর ঘুম হয়নি কারো। এ কারণে রোববার ছেলে-মেয়েদের বোনের বাসায় পাঠিয়ে দিয়েছি।

পাশের বাড়ির সালেহা বেগম বলেন, বিস্ফোরণের পর থেকে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া আমার মেয়ে বার বার আতকে উঠছে। ভালোমতো ঘুমও হয় না ওর। ভয়ে দু’দিন ধরে স্কুলেও যাচ্ছে না।

এর আগে শনিবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কনটেইনারে একের পর এক বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহুদূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে।

অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ এ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জনে দাঁড়িয়েছে। তবে জেলা প্রশাসনের তথ্যমতে, মৃতের সংখ্যা ৪৬ জন। দগ্ধ ও আহত ১৬৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাতেই শনাক্ত হওয়া নিহতদের জেলা প্রশাসনের সহায়তায় পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াস হোসেন চৌধুরী জানান, নিহতদের মধ্যে ডিপোর শ্রমিকদের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যও রয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।


আরও খবর



আহমদ ছফার জন্ম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

৩০ জুন ২০২২, বৃহস্পতিবার। ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা
১৭৫৭- বাংলার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা ত্রিশ হাজার সেনা নিয়ে ইংরেজ অধিকৃত কোলকাতা দখল করেন।
১৭৫৭- নবাব সিরাজউদ্দৌলার পত্নী ও কন্যাসহ পালিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে রাজমহলে রাত কাটাতে গিয়ে তিনি ধরা পড়েন।
১৮৫৫- ব্রিটিশবিরোধী সাঁওতাল বিদ্রোহ সংঘটিত হয়।
১৯৭১- মুক্তিযোদ্ধারা তিনটি দলে বিভক্ত হয়ে নীলমনিগঞ্জ, হালসা ও আলমডাঙ্গা রেললাইন বিষ্ফোরকের সাহায্যে উড়িয়ে দিয়ে পাকসেনাদের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
২০১১- বাংলাদেশ সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী পাশ হয়।

জন্ম
১৯৩৯- মেক্সিকোর তরুণ প্রজন্মের শীর্ষসারির কবি, উপন্যাসিক, নাট্যকার, ছোটগল্পকার, অনুবাদক ও প্রাবন্ধিক হোসে এমিলিও পাচেকো।
১৯৪৩- বাংলাদেশি লেখক, চিন্তক ও ঔপন্যাসিক আহমদ ছফা। চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার হাশিমপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া গ্রামে জন্ম তার। জাতীয় অধ্যাপক আব্দুর রাজ্জাক ও সলিমুল্লাহ খানসহ আরও অনেকের মতে, মীর মশাররফ হোসেন ও কাজী নজরুল ইসলামের পরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাঙালি মুসলমান লেখক হলেন আহমদ ছফা। তার লেখায় বাংলাদেশি জাতিসত্তার পরিচয় নির্ধারণ প্রাধান্য পেয়েছে। ১৯৯৩ সালে বাংলা একাডেমির সাদত আলী আখন্দ পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। ২০০২ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে সাহিত্যে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করেন।
১৯৮৫- মার্কিন সাঁতারু এবং ২৩ টি অলিম্পিক স্বর্ণ পদক বিজয়ী মাইকেল ফেলপস।

মৃত্যু
১৭১৭- বাংলার প্রথম নবাব মুর্শিদকুলি খাঁ।
১৯৫৯- খ্যাতনামা বাঙালি অভিনেতা ও নাট্যাচার্য শিশিরকুমার ভাদুড়ী।
১৯৬২- তিনি ছিলেন বিদ্রোহী কবি কাজি নজরুল ইসলামের পত্নী প্রমীলা নজরুল।
১৯৭৪- তিনি ছিলেন মার্টিন লুথার কিং এর মা এ্যালবার্ট কিং।

দিবস
আন্তর্জাতিক রবীন্দ্রকাব্যপাঠ দিবস।


আরও খবর



মোংলায় ড্রেজারের হাউস বোট উল্টে নিরাপত্তাকর্মী নিখোঁজ

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

বাগেরহাটের মোংলায় হাউস বোট উল্টে খাজা মঈন উদ্দিন নামের এক নিরাপত্তা কর্মী নিখোঁজ হয়েছেন। রোববার (১২ জুন) দুপুরে বঙ্গবন্ধু মোংলা-ঘাষিয়াখালী আন্তর্জাতিক ক্যানেলের উলুবুনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিআইডব্লিউটিএর উপ-সহকারী প্রকৌশলী (ড্রেজার বিভাগ) মো. আনিসুজ্জামান জানান, দুপুরে ক্যানেলটিতে খনন কাজে নিয়োজিত কনফিডেন্স গ্রুপের দ্বিতল একটি হাউস বোট উলুবুনিয়া এলাকায় অবস্থান করছিলো। ওই ক্যানেল দিয়ে দ্রুত গতিতে পর পর যাওয়া দুইটি ওয়েল ট্যাংকারের গেলে ঢেউয়ে হাউস বোটটি উল্টে যায়। বোটে থাকা ১৫-১৬ স্টাফ তাৎক্ষণিক বেরিয়ে নদীতে লাফিয়ে পড়েন। পরে তারা সাঁতরে কুলে উঠে প্রাণে রক্ষা পান। কিন্তু সিকিউরিটি গার্ড খাজা মঈন উদ্দিন বের হয়েও মোবাইলের জন্য পরে আবার ভেতরে প্রবেশ করেন। এরপর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

আনিসুজ্জামান আরও বলেন, নিখোঁজ সিকিউরিটি গার্ড মঈন উদ্দিনের সন্ধানে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা দুপুর দেড়টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এছাড়া খুলনা ফায়ার সার্ভিসের ডুবরি দলও ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, হাউস বোট উল্টে মূল ক্যানেলের বাইরে আংশিক ডুবন্ত অবস্থায় রয়েছে। তবে নৌচলাচলে কোনো ধরনের সমস্যা হচ্ছে না।


আরও খবর