Logo
শিরোনাম

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় ইমরান খানকে দুষছেন শাহবাজ

প্রকাশিত:শনিবার ২৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩৪৪জন দেখেছেন
Image

দেশকে দেউলিয়াত্বের হাত থেকে বাঁচাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর জন্য তার সরকারের পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি ছিল বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। শুক্রবার (২৭ মে) এক ভাষণে শাহবাজ এমন পরিস্থিতির জন্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকেই দায়ী করেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) পাকিস্তানে পেট্রল ও ডিজেলের দাম ৩০ রুপি করে বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বর্তমান সরকার। ফলে পাকিস্তানের ইতিহাসে এক ধাক্কায় পেট্রল-ডিজেলের সর্বোচ্চ দাম বাড়ার নজির তৈরি হলো। সরকারের ঘোষিত বর্ধিত দাম ২৭ মে থেকে কার্যকরও হয়।

pak3

জানা গেছে, পাকিস্তানে প্রতিলিটার পেট্রল এখন ১৭৯ দশমিক ৮৬ রুপি, ডিজেল ১৭৪ দশমিক ১৫ রুপি, কেরোসিন লিটারপ্রতি ১৫৫ দশমিক ৫৬ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে।

গত মাসে ক্ষমতা গ্রহণের পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া প্রথম ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ অধিকাংশ সময় ঘরোয়া সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

ইন্টারন্যাশনাল মনিটরি ফান্ড (আইএমএফ) থেকে একটি সহায়তা প্যাকেজ পেতে পেট্রোলিয়ামের দাম বাড়ানোর পরে ত্রাণ তৎপরতা শাহবাজ সরকারের প্রধান গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি দাবি করে বলেন, দেশকে দেউলিয়া হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

pak3

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কঠিন অর্থনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শাহবাজ বলেন, বিগত সরকার ভর্তুকি ঘোষণা করেছিল কিন্তু সেটি কোষাগার থেকে সমর্থন পায়নি। সেকারণে দেশের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি প্রশমিত করার জন্য প্রতিমাসে ২৮ বিলিয়ন রুপির ত্রাণ সহায়তা প্যাকেজের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ। এই ত্রাণ এক কোটি ৪০ লাখ পরিবারের মধ্যে বিতরণ করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ ইমরান খানকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আপনি আইএমএফের সঙ্গে চুক্তি করেছেন, আমরা নয়; আপনি তাদের কঠিন শর্ত মেনে নিয়েছেন, আমরা নয়; আপনি মুদ্রাস্ফীতির বোঝা জনগণের ওপর চাপিয়েছেন, আমরা নয়; আপনি দেশকে অর্থনৈতিক গোলযোগের দিকে ঠেলে দিয়েছেন, আমরা নয়...’।

এর আগে পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়ানোয় শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বাধীন সরকারের তীব্র নিন্দা জানান সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন, ‘জাতি এই বদমাশদের হাতে মুদ্রাস্ফীতির আরেকটি বড় মাত্রা ধাক্কা খাবে’।

সূত্র: পিটিআই, এনডিটিভি


আরও খবর



একদিনেই ঘুরে আসুন পারকি সমুদ্রসৈকতে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২০জন দেখেছেন
Image

মাজহারুল ইসলাম শামীম

পারকি সমুদ্রসৈকতের নাম হয়তো অনেকেরই অজানা। পারকি সমুদ্রসৈকত বা পারকি সৈকত বাংলাদেশের চট্টগ্রাম শহর থেকে ২০ কিলোমিটার দক্ষিণে আনোয়ারা উপজেলায় অবস্থিত ১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সমুদ্র সৈকত।

চট্টগ্রামের নেভাল একাডেমি কিংবা বিমানবন্দর এলাকা থেকে কর্ণফুলী নদী পেরোলেই পারকি চর পড়ে। এক সময় সমুদ্র সৈকত বলতে শুধু কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত বোঝানো হলেও ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হচ্ছে এই পারকি সমুদ্র সৈকতও।

২০২১ সালের মার্চের ২১ তারিখে আমরা ৩ বন্ধু মিলে পরিকল্পনা করি পারকি সমুদ্র সৈকতে যাওয়ার। অবশেষে রওনা দিলাম পারকি সমুদ্র সৈকতের উদ্দেশ্যে। চট্টগ্রাম শহর থেকে মাত্র এক থেকে দেড় ঘণ্টার পথ দূরত্বে এই সুন্দর সমুদ্র সৈকতটি অবস্থিত। একদিকে সারি সারি ঝাউবনের সবুজের সমারোহ, আরেকদিকে নীলাভ সমুদ্রের বিস্তৃত জলরাশি আপনাকে স্বাগত জানাবে।

একদিনেই ঘুরে আসুন পারকি সমুদ্র সৈকতে

আর সমুদ্র তীরের মৃদুমন্দ বাতাস আপনার মনকে আনন্দে পরিপূর্ণ করে দেবে নিমেষেই। পারকি সমুদ্র সৈকতে যাওয়ার পথে দেখা মিলে অন্যরকম এক দৃশ্য। আঁকা-বাকা পথ ধরে ছোট ছোট পাহাড়ের দেখা মেলে। পারকি সৈকতে যাওয়ার পথে কর্ণফুলী নদীর উপর প্রমোদতরীর আদলে নির্মিত নতুন ঝুলন্ত ব্রিজ চোখে পড়বে।

বিচে ঢোকার পথে সরু রাস্তার দু’পাশে আছে সারি সারি গাছ, সবুজ প্রান্তর আর মাছের ঘের। এই সৈকতেও কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের মতো অসংখ্য ঝাউ গাছ আর ঝাউবন দেখতে পাবেন। ঝাউবন ঘেঁষে উত্তর দিক বরাবর হেঁটে গেলে দেখতে পাবেন বঙ্গোপসাগর ও কর্ণফুলী নদীর মোহনা।

আমাদের ভ্রমণের প্রথম ধাপ শুরু হয় ফেনী জেলার মহীপাল নামক স্থান থেকে। আমরা প্রথমে চট্টগ্রামগামী বাস স্টার লাইনে উঠলাম। তারপর বাস আমাদের কে চট্টগ্রামের বাস স্টেশন অলংকার নামক স্থানে নামিয়ে দেয়। তারপর আমরা সিএনজি যোগে চট্টগ্রাম শাহ আমানত সেতু বা তৃতীয় কর্ণফুলী সেতু পর্যন্ত গেলাম। সেখানে গিয়ে একটু বিশ্রাম নিতে নিতে কর্ণফুলী টানেলের দৃশ্যটা দেখলাম।

এরপর বটতলী মোহসেন আউলিয়ার মাজারের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া একটি বাসে উঠলাম। তবে আপনারা যারা নতুন যাবেন, অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন বাস কন্ডাক্টরের ‘বৈলতলী” উচ্চারণের সঙ্গে ‘বটতলী’কে গুলিয়ে না ফেলেন। দুটি কিন্তু দুই জায়গা। পারকি বিচে যেতে হলে আপনাকে বটতলী মোহসেন আউলিয়া মাজারগামী বাসে উঠতে হবে। প্রাচীন এই মাজারটি চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় অবস্থিত।

একদিনেই ঘুরে আসুন পারকি সমুদ্র সৈকতে

বাসে উঠে কন্ডাকটরকে বললাম আমাদেরকে যেন ‘সেন্টার’ নামক স্থানে নামিয়ে দেওয়া হয়। স্থানটির প্রকৃত নাম হলো মালখান বাজার। তবে এটি সেন্টার নামেই পরিচিত। এ স্থান পর্যন্ত আসতে বাসে জনপ্রতি ২৫-৩০ টাকা করে খরচ হয়। সেন্টারে নেমে বিচে যাওয়ার জন্য অনেকগুলো সিএনজি চোখে পড়বে।

সেখান থেকেই আমরা ১৫০ টাকা রিজার্ভে একটি সিএনজি ভাড়া করলাম। সিএনজি আমাদেরকে পৌঁছে দিলো পারকি সমুদ্র সৈকতে। বিচে যাওয়ার আগে খাবারসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিস সেন্টার বাজার কিংবা কিছুটা দূরেই চট্টগ্রাম ইউরিয়া ফার্টিলাইজার হাউজিং কলোনি সংলগ্ন বাজার থেকে কিনে নিলাম আমরা।

কারণ সমুদ্র সৈকতের আশপাশে সব জিনিসপত্রের দামই বেশি থাকে। তাছাড়া বিচের বিভিন্ন দোকানে সবকিছু নাও পেতে পারেন। তাই বাজার থেকে কিনেই সঙ্গে নিয়ে যান। সৈকতে পৌঁছেই প্রথমে চোখে পড়বে সারি সারি ঝাউগাছ। চারপাশে সবুজের সমারোহ। সৈকতের পাশে একটা বড় পুকুর আছে।

পুকুরের চারপাশে পার্কের মতো বিভিন্ন খেলাধুলার ব্যবস্থা রাখা আছে। এরপরই ডে দৃশ্য পড়বে তা হলো একটা বিশাল আকৃতির জাহাজ আটকে আছে সৈকতে বালুর মধ্যে। এটি সম্ভবত ২০১৭ সালে ঘূর্ণিঝড়ের সময় পানির স্রোতের কারণে সমুদ্র সৈকতের একদম উপরে চলে আসে। যা আর পরে পানি নেমে যাওয়াতে সাগরে নামানো সম্ভব হয়নি।

একদিনেই ঘুরে আসুন পারকি সমুদ্র সৈকতে

আজও জাহাজটি একইভাবে আটকে আছে সমুদ্র সৈকতে। যা এই সৈকতের সৌন্দর্য কিছুটা হলেও নষ্ট করছে। জাহাজের ফলে সৈকতের অনেক বালু সরে যাচ্ছে। সৈকতে পৌঁছানোর কিছুক্ষন পর আমরা পোশাক পরিবর্তন করে সৈকতে নামলাম। তবে পানি বালি ও কাদাময় হওয়ায় গোসল করা হলো না আমাদের। পানিতে নেমে সমুদ্রের ঢেউগুলো উপভোগ করলাম শুধু।

তবে ঝাউবনের জন্য এই সমুদ্র সৈকতের দৃশ্য বেশ রোমাঞ্চকর বটে। এরপর আমরা জাহাজটির কাছে গেলাম। কিছুক্ষণ জাহাজটির চারপাশ ঘুরে আমরা সৈকতের পানি থেকে উঠে ঝাউবনে পাছের ছায়া তে গিয়ে বিশ্রাম নিলাম। আহ! কি শীতল বাতাস। সঙ্গে সমুদ্রের পানির ঢেউয়ের শব্দ। সব কিছু মিলে অসাধারণ এক মনোরম দৃশ্য।

সবশেষ আমরা সৈকত সংলগ্ন পুকুরের পাশের পার্ক ঘুরে দেখলাম। এরপর বিকেলের শেষ প্রান্তে আমরা আবার সিএনজিতে উঠে গেলাম চট্টগ্রাম শহরের উদ্দেশ্যে। এরপর ফিরতি বাসে উঠে বসলাম। এভাবেই একবুক প্রশান্তি নিয়ে পারকি সমুদ্র সৈকত ভ্রমণ শেষ হলো আমাদের।

লেখক: ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী, ফেনী সরকারি কলেজ।


আরও খবর

পতনের মধ্যেই শেয়ারবাজার

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




১০ হাজার ৮৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ১০ হাজার ৮৫৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (১৪ জুন) ঢাকার শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

একনেক সভা শেষে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, প্রকল্পের মোট ব্যয়ের মধ্যে সরকারের অর্থায়ন ৫ হাজার ১৪২ কোটি ৫৫ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৭৫৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক ঋণ ৪ হাজার ৯৫৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা।


আরও খবর

পতনের মধ্যেই শেয়ারবাজার

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




নির্জন কারাগারে সু চি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত বেসামরিক নেত্রী অং সান সু চিকে গৃহবন্দি অবস্থা থেকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে রাজধানী নেপিডোর একটি নির্জন কারাগারে। তার বিরুদ্ধে করা সব মামলার শুনানিতে এখন সেখান থেকেই অংশ নেবেন তিনি। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) জান্তা সরকারের মুখপাত্র জাও মিন তুন এক বিবৃতিতে সু চিকে কারাগারে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বুধবার থেকে তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে বলে জানান জান্তা সরকারের ওই কর্মকর্তা। এর আগে গত এক বছর ধরে তাকে রাজধানীর অজ্ঞাত স্থানে রাখা হয়েছিল।

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে সামরিক বাহিনী তার নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করার সময় নোবেল জয়ী ৭৭ বছর বয়সী সু চি গ্রেফতার হন। তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি অপরাধের অন্তত ২০টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত হলে সু চির ১৫০ বছরের বেশি কারাদণ্ড হতে পারে। এরই মধ্যে তিনি ১১ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, সু চি ভালো আছেন এবং তাকে সহায়তা করার জন্য কারাগারে তিনজন নারী কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে। তবে তার সঙ্গে পোষা কুকুর বা সহায়তার জন্য কোনো গৃহকর্মীকে রাখার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

সামরিক সরকারের একটি সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছে যে এটি মিয়ানমারের ফৌজদারি আইন অনুযায়ী করা হয়েছে।

মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো সু চির বিরুদ্ধে গোপন বিচারকে প্রতারণা বলে নিন্দা করে আসছে। রুদ্ধদ্বার শুনানি জনসাধারণ ও গণমাধ্যমের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এবং সু চির আইনজীবীদের সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে নিষেধ করা হয়েছে।

অভ্যুত্থানের পর জনসাধারণের দৃষ্টি থেকে আড়াল করে রাখা সু চি কতদিন নির্জন কারাবাসে থাকবেন তা স্পষ্ট নয়।

সূত্র: বিবিসি


আরও খবর



নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চায়ের দোকানে মাইক্রোবাস, নিহত দুই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লার লাকসামে মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে পড়ে দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মাইক্রোবাসের চালকসহ আরও তিনজন আহত হয়েছেন। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সকালে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের পোলাইয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মাইক্রোবাস যাত্রী নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার বাংলাবাজার এলাকার স্কুলশিক্ষক জামাল উদ্দিন (৫২) এবং চা দোকানের কর্মচারী পোলাইয়া এলাকার চান মিয়ার ছেলে জাকির হোসেন (৩৭)।

লাকসাম হাইওয়ে ক্রসিং থানার আইসি কাইয়ুম উদ্দীন চৌধুরী বলেন, মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে তিনজন যাত্রী নিয়ে মাইক্রোবাসটি কুমিল্লা থেকে নোয়াখালী যাচ্ছিল। একপর্যায়ে পোলাইয়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে একটি চায়ের দোকানে ঢুকে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায় মাইক্রোবাসটি। এতে ঘটনাস্থলেই জামাল উদ্দিন ও জাকির হোসেন নিহত হন।

তিনি আরও বলেন, খবর পেয়ে দুর্ঘটনাকবলিত মাইক্রোবাস ও নিহতদের মরদেহ থানায় আনা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর

পতনের মধ্যেই শেয়ারবাজার

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




এআইইউবি অ্যালামনাই সোসাইটির পুনর্মিলনী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশ অ্যালামনাই সোসাইটির (এআইইউবি অ্যালায়েন্স) উদ্যোগে প্রথম এআইইউবি অ্যালামনাই হোমকামিং প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১০ জুন এআইইউবি ক্যাম্পাসে ছিল এই আয়োজন। সোমবার (১৩ জুন) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিপুল সংখ্যক প্রাক্তন শিক্ষার্থী এই মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করেন। যেখানে তারা মতবিনিময় সভা, বিভিন্ন ইনডোর গেমস, আউটডোর গেমস, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ক্যাম্পাস ট্যুর, বিনোদন অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্রসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

jagonews24

ব্যান্ড দল দলছুট ও মিনারের সংগীত পরিবেশনায় শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ অনুষ্ঠানটিকে আনন্দময় করে তোলে। এতে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী এবং র‌্যাফেল ড্রতে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের বিশেষ পুরস্কার দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এআইইউবি’র ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. হাসানুল এ হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. কারমেন জিটা লামাগনা এবং ট্রাস্টি বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মিসেস নাদিয়া আনোয়ার।


আরও খবর

পতনের মধ্যেই শেয়ারবাজার

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২