Logo
শিরোনাম

করোনায় বেশি আক্রান্ত হয়েছে ঢাকার সাংবাদিকরা: সিজিএস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৬৫জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশে কর্মরত সাংবাদিকরা উচ্চহারে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সেন্টার ফর গভর্নেন্স স্টাডিজ (সিজিএস)। এর মধ্যে সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে ঢাকায় কর্মরত সাংবাদিকরা।

মঙ্গলবার (১০ মে) সিজিএস প্রকাশিত বাছাই করা ১০০ জন সাংবাদিকদের ওপর করা এক জরিপে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

জরিপে দেখা যায়, এতে অংশ নেওয়াদের মধ্যে ৩৪ শতাংশ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। আক্রান্তদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের সাংবাদিকরা সবচেয়ে বেশি ৪১ শতাংশ কোভিডে সংক্রমিত হয়েছেন।

জরিপে অংশ নেওয়া সাংবাদিকদের এক তৃতীয়াংশেরও কম ২৭ শতাংশ বাসা থেকে কাজ করেছেন। তাদের মধ্যে ৪৭ শতাংশ সাংবাদিক বাসা থেকে কাজ করার সময় সহকর্মীদের সঙ্গে সঠিকভাবে যোগাযোগ রক্ষা করতে পারেননি। তাদের মধ্যে মাত্র ২৯ শতাংশ সাংবাদিককে তাদের অফিস থেকে প্রয়োজনীয় লজিস্টিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও মোট উত্তরদাতাদের ৪০ শতাংশ সাংবাদিককে বাসা থেকে ও অফিসে সশরীরে উপস্থিত হয়ে দুইভাবেই কাজ করতে হয়েছে। আর অবশিষ্ট ৩৩ শতাংশ সাংবাদিক অফিসে সশরীরে উপস্থিত হয়ে কাজ করেছেন।

জরিপে আরো দেখা যায়, করোনাকালে সাংবাদিকদের আর্থিক অবস্থার ওপর বড় ধরনের প্রভাব এসেছে। উত্তরদাতাদের অধিকাংশই তাদের মহামারির পূর্বের বেতন কাঠামো বজায় রাখতে পারেননি। এর মাঝে ৪০ শতাংশ মহামারিকালে নিয়মিতভাবে সম্পূর্ণ বেতন পেয়েছেন।

এর মধ্যে ৩৬ শতাংশ তাদের মূল বেতনের অর্ধেক বেতন পেয়েছেন। বাকি ২৪ শতাংশ সাংবাদিক মাসিক বেতন পুরোটাই পেয়েছেন কিন্তু অনিয়মিতভাবে। এছাড়া ৪ শতাংশ সাংবাদিক মহামারির কারণে তাদের চাকরি হারিয়েছেন।


আরও খবর



৯ মাসে রেকর্ড বাণিজ্য ঘাটতি

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই-মার্চ) পণ্য বাণিজ্যে সার্বিক ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ২৫ বিলিয়ন বা ২ হাজার ৪৯০ কোটি ৭০ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ (প্রতি ডলার ৮৬ টাকা ৫০ পয়সা) প্রায় ২ লাখ ১৫ হাজার ৩২১ কোটি টাকা। কোনো অর্থবছরে এই পরিমাণ বাণিজ্য ঘাটতির মুখে পড়েনি বাংলাদেশ।

এর ফলে বৈদেশিক লেনদেনের চলতি হিসাবের ভারসাম্যেও (ব্যালান্স অফ পেমেন্ট) বড় ধাক্কা লেগেছে।

খাত সংশ্লিষ্টদের মতে, বিশ্ববাজারে খাদ্যপণ্য, জ্বালানিসহ সব ধরনের পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে বেড়েছে বিপুল বাণিজ্য ঘাটতি।

এর আগে কখনই (প্রায় ২৫ বিলিয়ন বা ২ হাজার ৪৯০ কোটি ৭০ লাখ ডলার) এতো বিপুল পরিমাণ বাণিজ্য ঘাটতি দেখা যায়নি। এর আগে ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১৫ দশমিক ২৮ বিলিয়ন ডলার। একই অর্থবছরের পুরো সময়ে এই ঘাটতির পরিমাণ ছিল ২২ দশমিক ৮০ বিলিয়ন ডলার। সে হিসাবে গত অর্থবছরের পুরো সময়ের চেয়ে চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে বাণিজ্য ঘাটতি ৯ দশমিক ২৫ শতাংশ বেশি। আর গত বছরের একই সময়ের (জুলাই-মার্চ) চেয়ে বেশি প্রায় ৬৪ শতাংশ বেশি এবারের বাণিজ্য ঘাটতি।

বিশাল অঙ্কের বাণিজ্য ঘাটতির ফলে বৈদেশিক লেনদেনের চলতি হিসাবের ভারসাম্যেও (ব্যালান্স অফ পেমেন্ট) বড় ঘাটতিতে পড়েছে বাংলাদেশ। জুলাই-মার্চ সময়ে এ ঘাটতি ১৪ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে ১৪ দশমিক শূন্য ৭ বিলিয়ন ডলারে উঠেছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৫৫ কোটি ৫০ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ তথ্যমতে, বাংলাদেশ ২০২১-২০২২ অর্থবছরের জুলাই-মার্চ সময়ে ৬ হাজার ১৫২ কোটি ৪০ লাখ বা ৬১ দশমিক ৫২ বিলিয়ন ডলারের বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি করেছে। যা গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৩ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছরের ৯ মাসে ৪২ দশমিক ৭৬ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছিল।

এর বিপরিত চলতি ২০২১-২০২২ অর্থবছরের জুলাই-মার্চ সময়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি করে দেশ আয় করেছে ৩৬ দশমিক ৬১ বিলিয়নন ডলার। যা গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৩২ দশমিক ৯২ শতাংশ বেশি। সে হিসাবেই ৯ মাসে পণ্য বাণিজ্যে সার্বিক ঘাটতির পরিমাণ ২৪ দশমিক ৯১ বিলিয়ন ডলার।

আলোচিত সময়ে সেবা (বিমা, ভ্রমণ ইত্যাদি) খাতের বাণিজ্য ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ২৮০ কোটি ৬০ লাখ ডলার। গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের একই সময়ে এ ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১৯৯ কোটি ২০ লাখ ডলার।


আরও খবর



ধাওয়া করে ডাকাত সর্দারকে ধরলেন ওসি

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৪জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে মাইক্রোবাস থামিয়ে ডাকাতির সময়ে গুলি ছুড়ে সেলিম মিয়া (৩৬) নামের এক ডাকাত সর্দারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (৮ মে) ভোরে উপজেলার আড়াইহাজার-বিশনন্দী ফেরীঘাট সড়কের জালাকান্দি এলাকার একটি মশারির কারখানার সামনে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার সেলিম মিয়া আড়াইহাজারের সালমদী গ্রামের সিরাজুলের ছেলে। তার কাছ থেকে দুটি বড় ছোরা ও লুট হওয়া ২ হাজার ৭০০ টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মাইক্রোবাস চালক আরস আলী বাদী হয়ে পাঁচজনের নামে আড়াইহাজার থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ জানায়, সিলেট থেকে বাঞ্জারামপুর যাওয়ার পথে জালাকান্দীতে একটি মাইক্রোবাস থামায় ডাকাত দল। এ সময় তাদের কাছ থেকে নগদ টাকা লুটে নেন ডাকাত সদস্যরা। ডাকাতি চলাকালীন আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিচুর রহমান মোল্লার গাড়ি ঘটনাস্থল অতিক্রম করছিল। তিনি ডাকাতদের ধাওয়া করেন। এ সময় পাঁচ রাউন্ড গুলিও ছোড়েন তিনি। পরে পাঁচ সদস্যের ডাকাত দলের চারজন পালিয়ে গেলেও ডাকাত সর্দার সেলিম মিয়াকে গ্রেফতার করতে সক্ষন হন ওসি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আড়াইহাজার থানার ওসি আনিচুর রহমান মোল্লা বলেন, এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চ্যালেঞ্জ করে রিট

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৬জন দেখেছেন
Image

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন- ২০১৮ এর অধীনে জারি করা অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা- ২০২২ চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করা হয়েছে। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় গত মাসে ব্যারিস্টার মারইয়াম খন্দকার বাদী হয়ে এই রিটটি করেন।

রিটে নীতিমালা অনুযায়ী বিধিনিষেধ ছাড়া ২১ বছরের অধিক বয়সীরা যেকোনো স্থানে বসে মদ খাওয়া ও বহন কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না সেই মর্মে নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। রিটে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

সোমবার (১৬ মে) রিট করার বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

তিনি জানান, এ বিষয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন- ২০১৮ এর অধীনে অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা- ২০২২ জারি করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দেশে প্রথমবারের মতো অ্যালকোহল বা মদ উৎপাদন, কেনাবেচা, পান করা, পরিবহন ও আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে নিয়মনীতি স্পষ্ট করা হলো।

এর আগে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮, অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ (লাইসেন্স ও পারমিট ফিস) বিধিমালা- ২০১৪, মুসলিম প্রহিবিশন রুল- ১৯৫০ ও এক্সাইজ ম্যানুয়াল (ভল্যুম-২) ছাড়াও বিভিন্ন সময়ে নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে অ্যালকোহল সংক্রান্ত বিষয়গুলো নিয়ন্ত্রণ করা হতো।

আবার অনেক ক্ষেত্রেই ছিল অস্পষ্টতা। এর ফলে বিভিন্ন সময়ে নানা জটিলতা দেখা যেত। এছাড়া ভেজাল মদপানে দেশে মাঝেমাঝে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটে।

অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা- ২০২২ এ যা থাকছে:

বিধিমালা অনুযায়ী, মদ কেনাবেচা, পান ও পরিবহনের ক্ষেত্রে লাইসেন্স, পারমিট ও পাস নিতে হবে। কোথাও কমপক্ষে ১০০ জন মদের পারমিটধারী থাকলে ওই এলাকায় অ্যালকোহল বিক্রির লাইসেন্স দেওয়া হবে। আর ২০০ জন হলে দেওয়া হবে বারের লাইসেন্স।

২১ বছরের কম বয়সের ব্যক্তি মদপানের অনুমতি পাবেন না। খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে স্যাক্রামেন্টাল ওয়াইন (আঙুরের নির্যাস থেকে তৈরি মদ) ব্যবহারের জন্য বিশেষ পারমিট দেওয়া যাবে। বিধিমালায় আদিবাসী জনগোষ্ঠীর জন্য চোলাই মদের মহালের সংখ্যা ও অবস্থান নির্ধারণ করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। মদপানের অনুমতি পাবেন চা বাগানের শ্রমিকরাও।

বিদেশি মদের খুচরা পাইকারি অফ শপ ১৬ মার্চ থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত সকাল ৮টা এবং ১৬ অক্টোবর থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত সকাল ১০টায় খুলবে। আর বন্ধ হবে রাত ৯টায়। বিদেশি মদের অন শপ বেলা ১১টায় খুলে বন্ধ হবে রাত ৯টায়। দেশি মদের দোকান খুলবে বেলা ১১টায়। বন্ধ হবে ১৬ মার্চ থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত রাত ৯টায় এবং ১৬ অক্টোবর থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত রাত ৮টায়।

লাইসেন্স বা অনুমোদন ফি ও এগুলোর নবায়ন ফি নতুন করে নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে এই বিধিমালায়। সর্বনিম্ন ফি ১৫০ টাকা, আর সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা। ডিস্টিলারি স্থাপনের ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ লাখ টাকা। দেশি মদপানের অনুমোদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫০ টাকা। বিদেশি মদপানের অনুমোদন ফি তিন হাজার টাকা।

বিধিমালায় ‘অন শপ’ এর সংজ্ঞায় বলা হয়েছে, যে স্থান থেকে বিদেশি নাগরিক বা পারমিটধারী দেশীয় নাগরিক বিলাতি মদ বা বিদেশি মদ বা অ্যালকোহলজাতীয় পানীয় কিনে ওই স্থানে বসে পান করতে পারেন।

অ্যালকোহল সেবন, বহন ও বিক্রির জন্য লাগবে পৃথক পৃথক অনুমোদন। অ্যালকোহল বহন ও পরিবহনের ক্ষেত্রে লাগবে পাস। লাইসেন্স ও অনুমোদনের মেয়াদ হবে ১ জুলাই থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত।

রেল, সড়ক, নৌ ও আকাশপথের যে কোনো একটি বা একাধিক পথে অ্যালকোহল বহন বা পরিবহন করা যাবে। তবে পাসের ওপর অবশ্যই বহন পথ লিপিবদ্ধ থাকতে হবে। পাসে উল্লিখিত পথ ছাড়া অন্য কোনো পথে আলকোহল বহন বা পরিবহন করা যাবে না।

অ্যালকোহলের প্রতিটি বোতল, মোড়ক বা পাত্রের গায়ে ‘মদ্যপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর’ এবং ‘আইনের বিধান ব্যতীত মদ্যপান দণ্ডনীয় অপরাধ’ লালকালিতে সুস্পষ্টভাবে লেখা থাকতে হবে। এছাড়া অনুমতি ছাড়া দোকান, বার বা অ্যালকোহল ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত স্থানে বিনোদনমূলক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড পরিচালনা করা যাবে না।


আরও খবর



যে কারণে শাহরুখকে প্রশংসায় ভাসালেন নানা দেশের দূতাবাস প্রধানরা

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। ঈদের দিন ভক্তদের দেখা দেওয়ার জন্য বাসার ব্যালকনিতে এসেছিলেন তিনি। এবার তার বাসাতেই হাজির হলেন অতিথিরা। তবে যে সে অতিথি নয়, বিভিন্ন দেশের মুম্বাইয়ে দূতাবাসের কনসাল জেনারেলরা।

সম্প্রতি বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের প্রধানদের নিজ বাসায় নিমন্ত্রণ করেছিলেন শাহরুখ এবং তার স্ত্রী গৌরী। তাদের সঙ্গে তুলেছেন ছবিও। সেই ছবি প্রকাশ হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেগুলো এখন ভাইরাল।

এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ভাইরাল হয়েছে মুম্বাইয়ে কানাডার কনসাল জেনারেল দিয়েদ্রা কেলির পোস্টটি। টুইটারে দিয়েদ্রা লিখেছেন, ‘পুরো বিশ্বে কিং খানের জাদু কেন, তা আজ বুঝলাম।’

একই সঙ্গে তিনি শাহরুখ ও গৌরীকে ধন্যবাদ জানান দাওয়াত দেওয়ার জন্য। আগামী দিনে বলিউড ও কানাডার চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে বন্ধন দৃঢ় হবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন কানাডার কনসাল জেনারেল।

পশ্চিম ভারতে ইংল্যান্ডের ডেপুটি হাই কমিশনার অ্যালান গেমেলও উপস্থিত ছিলেন শাহরুখের বাসভবন মান্নাতে। তিনিও শাহরুখের ভূয়সী প্রশংসা করে টুইট করেছেন।

শাহরুখকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মুম্বাইয়ে ফ্রান্সের কনসাল জেনারেলও। তিনিও লিখেছেন, ‘স্মৃতিতে থেকে যাবে সময়টি’।


আরও খবর



ব্লচিজ আউটফিটারের সঙ্গে ইউসিবির সমঝোতা সই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২২জন দেখেছেন
Image

ব্লচিজ আউটফিটারের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক সই করেছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবি)। বুধবার (১৮ মে) ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে এ সমঝোতা স্মারক সই হয়।

চুক্তির আওতায় ইউসিবির ডেবিট/ক্রেডিট/প্রিপেইড কার্ডধারীরা বছরব্যাপী ব্লচিজ আউটফিটারের (ওয়েবসাইট) blucheez.com.bd থেকে ই-কমার্স পণ্য কেনার ওপর বিশেষ ছাড় পাবেন।

ইউসিবির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক এটিএম তাহমিদুজ্জামান ও ব্লচিজ আউটফিটারের প্রতিষ্ঠাতা ড. মো. কামরুজ্জামান সমঝোতা স্মারকে সই করেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইভিপি ও ইউসিবির হেড অব ন্যাশনাল সেলস অ্যান্ড মার্চেন্ট অ্যাকুইরিং আবুল কালাম আজাদ, ব্লচিজ আউটফিটারের বিজনেস ডেভেলপমেন্ট এক্সিকিউটিভ জোশুয়া অ্যাডওয়ার্ডস এবং উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।


আরও খবর