Logo
শিরোনাম

ক্র্যাবকে স্থায়ী কার্যালয় দেবে বসুন্ধরা গ্রুপ

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৭৭জন দেখেছেন
Image

ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনকে (ক্র্যাব) নিজস্ব কার্যালয় করে দিচ্ছেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর। এছাড়া কোনো ক্র্যাব সদস্য মারা গেলে তার পরিবারকে তিন লাখ টাকা প্রদান এবং কেউ গুরুতর অসুস্থ বা পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে আহত হলে ন্যূনতম ৫০ হাজার টাকা সহায়তা দেবেন তিনি।

রোববার (৮ মে) রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় তার বাসভবনে ক্র্যাবের কার্যনির্বাহী কমিটি সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এসব প্রতিশ্রুতি দেন।

সোমবার (৯ মে) ক্র্যাবের দপ্তর সম্পাদক ইসমাঈল হুসাইন ইমু স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

সাক্ষাৎকালে ক্র্যাব সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকু কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষে সংগঠনের প্রত্যাশা লিখিত আকারে উপস্থাপন করেন। পরে ক্র্যাবের প্রধান উপদেষ্টা শংকর কুমার দে, উপদেষ্টা খায়রুজ্জামান কামাল, এস এম আবুল হোসেন, পারভেজ খান, মধুসূদন মন্ডল ও ফখরুল আলম কাঞ্চন বক্তব্য রাখেন।

এরপর ক্র্যাবের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করে সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, সাংবাদিকরা দেশ ও জাতির জন্য নিবেদিত থাকায় বসুন্ধরা গ্রুপও সাংবাদিকদের কল্যাণে অবদান রেখে আসছে। সৎ, নির্ভীক, প্রকৃত সাংবাদিকতা বিকশিত করতে বসুন্ধরা গ্রুপ এরই মধ্যে কয়েকটি মিডিয়া হাউজ প্রতিষ্ঠা করেছে, যাতে সাংবাদিকদের কর্মসংস্থান হয়েছে। সাংবাদিকরা যখন যে সমস্যা বা সংকটে সহায়তা চেয়েছে, বসুন্ধরা গ্রুপ আন্তরিকতার সঙ্গে পাশে থেকেছে। ভবিষ্যতেও যেকোনো পরিস্থিতিতে সাংবাদিকরা আমাকে পাশে পাবেন। বাংলাদেশের সাংবাদিকতা বিশ্বমানে উন্নীত হোক, সাংবাদিকরা তাদের প্রকৃত মর্যাদা লাভ করুক, ভালো থাকুক সব সাংবাদিক- এই প্রত্যাশা করি।

এসময় ক্র্যাবকে দ্রুত একটি নিজস্ব কার্যালয় দেওয়ার নিশ্চয়তা প্রদান করেন তিনি। পাশাপাশি সাংবাদিক ও তাদের পরিবারের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতিও দেন।

এসময় ক্র্যাব সভাপতি মির্জা মেহেদী তমাল এবং সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা শংকর কুমার দে, উপদেষ্টা খায়রুজ্জামান কামাল, এস এম আবুল হোসেন, পারভেজ খান, মধুসূদন মন্ডল, ফখরুল আলম কাঞ্চন, ক্র্যাবের সহ-সভাপতি মুহ. জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম সম্পাদক ইমরান হোসেন সুমন, অর্থ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ইসমাঈল হুসাইন ইমু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রুদ্র রাসেল, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এসএম মিন্টু হোসেন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাহীন আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য সিরাজুল ইসলাম ও মোহাম্মদ জাকারিয়া, ক্র্যাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীপু সরোয়ার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



আইপিএল ছাড়ছেন উইলিয়ামসন

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ১৯জন দেখেছেন
Image

মঙ্গলবার রাতে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে রুদ্ধশ্বাস এক জয়ে দল প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এমন সময়ে দলকে ছেড়ে যাচ্ছেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

নিউজিল্যান্ডের এই তারকা ব্যাটারের স্ত্রী দ্বিতীয় সন্তানের আগমনের অপেক্ষায়। এই সময়টায় স্ত্রীর পাশে থাকতেই আইপিএল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন উইলিয়ামসন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি এক পোস্টের মাধ্যমে শুভকামনা জানিয়েছে উইলিয়ামসনকে। তারা লিখেছে, ‘রাইজার ক্যাম্পের সবাই কেন উইলিয়ামসন এবং তার স্ত্রীর জন্য শুভকামনা জানাচ্ছে। তাদের অবারিত আনন্দ দিয়ে যেন নিরাপদে নতুন অতিথির আগমন হয়।’

উইলিয়ামসনের অনুপস্থিতে হায়দরাবাদের নেতৃত্বভার বর্তাতে পারে ভুবনেশ্বর কুমারের ওপর। এর আগেও তিনি দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এছাড়া ফ্র্যাঞ্চাইজির ভাবনায় আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাদা বলের অধিনায়ক নিকোলাস পুরানের নামও।

উইলিয়ামসন এবারের আইপিএলে খুব একটা ভালো ফর্মে ছিলেন না। কমপক্ষে ১০০ রান করা ব্যাটারদের মধ্যে তার স্ট্রাইকরেট ছিল সবচেয়ে কম (৯৩.৫০)।

কিউই অধিনায়ক দল ছাড়ার পর সানরাইজার্সের হয়ে অভিষেক হতে পারে তারই স্বদেশি গ্লেন ফিলিপসের। কিউই এই অলরাউন্ডার টপ অর্ডারে ব্যাটিংয়ের সঙ্গে অফস্পিন বোলিংও করতে পারেন।


আরও খবর



উৎসবে রঙিন হোক জীবন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ মানেই উৎসব। ঈদ মানেই আনন্দ। ঈদ প্রতিবছর নির্দিষ্ট তারিখে নির্দিষ্ট রীতিতে এক অনন্য আনন্দ-বৈভব বিলাতে ফিরে আসে। একমাস কঠোর সিয়াম সাধনার মাধ্যমে নানা নিয়মকানুন পালনের পর উদযাপিত হয় ঈদুল ফিতর। মরণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণজনিত ভিন্ন প্রেক্ষাপটে গত দুইটি ঈদ পালিত হয়েছে। ঈদ জামাত হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে। সীমিত পরিসরে। এবার পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক। যদিও পৃথিবী এখনো পুরোপুরি করোনামুক্ত হয়নি।

সঙ্গত কারণেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। করোনা পরিস্থিতিতে মাস্ক ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়ানো, জায়নামাজ বাসা থেকে নিয়ে আসা, নামাজ শেষে কোলাকুলি না করা ও হাত না মেলানোসহ কিছু শর্ত পালন করতে হবে। জনস্বার্থে এই শর্ত মেনে চলা অত্যন্ত জরুরি।

মুসলিম উম্মাহর অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতরের দিনটি অশেষ তাৎপর্য ও মহিমায় অনন্য। মাসব্যাপী সিয়াম সাধনা শেষে শাওয়ালের নতুন চাঁদ নিয়ে আসে পরম আনন্দ ও খুশির ঈদ। রোজাদার যে পরিচ্ছন্নতার ও পবিত্রতার সৌকর্য দ্বারা অভিষিক্ত হন, যে আত্মশুদ্ধি, সংযম, ত্যাগ-তিতিক্ষা, উদারতা, বদান্যতা, মহানুভবতা ও মানবতার গুণাবলি দ্বারা উদ্ভাসিত হন, এর গতিধারার প্রবাহ অক্ষুণ্ন রাখার শপথ গ্রহণের দিন হিসেবে ঈদুল ফিতর আসে। ধনী-গরিব সবাই মিলে এক কাতারে শামিল হয়ে ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করা হয়। মনে রাখতে হবে, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। তাই ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলেই যেন ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে পারেন সেই প্রচেষ্টা থাকতে হবে।

বছরজুড়ে নানা প্রতিকূলতা, দুঃখ-বেদনা সব ভুলে ঈদের দিন মানুষ সবার সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে মিলিত হন। ঈদগাহে কোলাকুলি সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও ভালোবাসার বন্ধনে সবাইকে নতুন করে আবদ্ধ করে। ঈদ এমন এক নির্মল আনন্দের আয়োজন, যেখানে মানুষ আত্মশুদ্ধির আনন্দে পরস্পরের মেলবন্ধনে ঐক্যবদ্ধ হন এবং আনন্দ সমভাগাভাগি করেন।

প্রকৃতপক্ষে ঈদ ধনী-দরিদ্র, সুখী-অসুখী, আবালবৃদ্ধবণিতা সব মানুষের জন্য নিয়ে আসে নির্মল আনন্দের আয়োজন। ঈদ ধর্মীয় বিধিবিধানের মাধ্যমে সর্বস্তরের মানুষকে ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ ও ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াস নেয় এবং পরস্পরের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের শিক্ষা দেয়।

পৃথিবী সর্বপ্রকার হিংসা-বিদ্বেষ ও হানাহানিমুক্ত হোক! বিশেষ করে মরণঘাতী করোনাভাইরাসের কবল থেকে রক্ষা পাক মানুষ। ধর্মীয় চরমপন্থা ও সন্ত্রাসের বিভীষিকা দূর হোক। আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের বন্ধন দৃঢ়তর হোক! আগামী দিনগুলো সুন্দর ও সৌন্দর্যমণ্ডিত হোক। হাসি-খুশি ও ঈদের আনন্দে ভরে উঠুক প্রতিটি প্রাণ। ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনে সংযম, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির পরিবেশ পরিব্যাপ্তি লাভ করুক- এটাই হোক ঈদ উৎসবের ঐকান্তিক কামনা।

নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও ঈদ উৎসবের আনন্দে বাঙালির চেতনা ও মনন রঙিন হয়ে উঠুক। সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের প্রাণঢালা শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক।

লেখক: সাংবাদিক, কলামিস্ট। ডেপুটি এডিটর, জাগো নিউজ।


আরও খবর



ওয়েস্ট ইন্ডিজের নতুন অধিনায়ক নিকোলাস পুরান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের নতুন অধিনায়ক নিকোলাস পুরান। মঙ্গলবার এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দিয়েছে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ (সিডব্লিউআই)। কাইরন পোলার্ডের আকস্মিক অবসরের কারণে বাধ্য হয়েই নতুন অধিনায়ক বেছে নিতে হলো ক্যারিবীয়দের।

গত বছর থেকেই পোলার্ডের সহ-অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন বাঁহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটার পুরান। এবার চলতি বছরের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ মেয়াদে দুই ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব পেলেন ২৬ বছর বয়সী এ তারকা।

পুরানকে দায়িত্ব দিয়ে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরিচালক জিমি অ্যাডামস বলেছেন, ‘আমাদের বিশ্বাস সাদা বলের ক্রিকেটে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত পুরান। নির্বাচক প্যানেল মনে করে খেলোয়াড় হিসেবে যথেষ্ট পরিপক্ব হয়েছে সে। এছাড়া তার অভিজ্ঞতা, পারফরম্যান্স এবং দলের সবার শ্রদ্ধাও এক্ষেত্রে বড় নিয়ামক।’

অবশ্য পোলার্ডের অনুপস্থিতিতে এরই মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়কত্ব করার অভিজ্ঞতা হয়েছে পুরানের। ২০২১ সালে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে অধিনায়ক ছিলেন তিনি। এবার পূর্ণাঙ্গ মেয়াদে অধিনায়ক হওয়ার পর ওয়ানডেতে ডেপুটি হিসেবে শাই হোপকে পাচ্ছেন পুরান।

ওয়ানডে ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত আট ফিফটি ও এক সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন পুরান। কুড়ি ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও তার নামের পাশে রয়েছে আটটি হাফসেঞ্চুরি। ২০১৪ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ছয় ম্যাচে ৩০৩ রান করে সর্বপ্রথম নিজের আগমনী বার্তা দিয়েছিলেন এ মারকুটে ব্যাটার।


আরও খবর



মরুর দেশ আরব আমিরাতে বঙ্গবন্ধু কাপ কাবাডি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

মরুর দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের জাতীয় খেলা কাবাডি অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু কাপ কাবাডি নামে এই প্রতিযোগিতার উদ্যোক্তা ছিল দেশটির আজমানে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল দুবাইয়ের 'দুয়ারে কনস্যুলেট'। বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সহযোগিতায় খেলায় অংশ নেয় প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিয়ে গড়া ৪টি দল।

খেলা শুরুর আগে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন এবং বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক এসএম নেওয়াজ সোহাগ খেলোয়াড় ও বাংলাদেশি দর্শকদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

এ সময় কনস্যুলেট জেনারেল দুবাইয়ের কর্মকর্তা, কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ও প্রবাসীরা খেলা উপভোগ করেন। ফাইনালে আবুধাবিকে ৮-৭ পয়েন্টে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় দুবাই।

কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন বলেন, ‘কাবাডি খেলার ঐতিহ্য রক্ষা ও প্রবাসে এর প্রসার ও প্রচারের লক্ষ্যে বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাইয়ের এই উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।’

বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক এসএম নেওয়াজ সোহাগ বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখনও কাবাডি জনপ্রিয়। এ জনপ্রিয়তা দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে দিতে কাবাডি ফেডারেশন নতুন নতুন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় শিগগিরই আমিরাতে একটি বড় টুর্নামেন্ট করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে প্রাথমিকভাবে আজকের এই আয়োজন।’

আবুধাবি, দুবাই, শারজাহ ও আজমান-এই চার দল খেলায় অংশ নেয়৷ প্রথম রাউন্ডে আবুধাবি ২২-১৩ পয়েন্টে আজমানকে পরাজিত করে। দুবাই ১৪-৭ পয়েন্টে হারায় শারজাহকে৷


আরও খবর



মুসলিম নারীকে বিয়ে করায় তরুণকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৪৯জন দেখেছেন
Image

ভারতের হায়দরাবাদে মুসলিম নারীকে বিয়ে করায় নাগরাজু নামের এক হিন্দু তরুণকে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে। জানা গেছে, আসরিন সুলতানা নামের ওই নারীর ভাই এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। এরই মধ্যে তার ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আসরিন জানিয়েছেন, বিয়ের আগে ভাই আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল। দু’বার গলায় ফাঁস দিয়ে আমাকে ঝুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। বাঁচার জন্য আমি বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়েছিলাম। পরে হায়দরাবাদে এসে আমরা বিয়ে করি। সিম কার্ডও পাল্টে ফেলেছিলাম, যাতে পরিবারের কেউ আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারে।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অভিযুক্ত অর্থাৎ আসরিনের ভাই ভেবেছিল অন্য ধর্মের যে তরুণকে বিয়ে করেছে বোন, তাকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দিতে হবে।

তবে নাগরাজুর মৃত্যু কীভাবে হলো সেই বিষয়ে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রথমে বাইক থেকে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয় তাকে। তারপর লোহার রড দিয়ে এলোপাথাড়ি মারা হয়। শেষে ছুরি জাতীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। এতেই তার মৃত্যু হয়।

অন্য ধর্মে বিয়ে করার ফলে সম্মান রক্ষার্থে খুনের ঘটনা সাধারণত উত্তর ভারতেই দেখা যেত। দক্ষিণ ভারতে ধরনের ঘটনা প্রায় ঘটে না বললেই চলে। এদিকে পরিস্থিতি দেখে হিন্দু-মুসলিম বিভেদ উসকে দিয়ে পথে নেমেছে ক্ষমতাসীন বিজেপি।


আরও খবর