Logo
শিরোনাম

কুমিল্লা সিটিতে নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৭জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন আরফানুল হক রিফাত। তিনি কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

শুক্রবার (১৩ মে) সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভায় তাকে মনোনয়ন দেওয়া এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মনোনয়ন বোর্ডের একাধিক সদস্য জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর



‘১১৬ আলেমের তালিকা প্রকাশকারীদের বিচার করতে হবে’

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেছেন, ১১৬ আলেম ও এক হাজার মাদরাসার বিরুদ্ধে যারা অভিযোগ দিয়েছেন তারা কারা? তারা দেশ খেকো, ধর্ম খেকো, ইসলাম খেকো, মানবতা খেকো। এ কাজ করার জন্য তাদের কেউ দায়িত্ব দেয়নি। সাংবিধানিকবভাবে তারা এ কাজ করতেও পারেন না। তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো উচিৎ। যদি সংবিধান সাপোর্ট করে গণকমিশনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে পাল্টা কমিশন গঠন করবো। দেশের আলেম-ওলামাদের চরিত্র হনন চেষ্টায় যারা অবমাননাকর এ তালিকা করেছে তাদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে।

বুধবার (১৮ মে) দুপুরে বরিশাল প্রেস ক্লাবে ইসলামী আন্দোলনের সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী শুক্রবার (২০ মে) জুমার নামাজের পর বরিশাল নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিভাগীয় সমাবেশের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেন, দেশের দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনগণের মাঝে নাভিশ্বাস উঠেছে। মানুষ না খেয়ে থাকছে। বিশ্বে দ্রব্যমূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পেলেও পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমাদের সরকারের কোনো প্রস্তুতি ছিল না। বরঞ্চ তারা মুনাফখোরদের সুযোগ করে দিতে সময়ক্ষেপণ করেছেন। এখন পরিস্থিতি এমন যে মুনাফাখোর ব্যবসায়ীর লাগাম টেনে ধরার সামর্থ্য সরকারের নেই।

তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্যর ঊর্ধ্বগতি, শিক্ষা সিলেবাসে ধর্মীয় শিক্ষা সংকোচন বন্ধ, ইসলাম দেশ ও মানবতাবিরোধী মদের বিধিমালা বাতিল, স্বাধীনতার মূললক্ষ্য সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা এবং দুর্নীতি ও সন্ত্রাসমুক্ত ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে গত ১ এপ্রিল ঢাকায় জাতীয় মহাসমাবেশ করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। ওই মহাসমাবেশে বিভাগীয় শহরগুলোতে মহাসমাবেশ করার কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশ বাস্তবায়ন কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক মাওলানা সৈয়দ নাসির আহমাদ কাওছার, মাওলানা মুহাম্মদ ইদ্রিস আলী, আলহাজ্ব আব্দুল মালেক কাফরা, যুগ্ম-সদস্য সচিব মাওলানা জামিলুর রহমান, প্রচার উপ-কমিটির আহ্বায়ক মাওলানা আবুল খায়ের আশ্রাফী, ইসলামী যুব আন্দোলন বরিশাল জেলা সভাপতি হাফেজ মাওলানা মুহাম্মাদ সানাউল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



হবিগঞ্জে বাসচাপায় প্রাণ গেলো অটোচালক-যাত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৬জন দেখেছেন
Image

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার রোকনপুর বাজারে বাসচাপায় সিএনজি অটোচালকসহ দুজন নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের রোকনপুর বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, সিএনজি অটোরিকশা চালক রোকনপুর গ্রামের শাহ জহুর আলীর ছেলে শাহ আরশ আলী (৩০) ও অটোরিকশার যাত্রী ওই গ্রামের মৃত গোলাপ আলীর স্ত্রী নুরেয়া বেগম (৩৫)।

পুলিশ জানায়, অটোরিকশা যোগে বাহুবল যাচ্ছিলেন রোকনপুর গ্রামের নুরেয়া বেগম (৩৫)। রোকনপুর বাজারে পৌঁছালে সিলেট থেকে ঢাকাগামী ঢাকা মেট্রো (ব ১৫-৭৫৫১) যাত্রীবাহী এম আর পরিবহনের বাস পেছন দিক থেকে অটোরিকশাকে ধাক্কা দিলে সেটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে আটোচালক শাহ আরশ আলী (৩০) ও যাত্রী নুরেয়া বেগম (৩৫) মারা যান। এসময় স্থানীয় লোকজন মহাসড়ক অবরোধ করে।

শেরপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল ভৌমিক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, এখন যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।


আরও খবর



যুগ যুগ ধরে সেহরিতে নবাবী বিরিয়ানি বিতরণ

প্রকাশিত:রবিবার ০১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৩জন দেখেছেন
Image

নবাব নেই, নবাবী শাসনও নেই, তবে টিকে রয়েছে যুগ যুগ ধরে চলে আসা নবাবী প্রথা। একদা সুবে বাংলার রাজধানী মুর্শিদাবাদে আজও রয়ে গেছে নবাবী আমলের পুরোনো এক রীতি। এখনো রমজান মাসের নির্দিষ্ট দুই দিন ইমামবাড়া থেকে প্রায় তিনশ পরিবারের মধ্যে সেহরির জন্য বিরিয়ানি বিতরণ করা হয়।

মুর্শিদাবাদের ইতিহাস সংক্রান্ত বিভিন্ন গ্রন্থ থেকে জানা যায়, নবাবদের সময়ে কয়েক হাজার পরিবারকে বিরিয়ানি বিতরণ করা হতো। নবাবী শাসনের অবসানের পরে সংখ্যাটা কমতে শুরু করে। এখন মুর্শিদাবাদ এস্টেট থেকে বিরিয়ানি বিতরণ করা হয়। কয়েক বছর ধরেই রাজ্য সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন মুর্শিদাবাদের এস্টেট।

ইমামবাড়ার এক কর্মী বলেন, গোটা রমজানে প্রায় তিনশ পরিবারকে সেহরির জন্য তন্দুরি রুটি ও ডাল দেওয়া হয়। রমজান মাসের ১৪/১৫ এবং ২৮/২৯ তারিখ, এই দুই দিন বিতরণ করা হয় সুস্বাদু বিরিয়ানি।

রমজান মাসজুড়ে সকাল থেকেই রান্নার তোড়জোড় শুরু হয়। তবে এ মাসের দুই দিন বিরিয়ানির গন্ধে ম ম করে নবাবী তালুক। নবাবী আমল থেকেই এই প্রথা চলে আসছে বলে জানিয়েছেন ইমামবাড়ার প্রধান।


আরও খবর



রাজশাহীতে মিষ্টির দোকানে উপচেপড়া ভিড়

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

আজ বাদে কাল ঈদ। ঈদের একদিন আগেই রাজশাহী নগরীতে জমেছে ঈদ বাজার। নগরীতে বাজার ঘুরে দেখা গেছে মিষ্টির দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভিড়। ক্রেতাদের চাহিদা মিটিয়ে মিষ্টি দিতে হিমশিম খাচ্ছেন বিক্রেতারা।

সোমবার (২ মে) রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজারের রসমেলা, নবরূপ, মিষ্টান্ন ভান্ডার, শিবগঞ্জ সুইটসসহ অন্যান্য মিষ্টির দোকান ঘুরে এমনই চিত্র দেখা গেছে।

jagonews24

বিক্রেতারা বলছেন, ঈদের দুদিন আগে থেকে বিক্রির চাপ বেড়েছে। বেশিরভাগ ক্রেতার চাহিদা সাদামিষ্টি, কালোজাম, চমচম, রসগোল্লা, খির চমচম ও স্পঞ্জ মিষ্টি, ছানা মিষ্টি। তবে অভিজাত ক্রেতারা কিনছেন রসগোল্লা, ছানার মিষ্টিসহ বাহারি মিষ্টি।

প্রায় সব ক্রেতাই মিষ্টির পাশাপাশি দই কিনতে ভুলছেন না। যে কারণে বাজারে মিষ্টিসহ দইয়ের ওপর প্রচণ্ড চাপ রয়েছে। তবে ছোট দোকানগুলোতে পর্যাপ্ত মিষ্টি থাকলেও সেখানে ক্রেতাদের ভিড় কম দেখা গেছে।

jagonews24

ছেলেকে নিয়ে দই নিতে এসেছেন আক্তারুল ইসলাম। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘আগামীকাল ঈদ। পরিবারের জন্য দেই নিতে এসেছি। কিন্তু ভিড় অনেক বেশি।’

আহসান কবির নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘প্রতি বছর এ দোকান (নবরূপ) থেকেই মিষ্টি কিনি। কিন্তু আজকের মতো এত ভিড় আগে কখনো দেখিনি।’

jagonews24

নগরীর হাদিরমোড় এলাকার বাসিন্দা জুলেখা। আধাঘণ্টা ধরে মিষ্টির দোকানের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘অনেকক্ষণ হয়ে গেলো দাঁড়িয়ে আছি কিন্তু তারা দই দিতে পারছে না। বলছে একটু দাঁড়ান, দই চলে আসবে।’

নবরূপের স্বত্বাধিকারী মদন কুমার ঘোষ। প্রায় ১৫ জন কর্মচারী নিয়ে চলছে তার মিষ্টির দোকান। তারপরও ক্রেতার চাপ সামলাতে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

jagonews24

মদন কুমার ঘোষ বলেন, ‘আজ বাদে কাল ঈদ। তাই ক্রেতাদের চাপ বেশি। তার ওপর আবার দুধের সাপ্লাই নেই। তাই অনেক চাপ।’

রাজশাহীর রসমেলার মালিক পরিমল কুমার ঘোষ মিঠু। নগরীতের রেলগেট, উপশহর নিউ মার্কেট ও সাহেব বাজারে রয়েছে চারটি দোকান। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘ক্রেতাদের চাপ অনেক বেশি। ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে আমাদের কারিগররা দিনরাত মিষ্টি বানাচ্ছেন। তবে সমস্যা হয়েছে পর্যাপ্ত দুধ মিলছে না। গত তিন চারদিন আগ থেকেই দুধের দাম ৬০ টাকার জায়গায় ৯০ থেকে ১০০ টাকা লিটার কিনতে হচ্ছে। কিন্তু মিষ্টির দাম আগের মতোই নেওয়া হচ্ছে।’


আরও খবর



‘আফগানিস্তানে মাধ্যমিকের নারী শিক্ষার্থীদের জন্য সুখবর আসছে’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

আফগানিস্তানে থমকে আছে মাধ্যমিকের নারী শিক্ষার্থীদের স্কুলে যাওয়া। এবার তাদের জন্য সুখবর আসছে বলে জানিয়েছেন তালেবান সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানি। সোমবার (১৬ মে) সংবাদ মাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, মাধ্যমিকের নারী শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরা নিয়ে শিগগির সুখবর আসছে।

দেশটি থেকে গত আগস্টে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা সেনা প্রত্যাহার করার পর ক্ষমতার আসনে বসে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান। গত মার্চের শেষে তারা মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজগামী নারী শিক্ষার্থীদের ক্লাসে যাওয়া বন্ধ করে দেয়।

তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদার এ অপ্রত্যাশিত ঘোষণা অনেক আফগান ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ক্ষুব্ধ করেছে।

তালেবান সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানি বলেছেন, ‘ আমি কিছু তথ্য স্পষ্ট করতে চাই। নারীদের শিক্ষার বিরোধিতা করে এমন কেউ নেই।’ তালেবানের এই নেতা গত মার্চে প্রথমবার জনসম্মুখে এসেছিলেন।

jagonews24

সিরাজুদ্দিন হাক্কানি তার প্রথম টেলিভিশন বক্তব্যে আরও বলেন, মেয়েরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়া শুরু করেছে। মেয়েদের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির অনুমতি দেওয়ার জন্য একটি পদ্ধতিতে কাজ চলছে বলেও জানান তিনি। এই বিষয়টি নিয়ে শিগগির আপনারা সুখবর জানতে পারবেন বলেও জানান এই তালেবান নেতা।

হাক্কানি ইঙ্গিত করে বলেন, আফগান সংস্কৃতি ও ইসলামিক নিয়ম নীতি অনুসারে ড্রেস কোড হওয়া উচিত। বিশেষ করে নারীদের হিজাব পরার বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি।

ক্ষমতায় ফেরার পর তালেবান সরকার অন্তত হিজাব, স্কার্ফ পরার কথা বললেও মুখ খোলা রাখতে পারতেন আফগান নারীরা। কিন্তু মে মাসের শুরুর দিকে তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুনজাদা আফগান নারীদের প্রকাশ্য স্থানে মুখ-ঢাকা বোরকা পরতে হবে বলে আদেশ জারি করেন। কোনো নারী এই নিয়ম না মানলে এবং সরকারের হুঁশিয়ারি অগ্রাহ্য করলে তার পরিবারের পুরুষ সদস্য বা অভিভাবকের কারাদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে এমনটাও জানানো হয়।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের পূর্বের শাসনকালে নারীদের মুখ ঢেকে বাইরে বের হওয়ার এ নিয়ম চালু ছিল। নারীরা বাইরে কাজ করতে পারতেন না সে সময়, এমনকি মেয়েদের স্কুলে যাওয়া নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু গতবছর আগস্টে তালেবান কাবুল দখলের পর তারা নারী অধিকারকে সম্মান করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছিল। কিন্তু ধীরে ধীরে সেই প্রতিশ্রুতি থেকে সরে আসতে শুরু করে তালেবান সরকার।

সূত্র: এএফপি, এনডিটিভি


আরও খবর