Logo
শিরোনাম

নড়াইলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ গেলো যুবকের

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৯জন দেখেছেন
Image

নড়াইলের লোহাগড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৩ মে) রাতে উপজেলার চাচই-ধানাইড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম রহিম মোল্যা (২৫)। তিনি উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চাচই-ধানাইড় গ্রামের মো. ইকরাম মোল্যার ছেলে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে নিজ ঘরে বৈদ্যুতিক লাইনের কাজ করছিলেন রহিম। এসময় অসাবধানতাবশত রহিম বিদ্যুতের তার স্পর্শ করে স্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু হেনা মিলন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রহিমের অকাল মৃত্যুতে ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।


আরও খবর



বাজারব্যবস্থা জনগণকে জিম্মি করে রেখেছে: গণফোরাম সভাপতি

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

গণফোরাম সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেছেন, হাসিমুখে বাজারে যাওয়া জনগণ কান্না করে বাসায় ফিরে আসে এই দায়ভার কোনোভাবেই সরকার এড়াতে পারবে না। বাজারব্যবস্থা জনগণকে জিম্মি করে অসহায় করে রেখেছে।

বুধবার (১১ মে) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘সয়াবিন তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতা, গণতন্ত্রহীন ও সর্বগ্রাসী নৈরাজ্যের প্রতিবাদে’ আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। গণফোরাম ও বাংলাদেশ পিপলস্ পার্টি ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে এ মানববন্ধন, বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, মন্ত্রীরা জনগণের কথা শোনেন না, শোনেন লুটেরা সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের কথা। মাটির পদধ্বনি শুনতে হবে, বুঝতে হবে। যারা মা ও মাটি বোঝেন না তার পদধ্বনি শোনেন না তাদের পতন অনিবার্য।

তিনি আরও বলেন, জনতার ঐক্য আমরা চাই, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আগামীতে একটি অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করবো। সেই নির্বাচনে এই প্রধানমন্ত্রীর কোনো হস্তক্ষেপ করার সুযোগ থাকবে না।

বাংলাদেশ পিপলস্ পার্টির চেয়ারম্যান মো. বাবুল সরদার চাখারী বলেন, আপনারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে অনেক দূরে সরে গেছেন। সয়াবিন তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতিতে জনগণকে অতিষ্ঠ করেছেন। জনগণ আপনাদের নাম আর মুখেও আনতে চায় না।

আরও বক্তব্য রাখেন- গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চৌধুরী, নির্বাহী সভাপতি এ কে এম জগলুল হায়দার আফ্রিক, বাংলাদেশ পিপলস্ পাটির মহাসচিব আব্দুল কাদের প্রমুখ।


আরও খবর



হৃদরোগ ইনস্টিটিউটকে ৩ কোটি ৭১ লাখ টাকা অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩১জন দেখেছেন
Image

অসহায় ও দরিদ্র রোগীদের জন্য বিনামূল্যে হার্টের ভাল্ব, রিং, পেসমেকার কিনতে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন কোটি ৭১ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন।

বুধবার (১১ মে) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সিনিয়র সচিব মো. তোফাজ্জেল হোসেন মিয়ার কাছ থেকে অনুদানের চেক গ্রহণ করেন জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীর জামাল উদ্দিন।

অনুদানের চেক গ্রহণের সময় ডা. মীর জামাল উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ অনুদান গরিব ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসকার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখাবে।

এসময় অন্যদের মধ্যে সহযোগী অধ্যাপক ও কার্ডিয়াক সার্জন ডা. আশরাফুল হক সিয়াম উপস্থিত ছিলেন।

ডা. মীর জামাল উদ্দিন জাগো নিউজকে জানান, প্রধানমন্ত্রী গত বছরের আগস্টে অসহায় হৃদরোগীদের মধ্যে বিনামূল্যে চিকিৎসাসামগ্রী বিতরণের জন্য তিন কোটি ২৯ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছিলেন। সেই অনুদানের টাকা দিয়ে ৩০০ হার্টের রিং, ১৫০টি ভাল্ব, ১০০টি পেসমেকার কিনে রোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। এবার যে অনুদান পাওয়া গেছে, তা দিয়ে চিকিৎসাসামগ্রী ক্রয় করে অসহায় সেবা তহবিলের মাধ্যমে বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।

তিনি বলেন, হৃদরোগীদের সরকারি পর্যায়ে চিকিৎসা সেবা নেওয়ার সবচেয়ে বড় হাসপাতাল জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল। অনেক রোগীদের ভাল্ব প্রতিস্থাপন, পেসমেকার স্থাপন এবং রিং বসাতে হয়। তাদের অনেকেই আর্থিক সংকটের কারণে সেই চিকিৎসা নেওয়ার সুযোগ পান না। বিষয়টি জানার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই দফা অনুদান দিলেন।


আরও খবর



প্যারিসে হতে যাচ্ছে প্রবাসীদের স্বপ্নের শহীদ মিনার

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৮জন দেখেছেন
Image

ফ্রান্সে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশিদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে। কারণ শেষ পর্যন্ত স্থায়ী একটি শহীদ মিনারের অনুমতি পাওয়া গেছে সেইন্ট ডেনিশে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে বার্নার্ড মারি স্কয়ারে ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে এই শহীদ মিনার স্থাপন হবে। এ ব্যাপারে প্রশাসনিক কাজ ও নকশা অনুমোদন হয়েছে। ঢাকায় স্থাপিত মূল শহীদ মিনারের আদলেই নির্মিত হবে এটি।

স্থানীয় সংগঠন ‘অ্যাসোসিয়েশন সেকুয়ানো বাঙালি’র প্রেসিডেন্ট সরোদ সদিউল বলেন, এই স্বপ্ন বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্যারিসে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের দাবি পূরণ হতে চলেছে। জাতির প্রতি, ভাষা আন্দোলনের শহীদদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব পালন করলাম।

এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি ঘোষণা করার সময় প্যারিস শহীদ মিনার বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, উদ্যোক্তা সদিউল এবং অর্থ সমন্বয়ক টি এম রেজাকে নিয়ে আমরা অতীতে যেভাবে কাজ করেছি, তারই ধারাবাহিকতায় আমরা যেন ২০২৩ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি নতুন শহীদ মিনারে পালন করতে পারি।


আরও খবর



‘আলেমদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে’

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

আলেমদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে সমাজে বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ।

সোমবার (১৬ মে) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন সংগঠনটির সভাপতি নুরুল হুদা ফয়েজী।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বিতর্কিত সংগঠন ঘাদানিক, জাতীয় সংসদের আদিবাসী ও সংখ্যালঘু বিষয়ক ককাসের উদ্যোগে গঠিত ‘বাংলাদেশে মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস’ তদন্তে ‘গণ কমিশন’ নামে একটি কথিত কমিশন একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে। ‘বাংলাদেশে মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের দুই হাজার দিন’ শীর্ষক কথিত শ্বেতপত্রটি গত ১২ মার্চ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোড়ক উন্মোচন করেছেন। এর দুইমাস পরে গত ১২ মে দুপুর ১২টায় এই শ্বেতপত্রটি দুদক চেয়ারম্যানের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

নুরুল হুদা ফয়েজী বলেন, শ্বেতপত্র প্রকাশের সঙ্গে জড়িতদের ভাষ্যমতে, এখানে ১১৬ জন আলেম ও এক হাজার মাদরাসা সম্পর্কে তথ্য দেওয়া হয়েছে। দেশের শীর্ষস্থানীয় ১১৬ জন আলেমের নাম উল্লেখ করে তাদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে অভিহিত করা হয়েছে এবং তাদের ভাষ্যমতে, ধর্ম ব্যবসায়ীদের অপরাধের বিবরণ তুলে ধরা হয়েছে।

‘এই শ্বেতপত্র জনসাধারণে প্রকাশ করা হয়নি। ফলে এই বিষয়ে আমাদের নির্ভর করতে হয়েছে তাদের মিডিয়ায় ব্রিফিং থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ওপরে। যদি তাদের উদ্দেশ্য সৎ হতো তাহলে শ্বেতপত্র জনসম্মুখে প্রকাশ করতো। কথিত শ্বেতপত্র নিয়ে তাদের একধরনের লুকোচুরি প্রমাণ করে যে, তারা সারবত্তাহীন অভিযোগপত্র নিয়ে নাগরিকদের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, তাদের কথিত শ্বেতপত্র বানানো হয়েছে জনসম্পৃক্ত উলামাদের নিয়ে। যারা দেশব্যাপী ওয়াজ-মাহফিলের মাধ্যমে মানুষকে ইসলামের দিকে আহ্বান করেন। ওয়াজ হলো, জনসাধারণের চরিত্র ও ধারণ ক্ষমতা অনুসারে ইসলামের নির্দেশনা ও পরকালের শাস্তি এবং প্রাপ্তি নিয়ে এক ধরনের আলোচনা। ওয়াজ কোনো একাডেমিক আলোচনা নয়।

সংবাদ সম্মেলন থেকে দেশের ওলামায়ে কেরাম ও নাগরিক সমাজের পক্ষে আটটি দাবি তুলে ধরা হয়।

দাবিগুলো হলো-

১. যারা কথিত শ্বেতপত্র প্রকাশের মাধ্যমে দেশের সম্মানিত আলেমদের সম্মানহানি করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

২. যারা বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সংঘাতের দেশ হিসেবে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উপস্থাপন করে দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে চায়, তাদের কার্যক্রমকে তদন্তের আওতায় আনতে হবে ও তাদের গতিবিধিকে গোয়েন্দা নজরদারির আওতায় আনতে হবে।

৩. যারা মাঠ প্রশাসনের এবং পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের নামে উদ্দেশ্যমূলক অবৈধ তৎপরতা চালিয়েছে, তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

৪. দেশের সম্মানিত আলেমদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

৫. কারাবন্দি সব মজলুম আলেমদের অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে।

৬. ওয়াজ মাহফিল নিছক একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠান। তাই সারাদেশে ওয়াজ মাহফিল সব প্রশাসনিক বিধি নিষেধের আওতামুক্ত রাখতে হবে।

৭. সারাদেশের আলেম ওলামা ও মাদরাসার বিরুদ্ধে সব প্রকার হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

৮. আল্লাহ ও রসূল (স.) ধর্মীয়-রাজনৈতিক ও সামাজিক সম্মানীয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মানহানিকর শব্দের ব্যবহার নিষিদ্ধে আইন করতে হবে এবং যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে ও তার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।


আরও খবর



চাঁদপুরে সুজিত রায় নন্দীর ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলার সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক বাবু সুজিত রায় নন্দী।

ঈদের পরদিন বুধবার (৪ মে) সকাল থেকে ঈদের তৃতীয় দিন গভীর রাত পর্যন্ত ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

চাঁদপুর পুলিশ সুপারের আমন্ত্রণে নৈশভোজে অংশ নিয়ে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় শুরু করেন সুজিত নন্দী। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলালের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

jagonews24

এরপর জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. জসিম উদ্দিন মিঠু ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফরিদা ইলিয়াছের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সুজিত নন্দী। এ সময় ফরিদা ইলিয়াছের মায়ের মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন তিনি।

পরে চাঁদপুর সরকারি কলেজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজান মাঝির জানাজায় অংশ নিয়ে সেখানে উপস্থিত মুসল্লিদের সামনে বক্তব্য দেন সুজিত নন্দী।

এছাড়া বুধবার রাতে চাঁদপুর শহরের কালিবাড়ি, ওয়্যারলেস মোড়, বাবুরহাট, নতুনবাজার, বড় স্টেশন, পালবাজার, বিপনীবাগসহ বিভিন্ন স্থানে সাধারণ মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

ঈদের তৃতীয় দিন (বৃহস্পতিবার) সকাল থেকেই সুজিত নন্দীর সঙ্গে সাক্ষাৎ ও ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করতে শহরের ফরাক্কাবাদ কুমুড়ুয়ায় তার নিজ বাড়িতে সাধারণ মানুষের ঢল নামে। এ সময় কোলাকুলি ও খাওয়া-দাওয়ার মধ্য দিয়ে অগনিত মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

jagonews24

পরে দুপুর ১২টায় হাইমচর উপজেলার বাইতুল জামে মসজিদ মাঠে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন সুজিত নন্দী। অনুষ্ঠান শেষে হাইমচরের বাংলাবাজার, নয়ানী, ঢেলের বাজার, তেলীর মোড়, জনতা বাজার, আলগীবাজার, হাইমচর বাজার ও চরভৈরবীসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

এছাড়াও চাঁদপুর সদরের ফরক্কাবাদ বাজার, ঐতিহ্যবাহী মমিনবাড়ি মাদ্রাসা, রানীর হাট বাজার, মদিনা মার্কেট, চান্দ্রা বাজার, চান্দ্রা চৌরাস্তার সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

শুভেচ্ছা বিনিময়কালে জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর