Logo
শিরোনাম

ন্যায্য মজুরি-শ্রম আইন বাস্তবায়নের দাবি

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

বাজারদরের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ ন্যায্য মজুরি ও শ্রম আইন বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন ঢাকা পাদুকাশিল্প শ্রমিক সংঘের নেতারা। শুক্রবার (১৭ জুন) সন্ধ্যায় সংগঠনের গুলিস্তান কার্যালয়ে এক কর্মিসভায় সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।

পাশাপাশি তারা পাদুকাশিল্পের সঙ্গে জড়িত সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র দেওয়া ও আট ঘণ্টা কর্মদিবস নির্ধারণের দাবি জানান।

সভায় বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ বলেন, ১৫ বছর ধরে দেশে দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি বিরাজমান। এরপরও পাদুকা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি করা হয়নি।

বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার দফায় দফায় নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি করে শ্রমজীবী ও স্বল্প আয়ের মানুষের জীবন-জীবিকাকে অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। জীবনযাত্রার প্রতিটি ক্ষেত্রেই লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি ঘটলেও শ্রমজীবী মানুষের আয় বাড়েনি। এমন দূর্দশায় মালিক ও সরকার কেউই শ্রমিকদের কথা ভাবছে না।

‘শ্রমআইন অনুযায়ী নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্ভিসবুক, দৈনিক আট ঘণ্টা কাজ, অতিরিক্ত কাজের জন্য দ্বিগুণ মজুরি, মজুরিসহ সাপ্তাহিক ছুটি, নৈমিত্তিক ছুটি (বছরে ১০ দিন), চিকিৎসা ছুটি (বছরে ১৪ দিন), উৎসব ছুটি (বছরে ১১ দিন) অর্জিত ছুটি (বছরে ২০ দিন) ইত্যাদি দেওয়ার নিয়ম থাকলেও তার কোনো কিছুই বাস্তবায়িত হয়নি।’

এমতাবস্থায় শ্রমিকদের সংগঠিত হয়ে আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে দাবি আদায়ের পথে অগ্রসর হওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প পথ নেই।

সংগঠনের আহ্বায়ক ইসহাক আলীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক মো. ইয়াছিন, মহানগর কমিটির সভাপতি প্রকাশ দত্ত ও মামুন আহমেদ খান।

আরও উপস্থিত ছিলেন পাদুকা শিল্প শ্রমিক সংঘের যুগ্ম-আহ্বায়ক জুনায়েদ খান সৌরভ, সদস্য মো. ছমির, আমিনুল ইসলাম, আকাশ মিয়া প্রমুখ।

সভায় আন্দোলন-সংগ্রামের কথা মাথায় রেখে মো. ইসহাক আলীকে আহ্বায়ক, জুনায়েদ খান সৌরভ ও মামুন আহমেদ খানকে যুগ্ম-আহ্বায়ক করে ঢাকা পাদুকা শিল্প শ্রমিক সংঘের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির সদস্যরা হলেন- মো. ছামির, আকাশ মিয়া, ফয়সাল, স্বাধীন, রিয়াদ, শান্ত, রিফাত আমিনুল।


আরও খবর



১০ মেডিকেল কলেজের ১৯ হোস্টেল নির্মাণে অসঙ্গতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

# একই এসির মূল্য দুই জায়গায় দুই রকম
# টিভির স্পেসিফিকেশন না দিয়েই প্রতিটির দাম ধরা হয়েছে ১ লাখ টাকা
# প্রকল্প প্রস্তাবনার সব পৃষ্ঠায় বাস্তবায়নকারী সংস্থার স্বাক্ষর ও সিল নেই
#কত বর্গফুটের ভবন হবে উল্লেখ থাকলেও কত তলাবিশিষ্ট হবে তা উল্লেখ নেই।

১০টি মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য ১৯টি হোস্টেল নির্মাণ করতে চায় স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর। এজন্য ১ হাজার ২১২ কোটি ৬৭ লাখ চাওয়া হয়েছে সরকারের কাছে। তবে এই টাকায় কত তলাবিশিষ্ট হোস্টেল নির্মাণ করা হবে, ভবন নির্মাণের মাধ্যমে প্রত্যেকটি মেডিকেল কলেজে কতজনের আবাসনের ব্যবস্থা হবে তা নির্দিষ্ট করা হয়নি। এছাড়া এসি, টিভি, আসবাবপত্রের দাম নিয়েও রয়েছে অসঙ্গতি। বিষয়গুলো নজরে এনে প্রশ্ন তুলেছে পরিকল্পনা কমিশনের আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগ।

কমিশন বলছে, প্রস্তাবিত মেডিকেল কলেজগুলোতে কততলা ভিতবিশিষ্ট কয়টি হোস্টেল ভবন নির্মিত হবে, মেডিকেল কলেজগুলোতে কতজন ছাত্র-ছাত্রীর আবাসন সুবিধা রয়েছে এবং আবাসন চাহিদা কতজনের, প্রকল্পের আওতায় হোস্টেল ভবন নির্মাণের মাধ্যমে প্রত্যেকটি মেডিকেল কলেজে কতজনের আবাসনের ব্যবস্থা হবে- এসব তথ্য সুনির্দিষ্টভাবে জানাতে হবে।

আবার ছাত্রী হোস্টেলে আবাসন সংকটের তুলনামূলক চিত্র থেকে দেখা যায়, কিছু মেডিকেল কলেজ, যেমন- কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ, এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি আসনের প্রস্তাব করা হয়েছে। এসব নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে কমিশন।

jagonews24

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রস্তাবিত ওই প্রকল্প পর্যালোচনা করে আরও দেখা যায়, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের ছাত্র হোস্টেলের জন্য একটি বোর্ডের মূল্য ৬ হাজার ২৫০ টাকা ধরা হয়েছে। ছাত্রী হোস্টেলের জন্য একই বোর্ডের মূল্য ধরা হয়েছে ৬ হাজার ৮৫৫ টাকা। প্রকল্প পরিচালকের কার্যালয়ের জন্য প্রতিটি এসির (২ টন) মূল্য ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা ধরা হয়েছে। আবার হোস্টেল ভবনের জন্য ওই একই এসির মূল্য ধরা হয়েছে এক লাখ টাকা।

এসব নিয়ে আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগের মো. মাহবুবুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, একই টনের, একই মানের এসির দাম কখনো দুই ধরনের হতে পারে না। প্রকল্প পরিচালকের কার্যালয়ের জন্য এসির (২ টন) একক মূল্য ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা ধরা হলো। অথচ একই জিনিস হোস্টেলের জন্য দাম এক লাখ টাকা ধরা হলো। এটা হতে পারে না। এছাড়া আরও কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এসব ঠিক করে পরিকল্পনা কমিশনে পুনরায় প্রস্তাব করতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরকে।

তিনি আরও বলেন, শুধু এসি নয়। আমাদের চোখে আরও কিছু অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। সবকিছু প্রকল্পে উল্লেখ করা হয়েছে। এসব বিষয় সংশোধন করলেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

একই ধরনের এসির দুই ধরনের দামের বিষয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, পিইসির (প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটি) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এসির দাম ঠিক করে দেবো। পিইসির সব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রকল্পটি পুনরায় ঠিক করে দেওয়া হবে।

ওই প্রকল্পের মোট প্রস্তাবিত ব্যয় ১ হাজার ২১২ কোটি ৬৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা। জুলাই ২০২২ থেকে জুন ২০২৬ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা তুলে ধরা হয়েছে। সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। ১০টি মেডিকেল কলেজে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত ১৯টি হোস্টেল নির্মাণ করা হবে বলে প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে।

jagonews24

কততলা ভিতবিশিষ্ট কততলা ভবন নির্মাণ করা হবে তা নির্দিষ্ট না হলেও ১০টি ছাত্রী হোস্টেল এবং ৯টি ছাত্র হোস্টেল করা হবে বলে প্রকল্প প্রস্তাবনায় উল্লেখ করা হয়েছে। ১০টি হোস্টেলে ৪ হাজার ৪২৩ জন ছাত্রী এবং ৯টি ছাত্র হোস্টেলে ৪ হাজার ৫১২ জন ছাত্রের আবাসন ব্যবস্থা হবে।

হোস্টেল নির্মাণের ফলে মেডিকেল কলেজগুলোতে মোট কতজন ছাত্র-ছাত্রীর আবাসনের ব্যবস্থা হবে সে সংক্রান্ত সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য সংযোজন করা হয়নি বলে দাবি কমিশনের। প্রকল্পের আওতায় ভবন নির্মিত হবে বিধায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র গ্রহণের বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

কমিশন বলছে, প্রস্তাবিত বিভিন্ন যন্ত্রপাতির সুনির্দিষ্ট স্পেসিফিকেশনসহ উল্লেখ প্রয়োজন। প্রতিটি টিভির (৪৯ ইঞ্চি) একক মূল্য ধরা হয়েছে এক লাখ টাকা। কীসের ভিত্তিতে এই ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে তা জানতে চেয়েছে কমিশন। হোস্টেল ভবনগুলোর জন্য আসবাবপত্র খাতে ব্যয় প্রাক্কলনের ক্ষেত্রে ১৫ শতাংশ ভ্যাট অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এরও যৌক্তিকতা স্পষ্ট নয়। কারণ প্রকল্পের আওতায় মূল্য সংযোজন খাতে ১০ লাখ টাকার সংস্থান রাখা হয়েছে।

পরিকল্পনা কমিশন জানায়, ডিপিপিতে (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা) সব পৃষ্ঠায় বাস্তবায়নকারী সংস্থার স্বাক্ষর ও সিল নেই।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, বর্তমানে বিদ্যমান ৩৭টি সরকারি মেডিকেল কলেজের মধ্যে ১৩টির আবাসিক ব্যবস্থা অত্যন্ত পুরোনো ও জরাজীর্ণ। এসব মেডিকেল কলেজে প্রতি বছর ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যা বাড়লেও হোস্টেলে সিট সংখ্যা সে অনুপাতে বাড়েনি। ফলে পুরোনো ছাত্রাবাসগুলোতে প্রয়োজনীয় স্থান সংকুলান হচ্ছে না। এতে ছাত্রছাত্রীদের বসবাসের সমস্যা উত্তরোত্তর প্রকট হচ্ছে ।

jagonews24

ডিপিপি থেকে জানা যায়, প্রকল্পের আওতায় প্রস্তাবিত ১০টি মেডিকেল কলেজ বেছে নেওয়া হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, খুলনা মেডিকেল কলেজ ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। বর্তমানে এসব মেডিকেল কলেজে ছাত্র ৭ হাজার ৫৩৯ এবং ছাত্রী ৭ হাজার ৭৫৬ জন। এসব মেডিকেলে ছাত্রদের জন্য ৪ হাজার ৩২০ এবং ছাত্রীদের জন্য বিদ্যমান আসন সংখ্যা মাত্র ৪ হাজার ৫৭৪টি।

প্রকল্পের আওতায় ২ লাখ ৪০ হাজার ৩৬৬ বর্গমিটার আবাসিক ভবনে ১ হাজার ৩৪ কোটি, ৮৯টি বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদি সংগ্রহে ১১৫ কোটি ২১ লাখ, ৩১ হাজার ১৩৯টি আসবাবপত্র সংগ্রহে ৩৪ কোটি ৮৫ লাখ টাকার প্রস্তাব করা হয়েছে। ৯ হাজার ৪৯০টি নানা সরঞ্জামাদি সংগ্রহে ১ কোটি ৭৬ লাখ, একটি জিপ কেনা বাবদ ৫৭ লাখ টাকার ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে।


আরও খবর



গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, স্বজনদের দাবি হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় নুরজাহান (৩৫) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্বজনদের অভিযোগ, তাকে হত্যা করে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখেন তার স্বামী।

সোমবার (১৩ জুন) দুপুরে উপজেলার দয়াকান্দা এলাকায় নিজ ঘর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নুরজাহান দয়াকান্দা গ্রামের সুরুজ মিয়ার মেয়ে ও একই গ্রামের রফিক মিয়ার স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে রফিক মিয়া পলাতক।

নিহত নুরজাহানের ভাই মো. ডালিম জানান, প্রায় ২০ বছর আগে পারিবারিকভাবে রফিকের সঙ্গে তার বোনের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ১৭ বছরের একটি ছেলেসন্তান আছে। সম্প্রতি রফিক প্রতিবেশী এক বিবাহিত নারীর সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলেন। বিষয়টি জানতে পেরে নুরজাহান প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে রফিকের সঙ্গে তার প্রায়ই বাগবিতণ্ডা হতো। এমনকী মারধরও করতেন।

মো. ডালিম বলেন, ‘রফিক আমার বোনকে হত্যা করে ঘরের আড়ার সঙ্গে মরদেহ ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে গেছেন। আমরা তার বিচার চাই।’

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হওলাদার বলেন, ওই নারীর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। ময়নাতদন্তের পর তার মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।


আরও খবর



জমি নিয়ে বিরোধে বিএনপি নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

নড়াইলের লোহাগড়ায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে রেজাউল করিম পটু মোল্যা (৫২) নামে বিএনপি নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ।

সোমবার (১৩ জুন) বিকেল ৩ টার দিকে উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রেজাউল দিঘলিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রেজাউলের সঙ্গে প্রতিবেশী ইজাজুলদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে বিকেল ৩টার দিকে ইজাজুলসহ কয়েকজন মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পটু মোল্যাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু হেনা মিলন জাগো নিউজকে বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি শান্ত আছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর



বিএম ডিপোতে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি, জিজ্ঞাসাবাদ ও তথ্য সংগ্রহ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
Image

সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনা তদন্তে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেলে কমিটির আহ্বায়ক চট্টগ্রাম জেলার স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক বদিউল আলমের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের তদন্ত দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় ডিপোর বিভিন্ন সদস্য ও সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

পরিদর্শনকালে তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল করিম, সীতাকুণ্ডের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাহাদাত হোসেন, শিল্প পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মো. জসীম উদ্দিন, চট্টগ্রাম জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা সজীব কুমার চক্রবর্তী, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক আবদুল্লাহ আল সাকিব মুবাররাত, পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম জেলার উপ-পরিচালক ফেরদৌস আনোয়ার, চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন সিকদার এবং চট্টগ্রামের বিস্ফোরক পরিদর্শক মো. তোফাজ্জল হোসেন।

এদিন কমিটির আহ্বায়কের কার্যালয়ে তদন্ত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তদন্ত কমিটি ডিপোর কর্মকর্তা কর্মচারীদের বক্তব্য রেকর্ড করে আগুনের সূত্রপাত অনুসন্ধানের চেষ্টা করে। এছাড়াও কেমিক্যাল কনটেইনার এবং গার্মেন্টস পণ্যসহ অন্যান্য পণ্যবাহী কনটেইনারের তালিকা ও রপ্তানিকারকদের বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে।

কমিটি প্রধান বদিউল আলম জানান, ঘটনার প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন বিভাগের শিক্ষকসহ বিশেষজ্ঞদের মতামত সংগ্রহ করবেন। ডিপো কর্তৃপক্ষকে বেশ কিছু কাগজপত্র সরবরাহ করার জন্য এরইমধ্যে তদন্ত কমিটি নির্দেশনা দিয়েছে।

গত শনিবার দিনগত রাতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার প্রায় ৬১ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

আগুনে পুড়ে এখন পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যসহ নিহত হয়েছেন ৪৬ জন। ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ সদস্য, ডিপোর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকসহ দুই শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় চট্টগ্রামের ফায়ার সার্ভিস ৫ সদস্যের ও জেলা প্রশাসন ৯ সদস্যের পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করে।


আরও খবর



আবিদ আনোয়ারের জন্ম ও আব্দুল মতিনের প্রয়াণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

২৪ জুন ২০২২, শুক্রবার। ১০ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা
৬৫৬- খলিফা হযরত ওসমান (রা.)’র হত্যাকাণ্ডের পর হযরত আলী (রা.) চতুর্থ খলিফা নির্বাচিত।
১৭৬৩- ব্রিটিশ সৈন্যরা মুর্শিদাবাদ দখল করে মীর জাফরকে বাংলার নবাব নিযুক্ত করে।
১৮৭০- অস্ট্রেলীয় কবি অ্যাডাম গর্ডন আত্মহত্যা করে।
১৯৭৫- মোজাম্বিকের স্বাধীনতা লাভ।
২০০২- আফ্রিকার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়ংকর রেল দুর্ঘটনা ঘটে তাঞ্জানিয়ায়। ২৮১ জন মারা যায়।

জন্ম
১৯৪২- বাংলাদেশি স্থপতি বশিরুল হক।
১৯৫০- বাংলাদেশি কবি, প্রাবন্ধিক, গল্পকার, গীতিকার, ও মুক্তিযোদ্ধা আবিদ আনোয়ার। কিশোরগঞ্জের চর আলগী গ্রামে জন্ম তার। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ভারতের বিহারে অবস্থিত চাকুলিয়া ক্যাম্প থেকে বিশেষ কমান্ডো হিসেবে প্রশিক্ষণ নিয়ে ৩ নম্বর সেক্টরের অধীনে মুক্তিযুদ্ধ করেন। কিশোরগঞ্জ এলাকায় ধূলদিয়া রেলসেতু অপারেশন এবং ভাঙা সেতুর পাড়ে পরবর্তী যুদ্ধ পরিচালনায় তিনি প্রভূত সাফল্য প্রদর্শন করেন। বাংলা কবিতায় অবদানের জন্য ২০১২ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পান এই কবি। তিনি রাষ্ট্রপতি পদকও লাভ করেন।
১৯৫৩- মার্কিন ভৌত রসায়নবিজ্ঞানী, নোবেল পুরস্কার বিজয়ী উইলিয়াম এসকো মোয়ের্নার।
১৯৮৭- আর্জেন্টিনীয় ফুটবলার লিওনেল মেসি।

মৃত্যু
১৯৮১- শিক্ষাবিদ ও গবেষক আব্দুল মতিন চৌধুরী। ১৯২১ সালের ১ মে লক্ষ্মীপুর জেলার নন্দনপুর গ্রামে জন্ম তার। ১৯৪৯ সালে শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়ুমণ্ডলীয় পদার্থবিজ্ঞানে পিএইচ.ডি. ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি দ্বিতীয়বার পিএইচডি শেষ করেছেন ১৯৬১ সালে। পাকিস্তান আবহাওয়া বিভাগে আবহাওয়াবিদ হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। ১৯৭০-১৯৭১ সাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি এশীয় অঞ্চলে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কারের জন্য বাছাই কমিটির সদস্য ছিলেন।

১৯৮৬- ইংরেজ ঔপন্যাসিক ও ঐতিহাসিক রেক্স ওয়ার্নার।
১৯৮৭- মার্কিন কৌতুকাভিনেতা, অভিনেতা, লেখক, সুরকার ও সংগীত নির্দেশক জ্যাকি গ্লিসন।
১৯৮৭- ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার হাইঞ্জ জনসন।


আরও খবর