Logo
শিরোনাম

পাকিস্তানি শেফের বিরুদ্ধে বাংলাদেশি শামীমকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

একই রেস্তোরাঁয় কর্মরত ওয়েটার শামীমকে হত্যার অভিযোগে পাকিস্তানি শেফ মুহাম্মাদ আবিদের (২৬) বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে মালদ্বীপের প্রসিকিউটর জেনারেলের কার্যালয়। তার বিরুদ্ধে ধারালো অস্ত্র ব্যবহার করে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

প্রসিকিউটর অফিস সূত্রের বরাত দিয়ে মালদ্বীপ একটি স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, গত বুধবার (১৫ জুন) ফৌজদারি আদালতে এ সংক্রান্ত কাগজপত্র দাখিল করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, শামীম নামে একজন বাংলাদেশিকে গত ১৬ এপ্রিল হুলোহুলো মালের একটি জনপ্রিয় রেস্তোরাঁ খানজিতে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। সেখানে তিনি ওয়েটার হিসেবে কাজ করতেন।

পরে আহতাবস্থায় তাকে হুলোহুলো মালে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করেছেন তার মাথা, ঘাড় ও পায়ে ছুরিকাঘাতের ক্ষত পেয়েছেন। পরিবারের অনুরোধে শামীমের মরদেহ বাংলাদেশে পাঠানো হয়।

রেস্তোরাঁর কর্মচারীরা পুলিশকে জানান, ইফতারের জন্য খাবার তৈরি করার সময় মতবিরোধের কারণে শামীমকে হত্যা করা হয়েছিল। হামলার পর আবিদ ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

১৭ এপ্রিলের ভোররাতে হুলোহুলো মালের ফেজ ২- এর সমুদ্র সৈকত এলাকায় এক ঘণ্টা দীর্ঘ অনুসন্ধানের পরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে মালদ্বীপ পুলিশ অভিযুক্ত পাকিস্তানির ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে জানান, তাকে কোথাও দেখা গেলে পুলিশ কন্ট্রোল ১১৯ নম্বরে কল করার জন্য।


আরও খবর



সিরিজ খুইয়ে শেষ ম্যাচে এসে জিতলো অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

আগের ম্যাচেই অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দিয়ে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। ২৫৮ রান করেও ম্যাচ জিতে নিয়েছিল তারা মাত্র ৪ রানের শ্বাসরূদ্ধকর এক জয়ে। সিরেজের পঞ্চম এবং শেষ ম্যাচে এসে কম রান করেও জয়ের প্রায় কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা।

কিন্তু পুঁজি এত কম ছিল যে, শেষ পর্যন্ত আর পারেনি। ৪ উইকেটে ম্যাচ হারতে হয়েছে তাদের। লঙ্কানদের করা মাত্র ১৬০ রানের চ্যালেঞ্জ টপকাতে ৬ উইকেট হারাতে হয়েছে অসিদের।

শেষ পর্যন্ত ৩৯.৩ ওভারে ৪ উইকেটের ব্যবধানে জয় তুলে নিতে পেরেছে অস্ট্রেলিয়া। অ্যালেক্স ক্যারে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন। মার্নাস ল্যাবুশেন করেন ৩১ রান। ২৫ রানে অপরাজিত থাকেন ক্যামেরন গ্রিন। মিচেল মার্শ করেন ২৪ রান।

১৬১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অ্যারোন ফিঞ্চের উইকেট হারিয়ে বসে। ফিঞ্চ আউট হন শূন্য রানে। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়লেও লক্ষ্য বড় না হওয়ায় জয় পেয়ে যায় তারা।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪৩.১ ওভারে ১৬০ রান করে অলআউট হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। শীর্ষ ব্যাটাররা সবাই ব্যর্থ হওয়ার পর লোয়ার মিডল অর্ডারে চামিকা করুনারত্নে জ্বলে ওঠেন। ৭৫বলে তিনি খেলেন ৭৫ রানের ইনিংস। তার ব্যাটে ভর করেই ১৬০ রান সংগ্রহ করে লঙ্কানরা। ২৬ রান করেন কুশল মেন্ডিস।

ম্যাচ হেরে গেলেও সেরার পুরস্কার ওঠে চামিকা করুনারত্নের হাতে এবং সিরিজ সেরার পুরস্কার ওঠে কুশল মেন্ডিসের হাতে। ৫ ম্যাচের সিরিজ নিষ্পত্তি হলো ৩-২ ব্যবধানে।


আরও খবর



পাকিস্তানে তিন মাসে চারবার বাড়লো জ্বালানি তেলের দাম

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২৪জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানে আবারও বাড়ানো হলো পেট্রল, ডিজেল, কেরোসিনের দাম। ১ জুলাই থেকে দেশটিতে জ্বালানি তেল কিনতে লিটারপ্রতি ১৪ থেকে ১৮ রুপি বেশি দিতে হবে জনগণকে। গত এপ্রিলে শাহবাজ শরিফ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে এ নিয়ে চারবার বাড়ানো হলো জ্বালানি তেলের দাম।

পাকিস্তানি অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ১ জুলাই (শুক্রবার) থেকে দেশটিতে পেট্রলের দাম লিটারপ্রতি ১৪ রুপি ৮৫ পয়সা বেড়ে ২৪৮ রুপি ৭৪ পয়সা হয়েছে। হাই স্পিড ডিজেলের দাম এখন থেকে লিটারপ্রতি ২৭৬ রুপি ৫৪ পয়সা, বাড়ানো হয়েছে ১৩ রুপি ২৩ পয়সা। কেরোসিনের দাম সর্বোচ্চ ১৮ রুপি ৮৩ পয়সা বেড়ে প্রতি লিটার বিক্রি হচ্ছে ২৩০ রুপি ২৬ পয়সায়।

গত ১১ এপ্রিল শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বে জোট সরকার ক্ষমতাগ্রহণের পর থেকে পাকিস্তানে চার দফায় পেট্রলের দাম লিটারপ্রতি ৮৪ রুপি বাড়ানো হলো। প্রথমবার গত ২৬ মে পেট্রলের দাম একলাফে ৩০ রুপি বাড়ায় তার সরকার। এর এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই গত ২ জুন বাড়ানো আরও ৩০ রুপি। এরপর গত ১৫ জুন লিটারপ্রতি ২৪ রুপি বাড়ে পেট্রলের দাম। আর এবার বাড়লো আরও প্রায় ১৫ রুপি।

পাকিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বিগত সরকারের নেওয়া বেশ কিছু কর্মসূচি তারা আবার শুরু করেছে। আর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বাড়ছে। তাই তাদেরও দাম বাড়াতে হচ্ছে।

পাকিস্তানি অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল এক সাংবাদিক সম্মেলনে দাবি করেছেন, ইমরান খানের সরকার প্রতি মাসে পেট্রোপণ্যের দাম লিটারপ্রতি চার রুপি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু তারা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলকে (আইএমএফ) দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে এ খাতে ভর্তুকি দেয়। এতে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আরও চাপের মুখে পড়ে।

তিনি জানিয়েছেন, অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে আইএমএফের সঙ্গে কথাবার্তা অনেক দূর এগিয়েছে। সংস্থাটির কাছ থেকে আর্থিক সাহায্য পাওয়ার ব্যাপারে তারা আশাবাদী।

সূত্র: জিও টিভি


আরও খবর



হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে খুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

সাড়ে তিন বছর আগের হত্যার জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় খুন হলেন আশিকুর রহমান অপু (৩৫)। মঙ্গলবার (৭ জুন) সকালে যশোর শহরের খালধার রোড এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহত অপু মিয়া খালধার রোড এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে। অপুর বিরুদ্ধে হত্যাসহ ৭টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর শহরের বড়বাজার মাছ বাজার এলাকায় পাপ্পু হোসেন বাবু (১৮) হত্যাকাণ্ডে অপু জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ওই ঘটনার জের ধরে পাল্টা এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটলো বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

যশোর পুলিশের মুখপাত্র পুলিশ পরিদর্শক রূপণ কুমার সরকার জানান, মঙ্গলবার সকালে অপু রিকশায় বড়বাজার যাওয়ার পথে আমিনিয়া আলিয়া মাদরাসার সামনে পৌঁছালে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। ঢাকায় নেওয়ার পথে ফরিদপুরের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে অপু মারা যান।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের চিকিৎসক তানভীর আহম্মেদ জানান, অপুর শরীরে ধারালো অস্ত্রের অসংখ্য আঘাত রয়েছে। গলার অনেকাংশ কাটা। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক হওয়ায় ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছিল।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর শহরের বড়বাজার মাছ বাজার এলাকায় হত্যাকাণ্ডের শিকার হন পাপ্পু হোসেন বাবু (১৮)। শহরতলীর শেখহাটি বাবলাতলা এলাকার জলিল উদ্দিনের ছেলে বাবু’র মাছ বাজারের পাশে মোবাইল ফোনের রিচার্জের দোকান ছিল। টাকা বাকি রাখা নিয়ে বিরোধে অপুসহ তার তিন সহযোগী ছুরিকাঘাত করে পাপ্পুকে হত্যা করেন।


আরও খবর



নিজের এক মাসের বেতন বন্যার্তদের দিলেন মুশফিক

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যার কবলে সিলেট-সুনামগঞ্জ। সেখানে দেখা দিয়েছে মানবিক সংকট। আপাতত বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটলেও মানুষের অবর্ণনীয় কষ্ট এখনও শেষ হয়নি। ত্রাণ ও খাদ্য-পানীয়ের সংকট রয়েই গেছে।

এমতাবস্থায় দেশের নানা প্রান্ত থেকে যে যার সাধ্যমতো সিলেট-সুনামগঞ্জবাসীর পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করছেন। বাদ যাননি মুশফিকুর রহিমও। জাতীয় দলের তারকা এই ক্রিকেটার নিজের এক মাসের পুরো বেতন বন্যার্তদের সহযোগিতায় ব্যয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

মুশফিকের খুব ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জাগো নিউজকে জানিয়েছে, পারিবারিক দরকারে কলকাতায় গিয়েছিলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবলখ্যাত এই ক্রিকেটার। সেখানে থাকা অবস্থায়ই তিনি নিজের এক মাসের বেতন বন্যার্তদের দিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে মনস্থ করেন।

বর্তমানে বিসিবির কাছ থেকে মাসে ৮ লাখ টাকা বেতন পান মুশফিক। ট্যাক্স এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে কাটা যায় ২৫ ভাগ। বাকি ৬ লাখ টাকা বন্যার্তদের সহযোগিতায় দিচ্ছেন মুশফিক।

মানবিক কাজে মুশফিকের অংশগ্রহণ নতুন কিছু নয়। এর আগে করোনার সময় নিজে দান করার পাশাপাশি নিজের ব্যাটও নিলামে তুলতে দেখা গিয়েছিল তাকে। এছাড়াও মুশফিক নিজের অর্গানাইজেশন ‘এমআর ১৫’ থেকেও সাহায্য করে থাকেন।

আপাতত ছুটিতে আছেন মুশফিক। পবিত্র হজব্রত পালন করবেন বলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাননি। মুশফিকের ঘনিষ্ঠ সূত্রটি জানিয়েছে, আগামী ১ জুলাই হজে যাবেন এই ক্রিকেটার। তবে তার সঙ্গে কেউ থাকবেন না। একাই যাবেন মুশফিক।


আরও খবর



বিএনপি ঠিকমতো বাজেট পড়েওনি: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

বিএনপি বাজেট না পড়েই বিবৃতি দিয়ে দেয় বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, বিএনপি ঠিকমতো বাজেট পড়েওনি। আগের দিনই বাজেট প্রতিক্রিয়ার বিবৃতি লিখে রাখে তারা।

রোববার (১২ জুন) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘শেখ হাসিনা ও ঘুরে দাঁড়ানোর বাংলাদেশ’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, কিছু চিহ্নিত ব্যক্তিবিশেষ ও সংগঠন প্রশংসা না করলেও বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ ও জাতিসংঘ প্রশংসা করে। আমাদের এই ব্যক্তিবিশেষরা প্রশংসা করতে পারে না। এটা তাদের চিন্তার দৈন্যতা।

প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকার টানা ১৪তম বাজেট পেশ করেছে। এর আগে ১৩টি বাজেট পেশ করেছে। যখনই বাজেট পেশ করা হয় তখনই বিএনপি, কিছু চেনা মুখ, কিছু চেনা সংগঠন, অর্থনীতিবিদ বলে যারা নিজেদের পরিচয় দেন, তারা সবসময় বাজেট নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করেন। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে এই গত সাড়ে ১৩ বছরে বাংলাদেশের বাজেটের আকার ৮ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা যে বাজেট পেয়েছিলাম সেটি ৮০ হাজার কোটি টাকার কম ছিল। বর্তমানে সে বাজেট গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা।

তিনি বলেন, গত সাড়ে ১৩ বছরে মানুষের মাথাপিছু আয় ৬০০ ডলার থেকে ২ হাজার ৮২৪ ডলারে উন্নীত হয়েছে। মাথাপিছ আয় প্রায় ৫ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। দারিদ্র্যের হার ২০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। অতিদারিদ্র্যের হার ১০ শতাংশে নেমে এসেছে। এটি হচ্ছে বাস্তবতা। তাদের এই নেতিবাচক কথাবার্তা প্রতিবার বাজেটের পর করে আসছে। একবারও দেখলাম না তারা প্রশংসা করেছে। খুব যৎসামান্য যেটা না করলেই নয় সেটা কেউ কেউ করেছেন। কিন্তু চিহ্নিত কিছু ব্যক্তিবিশেষ, প্রতিষ্ঠান, সংগঠন এবং বিএনপি ও তার মিত্ররা কখনো বাজেটের প্রশংসা করেনি। তাহলে সাড়ে ১৩ বছরে দেশ এগিয়ে গেলো কেমনে?

মূল্যস্ফীতি নিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, করোনা মহামারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর ইউরোপের অনেক দেশে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে। আমেরিকাতে মূল্যস্ফীতি হয়েছে, তুরস্কতে ২০ শতাংশের বেশি। এটা জানার জন্য খুব বেশিদূর যেতে হয় না। গুগুলে সার্চ দিলেই সব তথ্য পাওয়া যায়। তাদের এত বড় বড় ডিগ্রিধারী, অর্থনীতিবিদ, বড় বড় নেতা তারা তো গুগুলে গিয়ে সার্চ করলেই পারে কোন দেশের মূল্যস্ফীতি কত। বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতি সেসব দেশের তুলনায় কম। সেটা তো সহজেই দেখা যায়। এরপরও মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য সবসময় তারা বক্তব্য দিয়ে আসছে।

মন্ত্রী বলেন, এই বাজেট হচ্ছে গরিববন্ধব বাজেট। ৯০ হাজার কোটি টাকার কাছাকাছি ভর্তুকি দেওয়া হয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তার জন্য বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে, সেটা কার জন্য? বড় লোকের জন্য না, সেটা গরিবের জন্য। বিদ্যুৎ, গ্যাস ও কৃষিতে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে গরিব মানুষের জন্য। সেগুলো না বলে গৎবাঁধা কথা, মুখস্ত কথা...।

‘গত ১০ বছরের বাজেট প্রতিক্রিয়ায় সিপিডি একটিবারও বাজেটের প্রশংসা করতে পারেনি। আর বিএনপি তো আগেই বিবৃতি লিখে রাখে কী বলবে। বিশেষ করে তারা আগের দিনই বিবৃতি লিখে রাখে। বাজেট তো তারা ঠিকমতো পড়েওনি। না পড়েই বিবৃতি দিয়ে দেয়। আমাদের সরকার মানুষের জন্য বাজেট করে। সে কারণেই দেশটা এগিয়ে গেছে, দারিদ্র্য কমেছে, বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে।’


আরও খবর