Logo
শিরোনাম

সাংবাদিক নেতা সোহেল হায়দারের বাবা মারা গেছেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৩জন দেখেছেন
Image

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী ও দেশ রূপান্তর পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার পাভেল হায়দার চৌধুরীর বাবা এহতেশাম হায়দার চৌধুরী মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

মঙ্গলবার (১০ মে) সকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়। তিনি তিন ছেলে ও দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

ছেলে পাভেল হায়দার চৌধুরী জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের নিজ বাড়িতে তিনি ইন্তেকাল করেন। আমার বাবা ঢাকাতেই আমাদের সঙ্গে বসবাস করতেন। কিন্তু ঈদের সময় তিনি বাড়িতে গিয়ে আর ঢাকায় আসেননি। তার জানাজা বাদ আছর জানজা নিজ গ্রামের বাড়িতে অনুষ্ঠিত হবে।

তার মৃত্যুতে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি বাসসের উপ-প্রধান বার্তা সম্পাদক ওমর ফারুক ও মহাসচিব নাগরিক টিভির বার্তা প্রধান দীপ আজাদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ)সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু এবং সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাসিবসহ সাংবাদিক নেতারা শোক প্রকাশ করেছেন।


আরও খবর



ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ১৫

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত থেকে ২২৮ পিস ইয়াবা, ২৫০ গ্রাম গাঁজা, ২০টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন ও ৪ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধারমূলে জব্দ করা হয়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এর নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে সোমবার (০২ মে) সকাল ছয়টা থেকে মঙ্গলবার (০৩ মে) সকাল ছয়টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতারসহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ১১টি মামলা রুজু হয়েছে।


আরও খবর



ছাত্রলীগের সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হয়নি

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সম্মেলনের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

শনিবার (১৪ মে) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে বের হয়ে জাগো নিউজকে তারা এ তথ্য জানান।

তারা বলেন, সম্মেলনের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হলে নেত্রী (আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা) জানাবেন। নেত্রী যেদিন তারিখ দেবে সেদিন সম্মেলন হবে।

অনেকেই সম্মেলনের কথা বলছেন, এ ধরনের প্রচার সম্পর্কে তাদের অবস্থান জানতে চাইলে তারা বলেন, সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হলে আমরা অফিসিয়ালি বিবৃতি দেবো। এখনো সম্মেলনের কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা নিয়ে এখন অফিসিয়াল বিবৃতি দেওয়ার কিছু নেই। যখন সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হবে, আমরা সম্মেলনের প্রস্তুতি নেবো, সেসব কার্যক্রম শুরুর আগেই অফিসিয়াল বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেবো।

jagonews24

সম্মেলনের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যে বক্তব্য দিয়েছেন, সে বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, তিনি যা জানিয়েছেন, আপনারা (সাংবাদিকরা) তা ভুলভাবে উপস্থাপন করেছেন। তিনি (ওবায়দুল কাদের) আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি। সামনে যেহেতু আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে, সেহেতু আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আগে সব সহযোগী সংগঠন যেগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ, নেত্রীর সঙ্গে কথা বলে সেগুলোর তারিখ নির্ধারণ করে সম্মেলনের আয়োজন করতে বলা হয়েছে। কবে সম্মেলন হবে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি তিনি।

‘এটাকে অনেকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করছেন। বিশেষ করে স্বার্থান্বেষী মহল ও তাদের কিছু পেইড সাংবাদিক, তারা এ কাজটা করছেন।’ যোগ করেন তারা।


আরও খবর



অনুমোদনহীন জ্যামার-বুস্টার বন্ধে মাঠে রয়েছে বিটিআরসি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৭জন দেখেছেন
Image

রাজধানীতে অনুমোদনহীন জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটার বিক্রয় ও ব্যবহার বন্ধে যৌথভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ লক্ষ্যে ১৮ এপ্রিল থেকে ১৫ মে পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায় বিটিআরসির এনফোর্সমেন্ট অ্যান্ড ইন্সপেকশন টিম ও র‌্যাব। এ সময় রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট থেকে বিপুল পরিমাণ অনুমোদনহীন জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটারসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়।

সম্প্রতি বিটিআরসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ১৮ এপ্রিল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম মার্কেটের রহিম ইলেকট্রনিক্স, তেজকুনি পাড়ার মধুমতি ইনকিউবেটর অ্যান্ড ইলেকট্রিক এবং এলিফ্যান্ট রোডস্থ মাল্টিপ্ল্যান কম্পিউটার সিটি সেন্টারের ফেমাস ভিশন লিমিটেড নামক প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেসময় ওই দোকানগুলো থেকে আটটি জ্যামার, ৩০টি বুস্টার এবং একটি রিপিটার জব্দ করা হয়। একইসঙ্গে অবৈধ টেলিযোগাযোগ সামগ্রী বিক্রির অপরাধে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ বিষয়ে রাজধানীর পল্টন এবং তেজগাঁও থানায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০০১ এর বিধান অনুযায়ী পৃথক দুইটি মামলা হয়েছে।

এরপর গত ১৫ মে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় আইটিস্টলডটকমবিডি এবং ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অবৈধ জ্যামার, বুস্টার এবং রিপিটার বিক্রি রোধে অভিযান চালায় বিটিআরসি ও র‌্যাব। ওই অভিযানে চারটি জ্যামার, তিনটি বুস্টার, চারটি এসি অ্যাডাপটর, ২৪ টি জ্যামার অ্যান্টেনা, পাওয়ার ক্যাবল বুস্টারের ৯টি আউটডোর অ্যান্টেনা, বুস্টারের ২৪টি ইনডোর অ্যান্টেনা, ৩৭টি বুস্টারের ক্যাবল ও একটি ল্যাপটপ জব্দ করা হয়। এ সময় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়। এ বিষয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০০১ এর বিধান অনুযায়ী মামলা করা হয়েছে।

এছাড়া, নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে গত ২০ ও ২৫ মার্চ এবং ১১ মে বিটিআরসির পরিদর্শকদল অনলাইন মার্কেট প্লেস দারাজ, বিডিস্টলডটকম, এবং ক্লিকবিডি লিমিটেডের অফিস পরিদর্শন করে। পরিদর্শনকালে এসব প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট/অ্যাপ থেকে এসব অবৈধ জ্যামার, বুস্টার, রিপিটার এবং বিটিআরসির অনুমোদনহীন বেতার যন্ত্রপাতি বিক্রয়কারী ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানকে ব্লক করে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপনসমূহ অপসারণ করা হয়। একইসঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন পেজ, লিংক এবং গ্রুপসমূহে এধরনের কোনো বিজ্ঞাপন পাওয়া গেলে তা অপসারণ করা হচ্ছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি কমিশন কর্তৃক প্রতীয়মান হয়েছে যে, বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অবৈধভাবে জ্যামার স্থাপন করা হয়েছে। যার ফলে ওই ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের আশপাশের আবাসিক ভবন, স্কুল, হাসপাতাল এবং অন্যান্য জরুরি সেবা কেন্দ্রসমূহের মোবাইল নেটওয়ার্ক বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ অবস্থায় এভাবে জ্যামার ব্যবহার থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছে বিটিআরসি। একইসঙ্গে জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, টিভির স্ক্রলে এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রচারসহ কমিশনের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের মাধ্যমে জ্যামার, বুস্টার ও রিপিটার ক্রয়/বিক্রয়/স্থাপন/ব্যবহার হতে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিটিআরসির নিয়মিত নজরদারি এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সক্রিয় তথ্যের ভিত্তিতে এ ধরনের অভিযান ও অনলাইন প্ল্যাটফর্ম মনিটরিং অব্যাহত রয়েছে। জনসাধারণকে এসব অবৈধ জ্যামার, বুস্টার, রিপিটার এবং বিটিআরসির অনুমোদনহীন বেতার যন্ত্রপাতি ক্রয়/বিক্রয় এবং ব্যবহার হতে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। অন্যথায় কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও সতর্ক করেছে বিটিআরসি।


আরও খবর



‘আলেমদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে’

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

আলেমদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে সমাজে বিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ।

সোমবার (১৬ মে) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন সংগঠনটির সভাপতি নুরুল হুদা ফয়েজী।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বিতর্কিত সংগঠন ঘাদানিক, জাতীয় সংসদের আদিবাসী ও সংখ্যালঘু বিষয়ক ককাসের উদ্যোগে গঠিত ‘বাংলাদেশে মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস’ তদন্তে ‘গণ কমিশন’ নামে একটি কথিত কমিশন একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে। ‘বাংলাদেশে মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের দুই হাজার দিন’ শীর্ষক কথিত শ্বেতপত্রটি গত ১২ মার্চ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোড়ক উন্মোচন করেছেন। এর দুইমাস পরে গত ১২ মে দুপুর ১২টায় এই শ্বেতপত্রটি দুদক চেয়ারম্যানের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

নুরুল হুদা ফয়েজী বলেন, শ্বেতপত্র প্রকাশের সঙ্গে জড়িতদের ভাষ্যমতে, এখানে ১১৬ জন আলেম ও এক হাজার মাদরাসা সম্পর্কে তথ্য দেওয়া হয়েছে। দেশের শীর্ষস্থানীয় ১১৬ জন আলেমের নাম উল্লেখ করে তাদের ধর্ম ব্যবসায়ী বলে অভিহিত করা হয়েছে এবং তাদের ভাষ্যমতে, ধর্ম ব্যবসায়ীদের অপরাধের বিবরণ তুলে ধরা হয়েছে।

‘এই শ্বেতপত্র জনসাধারণে প্রকাশ করা হয়নি। ফলে এই বিষয়ে আমাদের নির্ভর করতে হয়েছে তাদের মিডিয়ায় ব্রিফিং থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ওপরে। যদি তাদের উদ্দেশ্য সৎ হতো তাহলে শ্বেতপত্র জনসম্মুখে প্রকাশ করতো। কথিত শ্বেতপত্র নিয়ে তাদের একধরনের লুকোচুরি প্রমাণ করে যে, তারা সারবত্তাহীন অভিযোগপত্র নিয়ে নাগরিকদের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, তাদের কথিত শ্বেতপত্র বানানো হয়েছে জনসম্পৃক্ত উলামাদের নিয়ে। যারা দেশব্যাপী ওয়াজ-মাহফিলের মাধ্যমে মানুষকে ইসলামের দিকে আহ্বান করেন। ওয়াজ হলো, জনসাধারণের চরিত্র ও ধারণ ক্ষমতা অনুসারে ইসলামের নির্দেশনা ও পরকালের শাস্তি এবং প্রাপ্তি নিয়ে এক ধরনের আলোচনা। ওয়াজ কোনো একাডেমিক আলোচনা নয়।

সংবাদ সম্মেলন থেকে দেশের ওলামায়ে কেরাম ও নাগরিক সমাজের পক্ষে আটটি দাবি তুলে ধরা হয়।

দাবিগুলো হলো-

১. যারা কথিত শ্বেতপত্র প্রকাশের মাধ্যমে দেশের সম্মানিত আলেমদের সম্মানহানি করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

২. যারা বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সংঘাতের দেশ হিসেবে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উপস্থাপন করে দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে চায়, তাদের কার্যক্রমকে তদন্তের আওতায় আনতে হবে ও তাদের গতিবিধিকে গোয়েন্দা নজরদারির আওতায় আনতে হবে।

৩. যারা মাঠ প্রশাসনের এবং পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের নামে উদ্দেশ্যমূলক অবৈধ তৎপরতা চালিয়েছে, তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

৪. দেশের সম্মানিত আলেমদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

৫. কারাবন্দি সব মজলুম আলেমদের অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে।

৬. ওয়াজ মাহফিল নিছক একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠান। তাই সারাদেশে ওয়াজ মাহফিল সব প্রশাসনিক বিধি নিষেধের আওতামুক্ত রাখতে হবে।

৭. সারাদেশের আলেম ওলামা ও মাদরাসার বিরুদ্ধে সব প্রকার হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

৮. আল্লাহ ও রসূল (স.) ধর্মীয়-রাজনৈতিক ও সামাজিক সম্মানীয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মানহানিকর শব্দের ব্যবহার নিষিদ্ধে আইন করতে হবে এবং যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে ও তার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।


আরও খবর



‘অশনি’র প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা কম

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫২জন দেখেছেন
Image

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়াবিদরা আগেই সতর্ক করেছিলেন যে, শক্তি হারিয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে ‘অশনি’। এমনটাই হয়েছে। অনেকটাই দুর্বল হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে এটি। আগামী ২৪ ঘণ্টায় এটি একটি নিম্নচাপে পরিণত হবে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।

ঘূর্ণিঝড় উপকূলে আসলেও মাটিতে সেটি আছড়ে পড়বে না বলে পূর্বাভাস দিয়েছে ভারতের আবহাওয়া দপ্তর। তারা বলছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশা উপকূলবর্তী অঞ্চলে বৃষ্টি হবে, উত্তাল হবে সমুদ্র। পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি জেলায় ভারি বৃষ্টিপাত ছাড়া তেমন কোনো প্রভাব পড়বে না বলেও জানানো হয়।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরের ওপর সৃষ্টি হওয়া প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘অশনি’ গত ৬ ঘণ্টায় ১২ কিলোমিটার গতিবেগে পশ্চিম-উত্তর-পশ্চিম দিকে এগিয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে।

এটি আগামী কয়েক ঘণ্টায় সম্ভবত উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলের কাছে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে পৌঁছাবে। এরপর উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

পরবর্তীতে মাছিলিপত্তনম, নরসাপুর, ইয়ানাম, কাকিনাদা, টুনি এবং বিশাখাপত্তনম উপকূল বরাবর অগ্রসর হবে। বুধবার সন্ধ্যায় তা উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে পৌঁছালে এটি উত্তর-পূর্ব দিকে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের দিকে অগ্রসর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে ‘অশনি’ দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হবে।


আরও খবর