Logo
শিরোনাম

স্ত্রীসহ দুই মেয়েকে হত্যা: আত্মহত্যা চেষ্টাকালে সেই চিকিৎসক আটক

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ১৫৯জন দেখেছেন
Image

মানিকগঞ্জের ঘিওরে স্ত্রীসহ দুই মেয়েকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগে দন্ত চিকিৎসক আসাদুজ্জামান রুবেলকে (৪০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন তিনি। ঋণগ্রস্ত হওয়ায় ও মানিসক হতাশা থেকে এই হত্যাকাণ্ড বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঘিওর উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের আঙ্গুরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রোববার (৮ মে) সকালে পুলিশ মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

নিহতরা হলেন, আসাদুজ্জমান রুবেলের স্ত্রী লাভলী আক্তার (৩৫), বড় মেয়ে বানিয়াজুরী সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছোঁয়া আক্তার (১৬) ও ছোট মেয়ে বানিয়াজুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী কথা আক্তার (১২)।

ঋণগ্রস্ত হওয়ার কারণে রুবেল স্ত্রী ও দুই মেয়েকে হত্যা করেছেন বলে দাবি প্রতিবেশী ও পুলিশের। ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বিপ্লব জানান, উপজেলার আঙ্গুরপাড়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে আসাদুজ্জামান রুবেল রোববার ভোরে তার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে গলা কেটে হত্যা করে। তিনি উপজেলার বানিয়াজুরী বাসস্ট্যান্ডে দন্ত চিকিৎসক হিসেবে হিসেবে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে আসছেন।

স্ত্রীসহ দুই মেয়েকে হত্যা: আত্মহত্যার সময় সেই চিকিৎসক আটক

রুবেলের প্রতিবেশী সোহেল হোসেন জানান, ২০ বছর আগে রুবেল ও লাভলী ভালোবেসে ঘর বাঁধেন। দীর্ঘদিন যাবত তারা সুখে শান্তিতে সংসার করে আসছিলেন। ১৫ বছর যাবত রুবেল আঙ্গুরপাড়ায় একই গ্রামে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে পাওয়া জমিতে একটি ছাপড়া ঘরে বসবাস করে আসছিলেন। কিন্তু বেশ কিছুদিন যাবত তিনি ঋণগ্রস্ত হয়ে মানসিক বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এ নিয়ে পারিবারিক কলহ বাড়তে থাকে। শনিবার রাতে তাদের মাঝে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এমন ঘটনা ঘটতে পারে।

লাবনীর ভাতিজা সাইফুল ইসলাম জানান, রুবেল বানিয়াজুরী বাজারের দন্ত চিকিৎসক হিসেবে কাজ করতেন। সম্প্রতি একটি ভুল চিকিৎসায় তাকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। ওই জরিমানার টাকা আজ রোববার দেওয়ার কথা ছিলো। এ নিয়ে তিনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। স্ত্রী ও দুই কন্যাকে হত্যা করে তিনি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাটুরিয়া এলাকায় বাসের নিচে পড়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টাও করেছিলেন। তাকে আহত অবস্থায় পাটুরিয়া থেকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

লাবনী আক্তারের মা হালিমা বেগম বলেন, সকালে প্রাতভ্রমণ শেষে মেয়ের বাড়িতে যাই। এ সময় ডাকাডাকি করেও কারো কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। পরে ঘরের বাইরের ছিকল খুলে দেখি রক্ত। খাটে শুয়ে আছে মেয়ে লাবনী ও দুই নাতনি। তাদের ডাক দিলেও কোনো সাড়া না দেওয়ায় ধাক্কা দিয়ে দেখি তাদের গলা কাটা।

স্থানীয় বালিয়াখোড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আওয়াল খান বলেন, রুবেল অনেক টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। যার দরুন এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলে তিনি ধারণা করেন।

স্ত্রীসহ দুই মেয়েকে হত্যা: আত্মহত্যার সময় সেই চিকিৎসক আটক

শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরজাহান লাবনী বলেন, স্থানীয়দের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেখতে পাওয়া যায় একটি ঘরে মা ও দুই মেয়েকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। যে দা দিয়ে গলা কাটা হয়েছে সেটিও ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়।

ঘিওর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজুদ্দিন আহমেদ বিপ্লব জানান, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন অভিযুক্ত রুবেল। প্রথমে তার স্ত্রী ও পরে দুই সন্তানকে হত্যা করা হয়। নিজে আত্মহত্যা করলে স্ত্রী সন্তানদের ঋণের বোঝা বইতে হবে। এজন্য তাদেরকে নিয়েই পৃথিবী থেকে চলে যাবেন। এই ভাবনা থেকেই এই হত্যাকাণ্ড ঘটান তিনি।

এ ঘটনায় নিহত লাবনী আক্তারের বাবা মো. শাহাজুদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি নিচ্ছেন।


আরও খবর



বিএনপিকে নির্বাচনে যেতে সরকার অনুরোধ করছে: এ্যানি

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

বিএনপিকে নির্বাচনে যাওয়ার জন্য সরকার অনুরোধ করছে। তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া কোনো নির্বাচনে অংশ নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি।

শনিবার (১৪ মে) বিকেলে লক্ষ্মীপুর জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে লক্ষ্মীপুর গোডাউন রোড এলাকায় এ্যানির বাস ভবনের সামনে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এ্যানি বলেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে সরকার দায়ী। সরকারের খয়ের খা’রা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। এজন্য এ সরকারকে বিদায় দেওয়া ছাড়া কোনো সমাধান হবে না।

তিনি আরও বলেন, সরকার এখন বিএনপিকে নির্বাচনে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করছে। শেখ হাসিনার অধীনে সংবিধান অনুযায়ী বিএনপি নির্বাচনে যাবে না। সত্যিকার একটি নির্বাচনের জন্য হাসিনামুক্ত পরিবেশ গড়তে হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে। তাবেই জনগণ সেই নির্বাচন গ্রহণ করবে।

জেলা বিএনপির সদস্য সচিব সাহাব উদ্দিন সাবুর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-আহ্বায়ক হাছিবুর রহমানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বিএনপির নেতা নিজাম উদ্দিন ভূঁইয়া, হাফিজুর রহমান, হারুনুর রশিদ বেপারী, মাঈন উদ্দিন চৌধুরী রিয়াজ, এ বি এম জিলানী, কামরুজ্জামান সোহেল, কৃষকদল নেতা শাহ মোহাম্মদ এমরান, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা হারুনুর রশিদ ও ছাত্রদল নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।


আরও খবর



নারী ভোটার বাড়াতে জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতার নির্দেশনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৬জন দেখেছেন
Image

ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচিতে নারী ভোটার বাড়াতে দেশের স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধি, বিশেষত নারী জনপ্রতিনিধিদের বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসির নির্বাচন সহায়তা শাখার সহকারী সচিব মো. মোশাররফ হোসেন স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত নির্দেশনা বুধবার (১১ মে) সব নারী জনপ্রতিধিদের পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে নারীদের নিবন্ধনের বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের, বিশেষত নারী জনপ্রতিনিধিদের (উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান, সিটি/পৌর এলাকার সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর এবং ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের সদস্যসহ সাধারণ আসনের বিপরীতে নির্বাচিত নারী জনপ্রতিনিধিদের) সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন।

অন্যদিকে বিগত হালানাগাদ কর্মসূচিতে নারী ভোটাদের সাড়া কম পাওয়ার পেছনে আটটি কারণ চিহ্নিত করেছে নির্বাচন।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ভোটারযোগ্য ব্যক্তিদের তথ্য সংগ্রহ ও সুপারভাইজার কর্তৃক যাচাই কার্যক্রম ২০ মে ২০২২ থেকে পরবর্তী তিন সপ্তাহ অথবা শুরুর তারিখের পরবর্তী তিন সপ্তাহ ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করা হবে। এতে ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি অথবা তার আগে যাদের জন্ম তাদের এবং বিগত ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে যারা বাদ পড়েছেন, তাদের নিবন্ধনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করা হবে। একইসঙ্গে যাদের জন্ম ০১/০১/২০০৬ ও ০১/০১/২০০৭ তাদেরও নিবন্ধনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

এছাড়া, এ কর্মসূচিতে ভোটার তালিকা হতে মৃত ভোটারের নাম কর্তন এবং আবাসস্থল পরিবর্তনের কারণে স্থানান্তরের বিষয়েও কার্যক্রম গৃহিত হবে। ভোটার তালিকা হালনাগাদ সংক্রান্ত কার্যক্রম সুষ্ঠু, সুন্দর, নির্ভুল ও সুচারুরূপে সম্পাদনের লক্ষ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিগত ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে নারী ভোটার কম হওয়ার বিষয়ে কমিশন যেসব কারণ সামনে এনেছে- (১) নির্ধারিত ফি পরিশোধ করে জন্মনিবন্ধন সনদ সংগ্রহে অনীহা; (২) হিন্দু অবিবাহিত মেয়েদের পিত্রালয়ে নিবন্ধন করতে অনীহা; (৩) অবিবাহিত, অনগ্রসর ও নিরক্ষর মেয়েদের ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে আগ্রহ কম; (৪) বাবা-মা’র জাতীয় পরিচয়পত্র দাখিল করতে ব্যর্থ হওয়া; (৫) রেজিস্ট্রেশন কেন্দ্র দূরবর্তী হওয়া; (৬) আবহাওয়া অনুকূল না থাকা; (৭) সামাজিক সংস্কার ও ধর্মীয় অজুহাতে ছবি তুলতে অনীহা এবং (৮) প্রত্যন্ত অঞ্চলের মাহিলাদের অসচেতনতা অন্যতম।

নির্দেশনায় বলা হয়, এবার নারীদের অন্তর্ভুক্তির হার যেন উল্লেখযোগ্যভাবে কম না হয় সে লক্ষ্যে হালনাগাদ কার্যক্রমের সময় সংশ্লিষ্ট এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য (বিশেষ করে সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর/সদস্যগণকে), দফাদার ও গ্রাম পুলিশকে সম্পৃক্ত করতে পারেন। সিটি করপোরেশন ও উপজেলা পর্যায়ের সমন্বয় কমিটিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করে সমন্বয় কমিটি এরইমধ্যে গঠন করা হয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ এ কাজে নারীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ নিশ্চিতকল্পে সংশ্লিষ্ট সদস্যদের নির্দ্বিধায় ওই কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা প্রয়োজন। বিশেষ করে প্রচারের কাজে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

আগামী ২০ মে দেশে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু করবে নির্বাচন কমিশন। এক্ষেত্রে প্রথম পর্যায়ে ১৪০টি উপজেলায় এ কার্যক্রম শুরু হবে। অন্যান্য উপজেলায় তিন ধাপে এ হালানাগাদ কার্যক্রম শেষ করা হবে।


আরও খবর



প্রশ্নফাঁস: নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করলো মাউশি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৭জন দেখেছেন
Image

প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ ওঠায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে লিখিত পরীক্ষা (এমসিকিউ) বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) দিনগত রাতে মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে পরীক্ষা বাতিলের সুনির্দিষ্ট কারণের কথা উল্লেখ করা না হলেও এতে বলা হয়েছে, ১৩ মে অনুষ্ঠিত অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের লিখিত পরীক্ষা (এমসিকিউ) অনিবার্য কারণে বাতিল করা হলো।

এদিকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে মাউশির কোনো চক্র জড়িত থাকলে এর উৎস খুঁজে বের করার দিয়েছেন মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।

jagonews24

গত শুক্রবার (১৩ মে) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে নিয়োগের জন্য ঢাকার ৬১টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৫১৩টি পদের বিপরীতে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১ লাখ ৮৩ হাজার।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে পরীক্ষার দিন থেকে পরবর্তী কয়েকদিনে একাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারদের মধ্যে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের এক কর্মকর্তাও রয়েছেন।


আরও খবর



রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি নেই: ডা. এনাম

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি নেই বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

মঙ্গলবার (১০ মে) সচিবালয়ে এ বিষয়ক দুই প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান প্রতিমন্ত্রী। ইউএসএইডের ডেপুটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (পলিসি অ্যান্ড প্রোগ্রামিং) ইসোবেল কোলম্যান ও ইন্ডিপেনডেন্ট ইনভেস্টিগেটিভ মেকানিজম অন মিয়ানমারের (আইআইএমএম) প্রধান নিকোলাস কোয়ামজিয়ানের নেতৃত্বে দুটি প্রতিনিধিদল এ বৈঠক করে।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে তারা কী বলেছেন- জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেন, তারা বলেছেন পৃথিবীতে প্রায় ৫০ লাখ শরণার্থী আছে। এর সঙ্গে ইউক্রেনের প্রায় ৭০ লাখ শরণার্থী যোগ হয়েছে, তারা এদের নিয়ে কাজ করছেন। অন্যান্য শরণার্থী শিবিরে যেভাবে কাজ করছেন এখানেও সেভাবেই কাজ করবেন। দ্রুত তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে তারা চাপ তৈরি করবেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইউএসএইড সরাসরি সাহায্য দেয় না। তারা ইউএনএইচসিআর ও বিশ্ব খাদ্য সংস্থাকে আরও ফান্ড দেবে, যাতে তারা এখানে কাজ করতে পারে। দ্রুত এই সাহায্য দেওয়া হবে যাতে তারা ভাষানচরে কাজ শুরু করতে পারে।

মিয়ানমারের সঙ্গে দ্বিপক্ষিক উদ্যোগের কী অবস্থা- এ বিষয়ে এনামুর রহমান বলেন, এটা নিয়ে গত মাসেই একটি মিটিং হয়েছে। সেখানে নাগরিকদের একটি তালিকা দেওয়া হয়েছে, মিয়ানমার সেটা গ্রহণ করেছে। এটা প্রক্রিয়াধীন। এ পর্যন্ত আমরা ৩৫ হাজার তালিকা দিয়েছি। তবে কতজন তারা গ্রহণ করছে এমন কিছু এখনও পাঠায়নি।

‘সবশেষ যদি বলি এখনও উল্লেখযোগ্য কোনো অগ্রগতি নেই।’

ঘূর্ণিঝড়ের সর্বশেষ অবস্থান বিষয়ে জানতে চাইলে দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় আজ অন্ধ্রপ্রদেশে আঘাত হেনে দুর্বল হয়ে গেছে। বাংলাদেশে আঘাত হানার কোনো সম্ভাবনা আর নেই।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে আইআইএমএম'র সঙ্গে কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নিকোলাসও বলেছেন এটার সমাধান হলো প্রত্যাবর্তন। আমরা যতগুলো অর্গানাইজেশন কাজ করছি, আমাদের মূল লক্ষ্য স্বদেশে তাদের নাগরিক অধিকার ও নিরাপত্তা দিয়ে ফেরত পাঠানো। এরজন্য তারাও কাজ করছেন। এ ব্যাপারে আন্তর্জাতিক জনমত তৈরি করতেও তারা কাজ করবেন। মিয়ানমারের সঙ্গেও তারা বসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা জানালেন, মিয়ানমার সরকার তাদের সহযোগিতা করেনি বলে এটা সম্ভব হয়নি।


আরও খবর



ঢাকায় ১৭ স্থানে বসবে অস্থায়ী পশুর হাট

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

#ঢাকা দক্ষিণ সিটি এলাকায় অস্থায়ী পশুর হাট বসবে ১০টি
#ঢাকা উত্তর সিটি এলাকায় বসবে সাতটি অস্থায়ী পশুর হাট
#গাবতলী ও ডেমরার সারুলিয়ার স্থায়ী হাটেও কোরবানির পশু বিক্রি হবে

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ১৭টি অস্থায়ী পশুর হাট বসানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন।

এর মধ্যে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় ১০টি ও উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় সাতটি পশুর হাট বসবে। এরই মধ্যে এসব হাট ইজারায় দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।

এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে কোরবানির পশু বিক্রির জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম ‘ডিএনসিসি ডিজিটাল হাট’ digitalhaat.net চালুর প্রস্তুতি চলছে।

ডিএনসিসির সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর অনলাইন হাট জনপ্রিয় হয়েছিল।

ডিএসসিসি পশুর হাট

গত ২০ এপ্রিল রাজধানীর পৃথক ১০টি স্থানে অস্থায়ী পশুর হাটের দরপত্র আহ্বান করে ডিএসসিসি। এর মধ্যে সরকারি দাম এক কোটি ২২ লাখ ৬০০ টাকায় উত্তর শাহজাহানপুর খিলগাঁও রেলগেট বাজার মৈত্রী সংঘের ক্লাব সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, আর এক কোটি ৫২ লাখ ৬৯ হাজার ৩০০ টাকায় হাজারীবাগ এলাকায় ইনস্টিটিউট অব লেদার টেকনোলজি মাঠ সংলগ্ন উন্মুক্ত এলাকা, এছাড়া এক কোটি ৩৭ লাখ ৮১ হাজার ৭৬৭ টাকায় পোস্তগোলা শ্মশানঘাট সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গায় হাট ইজারায় দরপত্র চাওয়া হয়েছে।

অপরদিকে এক কোটি ৮৭ লাখ ৬৭ হাজার ৩০০ টাকায় মেরাদিয়া বাজার সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, দুই কোটি ৬৭ লাখ ১২ হাজার টাকায় লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাব সংলগ্ন খালি জায়গা ও কমলাপুর স্টেডিয়াম সংলগ্ন বিশ্বরোডের আশপাশের খালি জায়গা, দুই কোটি ৮৭ লাখ ২৬ হাজার ৮৩৩ টাকায় দনিয়া কলেজ মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা, দুই কোটি ৭০ লাখ ৩১ হাজার ৬০ টাকায় ধোলাইখাল ট্রাক টার্মিনাল সংলগ্ন উন্মুক্ত জায়গা, ২১ লাখ ৪৬ হাজার ৫০৩ টাকায় আমুলিয়া মডেল টাউনের আশপাশের খালি জায়গা, ৩৮ লাখ ২৬ হাজার ৬০০ টাকায় রহমতগঞ্জ ক্লাব সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ৫৪ লাখ ৬ হাজার টাকায় শ্যামপুর-কদমতলী ট্রাকস্ট্যান্ড সংলগ্ন খালি জায়গায় হাট ইজারায় দরপত্র চাওয়া হয়।

এর বাইরে ডেমরার সারুলিয়ায় ডিএসসিসির একটি স্থায়ী হাট রয়েছে। ঈদে সেখানেও বসবে পশুর হাট।

ডিএসসিসির সম্পত্তি বিভাগ সূত্র জানায়, গত ১১ মে প্রথম পর্যায়ে দরপত্র বিক্রির শেষ দিন ছিল। পরদিন ১২ মে দরপত্র জমা দেওয়া এবং দরপত্র বাক্স খোলা হয়। এর মধ্যে ছয়টি হাট সরকারি নির্ধারিত দরের চেয়ে বেশি মূল্য দিতে সক্ষম হয়েছে। বাকি হাটগুলোর জন্য আবার ২৫ মে দরপত্র বিক্রি হবে।

এ বিষয়ে জানতে সোমবার (১৬ মে) ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেনি।

ডিএনসিসি পশুর হাট

গত ১৩ এপ্রিল ডিএনসিসি এলাকায় সাতটি পশুর হাট ইজারায় দরপত্র আহ্বান করে সংস্থাটির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক।

দরপত্র অনুযায়ী সরকারি মূল্য ১০ কোটি ২৪ লাখ ৬ হাজার ৬৬৭ টাকায় ভাটারা (সাইদনগর) পশুর হাট, ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৫২০ টাকায় কাওলা শিয়ালডাঙ্গা সংলগ্ন খালি জায়গা, এক কোটি ৪৯ লাখ ৩৯ হাজার ৯৪৪ টাকায় মিরপুর সেকশন ৬ ইস্টার্ন হাউজিংয়ের খালি জায়গা, ২৬ লাখ ৬০ হাজার ৬০০ টাকায় মোহাম্মদপুর বছিলায় ৪০ ফুট রাস্তা সংলগ্ন খালি জায়গা, ৪৬ লাখ ৬৬ হাজার ১২০ টাকায় উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টর এলাকায় অবস্থিত বৃন্দাবন থেকে উত্তর দিকে বিজিএমইএ পর্যন্ত খালি জায়গা, এক কোটি ৪৭ লাখ ৮৭ হাজার টাকায় বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিং ব্লক-ই থেকে এইচ পর্যন্ত এলাকার খালি জায়গা এবং দুই কোটি ১২ হাজার টাকায় তিনশ ফিট সড়ক সংলগ্ন উত্তর পাশের সালাম স্টিল-যমুনা হাউজিং কোম্পানির খালি জায়গায় দরপত্র চাওয়া হয়।

এর বাইরে গাবতলীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের একটি স্থায়ী হাট রয়েছে। এই হাটেও বছরের অন্য সময় পশু বিক্রি হবে।

ডিএনসিসি সূত্র জানায়, গত ২৩ এপ্রিল এই দরপত্রের প্রথম দফায় সিডিউল বিক্রি শেষ হয়। ২৪ এপ্রিল শেষ হয় দরপত্র জমা দেওয়ার সময়। ওই দিনই খোলা হয় দরপত্র বাক্স। কিন্তু কয়টি হাট সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দরে জমা হয়েছে বা হয়নি তা এখনো প্রকাশ করেনি হাট ব্যবস্থাপনা কমিটি। তবে যেসব হাট নির্ধারিত মূল্যের কম হয়েছে, সেগুলোতে আগামী ৮ জুন দ্বিতীয় দফায় সিডিউল বিক্রি হবে।

জানতে চাইলে ডিএনসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মকবুল হোসাইন জাগো নিউজকে বলেন, ডিএনসিসির সাতটি হাটেই পর্যাপ্ত দরপত্র জমা পরেছে। কিন্তু কোনো ইজারাদারকেই হাটের কার্যাদেশ দেওয়া হয়নি। গাবতলী হাটে নিয়মিতভাবেই পশু বেচাকেনা চলবে।


আরও খবর