Logo
শিরোনাম

শুধু বলিউডে কেন, দক্ষিণের সিনেমাও ফ্লপ হয়: বরুণ ধাওয়ান

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

একটি মিডিয়া সম্প্রতি কথোপকথনের সময় অভিনেতা বরুণ ধাওয়ানকে তিনটি দক্ষিণের সিনেমা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল। এ তিনটি সিনেমা বলিউডের সব ছবির ইতিহাসকে পেছনে ফেলে দিয়েছে। সিনেমাগুলো ‘পুষ্প: দ্য রাইজ', 'আরআরআর' এবং 'কেজিএফ: অধ্যায় ২'।

উত্তর বনাম দক্ষিণের সিনেমা, এই বিতর্কের বিষয়ে নিজের চিন্তাভাবনা শেয়ার করে বরুণ বলেন, ‘সিনেমা এখন ভালো চলছে। দর্শকরা যে সিনেমা দেখতে চান তা দেখার অধিকার আছে। হলিউডের সিনেমাগুলো এত বছর ধরে কাজ করছে। কারণ হলিউডের চাহিদা বেশি। আমি নিজে 'কেজিএফ ২' দেখতে বেশ উপভোগ করেছি। এটি দেখে আমার খুব ভালো সময় কেটেছে। এটি এখন সবচেয়ে বড় ব্যবসার একটি।’

তিনি আরও যোগ করে বলেন, ‘শুধু বলিউডের সিনেমা ফ্লপ হয় না। দক্ষিণের অনেক সিনেমা আছে সুপারফ্লপ। হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আমাদের অনেক ভালো সিনেমা আসছে। প্রতিটি সিনেমা হিট হতে পারে না। দর্শকরা খারাপ সিনেমা দেখবে না, তা হলিউড, বলিউড বা দক্ষিণ; যারই হোক না কেন। আমাদের ভালো ছবি বানাতে হবে।’

এদিকে বরুণ ধাওয়ানের ‘যুগযুগ জিও’ ছবিটি মুক্তির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। রাজ মেহতা পরিচালিত এ ছবিতে আরও আছেন কিয়ারা আদভানি, অনিল কাপুর এবং নীতু কাপুর। সে ছবির প্রচারে খুব ব্যস্ত রয়েছেন বরুণ।


আরও খবর



মৌসুমীর অধঃপতনের কথাই কি বললেন অমিত হাসান?

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ১০১জন দেখেছেন
Image

জায়েদ খান ও ওমর সানির ঘটনায় কয়েকদিন ধরে উত্তাল চলচ্চিত্রপাড়া। বাংলাদেশ শিল্পী সমিতিতে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওমর সানি। সেখানে তিনি জায়েদের বিরুদ্ধে সংসার ভাঙা ও তাকে হত্যার হুমকির অভিযোগ আনেন।

এই বিষয়ে ১২ জুন সন্ধ্যায় চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন বরাবার লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন সানি। ঠিক তার পরদিনই এক অডিও বার্তা দিয়ে বোমা ফাটালেন মৌসুমী। সেখানে তিনি দাবি করেন, জায়েদ খান ভালো ছেলে। তার ছোট ভাইয়ের মতো। ওমর সানি যেসব অভিযোগ করেছেন তা সত্যি নয়।

তার অডিও বার্তাটি প্রকাশ হতেই শুরু হয় হইচই। কেউ ওমর সানিকে মিথ্যেবাদী বলছেন তো কেউ মৌসুমীকে বলছিলেন প্রতারক। ১৩ জুন সন্ধ্যায় সানি-মৌসুমীর পুত্র ফারদিন মুখ খুলেন গণমাধ্যমে। তার কথায় স্পষ্ট হয়, ওমর সানির অভিযোগ মিথ্যে নয়। ফারদিনও বলেন, তার মা মৌসুমীকে বিরক্ত করেন জায়েদ খান।

শুধু তাই নয়, ফারদিনের ব্যবসায় ও পরিবারের ক্ষতি করারও চেষ্টা করছেন জায়েদ খান; দাবি করেন তিনি। তার এই বক্তব্যের পর প্রশ্ন উঠে মৌসুমীর অডিও বার্তা নিয়ে। ছেলের কাছে প্রমাণ থাকা সত্বেও মৌসুমী কেন স্বামীর বিপক্ষে গিয়ে জায়েদের সাফাই গাইলেন সেই প্রশ্ন উঠছে।

এই ঘটনায় চলচ্চিত্রের মানুষেরা বিরক্ত, বিব্রত। অনেকেই গণমাধ্যমে সরাসরি কথা বলেছেন বিষয়টি নিয়ে। কেউ কেউ সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন। অনেকেই আবার আকার ইঙ্গিতে সানি-মৌসুমীর দীর্ঘদিনের সংসার জীবনে অশান্তির আভাস পেয়ে মন খারাপ করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

তেমনি করে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন অভিনেতা অমিত হাসান। সেখানে কারো নাম তিনি উল্লেখ করেননি। তবে তার স্ট্যাটাসটির নিচে বক্তব্যগুলো পড়লেই টের পাওয়া যায় সবাই ধরে নিয়েছেন অমিত সানী-মৌসুমী ও জায়েদ খানের ঘটনার দিকেই ইঙ্গিত করেছেন।

তিনি আজ ১৪ জুন লেখেন, ‘তাকিয়ে রইলাম একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রের বিরতিহীন অধঃপতন দেখে। অস্পষ্ট কুয়াশায় ঢেকে গেল। কষ্টে গড়া সম্মান দুমড়েমুচড়ে পড়লো পদতলে।’

কার অধঃপতনের কথা বলেছেন ঢাকাই সিনেমার ভার্সেটাইল এই অভিনেতা? সে নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ তিনি।

সানি-মৌসুমী দম্পতির সঙ্গে অমিত হাসানের পারিবারিক বন্ধুত্বের সঙ্গে। দীর্ঘদিন তারা একসঙ্গে সিনেমায় কাজও করেছেন। অনেক সিনেমায় মৌসুমীর নায়ক হয়েছেন অমিত হাসান। শিল্পী সমিতির রাজনীতিতেও তারা ছিলেন একই মতাদর্শের। তবে সর্বশেষ নির্বাচনে মৌসুমী ও অমিত ভিন্ন দুটি প্যানেলে নির্বাচন করেন। দুজনেই জয়ী হন।


আরও খবর



চোখ দেখেই মিথ্যা ধরবে যে মেশিন

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

লাই ডিটেক্টরের কথা নিশ্চয়ই জানেন। এটি বেশি ব্যবহার হয় আসামির ক্ষেত্রে। আসামি মিথ্যা বলছেন নাকি সত্যি বলছেন তা যাচাই করে এই মেশিন। এবার উটাহ ভিত্তিক এক প্রযুক্তি সংস্থা কোনভেরাস সম্প্রতি টেকনোলজি ভিত্তিক সিস্টেম তৈরি করেছে যা চোখের সামান্য নড়াচড়ার মাধ্যমেই সত্যি বা মিথ্যা যাচাই করতে সক্ষম।

এই টেকনোলজির সাহায্যে মাত্র ১৫ থেকে ৩০ মিনিটের মধ্যেই ব্যক্তির অনিচ্ছা থাকলেও লেন্সের আন্দোলন ক্যাপচার করে সত্যি বা মিথ্যা শনাক্ত করা যাবে। তবে এই প্রযুক্তির ব্যবহার নতুন নয়। পলিগ্রাফ টেস্টটি বেশ কিছু সময় ধরেই মিথ্যা কথা, হৃদস্পন্দন, রক্তচাপ ইত্যাদি শনাক্ত করতে ব্যবহৃত হচ্ছে।

সংস্থার দাবি, তাদের আইডাইরেক্ট টেকনোলজি মিথ্যা শনাক্ত করতে ৮৬ থেকে ৮৮ শতাংশ ক্ষেত্রে সক্ষম। ডেসার্ট নিউজের রিপোর্ট অনুযায়ী, কোনভেরাসের এই নতুন টেকটি আইডিটেক্ট এবং আইডিটেক্ট+ নামে দুটি সিস্টেম ভিডিও ফুটেজের ভিত্তিতে কোনো ব্যক্তির সত্যি-মিথ্যা যাচাই করতে সক্ষম।

এরই মধ্যে এই সিস্টেমের মাধ্যমে বেশ কয়েকজন উচ্চ-পদস্থ কর্মকর্তাকে ধরা হয়েছে। এই প্রযুক্তিটি ব্যবহারের জন্য, প্রথমে বেশ কিছু প্রশ্নসহ একটি লিস্ট কম্পিউটারে ইনপুট করা হয়। সেক্ষেত্রে প্রশ্ন সেট করার আগে থেকেই উত্তর লেখা থাকে সত্য বা মিথ্যা। এবার এই টেকটি একটি ইনফ্রারেড আই-ট্র্যাকিং ক্যামেরা ব্যবহার করে অনিচ্ছাকৃত চোখের নড়াচড়া যেমন পিউপিল ডায়ামিটার, ফিক্সেশন এবং ব্লিঙ্কের পরিবর্তন রেকর্ড করে। তার পর তা বিশ্লেষণও করে। একবার লেন্সের নড়াচড়া রেকর্ড করা হলে, ওই প্রোগ্রামটি সত্য বা মিথ্যা সনাক্ত করে দশ মিনিটেরও কম সময়ে প্রোগ্রাম প্রসেসিং করে।

সিস্টেমটিতে দু’ধরনের পরীক্ষা হয়, একটি ডাইরেক্টেড লাই কমপারিজন টেস্ট, যা ১৫ মিনিট সময় নেয় এবং মাল্টি-ইস্যু কমপারিজন টেস্ট যা ৩০ মিনিটের মতো সময় নেয়।

সাধারণত ডাইরেক্টেড লাই কমপারিজন টেস্টে অনেক বেশি প্রাথমিক প্রশ্নোত্তর থাকে। অন্যদিকে মাল্টি-ইস্যু কমপারিজন টেস্টে লেন্সের সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহারে সামঞ্জস্যতাও টেস্ট করা হয়-ফৌজদারি মামলা বা দেওয়ানি মামলায় এই ধরনের টেস্ট ব্যবহৃত হয়। পলিগ্রাফ পরীক্ষায় যেখানে ৩ ঘণ্টা থেকে ৫ ঘণ্টা সময় লাগে, সেখানে এই টেস্ট মাত্র ১০ থেকে ৩০ মিনিটের মধ্যে স্বচ্ছতার সঙ্গে একই কাজ সম্পাদনে অধিকতর সক্ষম বলে দাবি করা হয়েছে।

সূত্র: বিজনেস স্টান্ডার্ট


আরও খবর



ইউক্রেন আগ্রাসনের পর পুতিনের প্রথম বিদেশ সফর

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

ইউক্রেন আগ্রোসনের পর এই প্রথম বিদেশ সফরে বের হচ্ছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ সপ্তাহের মধ্য এশিয়ার দুটি সাবেক সোভিয়েত রাষ্ট্র সফর করবেন তিনি। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন রোববার (২৬ জুন) এ তথ্য নিশ্চিত করে।

রোশিয়া ওয়ান রাষ্ট্রীয় টিভি স্টেশনের প্রতিবেদনে ক্রেমলিন সংবাদদাতা পাভেল জারুবিন বলেছেন, পুতিন তাজিকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তান সফর করবেন। এরপর মস্কোয় ফিরে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি।

তিনি আরও জানান, তাজিকিস্তান সফরকালে রাজধানী দুশানবেতে তাজিক প্রেসিডেন্ট ইমোমালি রাখমনের সঙ্গেও বৈঠক করার কথা রয়েছে রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের। সাবেক এই সোভিয়েত রাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট রাখমন। তিনি রাশিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবেও পরিচিত।

তুর্কেমেনিস্তান সফরকালে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন রাজধানী আশগাবাতে কাস্পিয়ান দেশগুলোর একটি সম্মেলনে যোগ দেবেন। সেখানে থাকবেন আজারবাইজান, কাজাখস্তান, ইরান ও তুর্কমেনিস্তানের শীর্ষ নেতারাও।

এর আগে রুশ প্রেসিডেন্ট সর্বশেষ বিদেশ সফর করেন চলতি বছর ফেব্রুয়ারির শুরুতে। সে সময় তিনি চীনের রাজধানী বেইজিং সফর করেন। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে ‘অসীম বন্ধুত্বের’ ঘোষণাও দেন তিনি। সে সময় উইন্টার অলিম্পিকের উদ্বোধন অনুষ্ঠানেও যোগ দেন পুতিন।

এরপর গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ইউক্রেনে হামলা চালায় রুশ সেনারা। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ গড়িয়েছে পঞ্চম মাসে। এখনো যুদ্ধ থামার লক্ষণ নেই। যুদ্ধে এ পর্যন্ত কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও অনেকে। দেশ ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন কয়েক লাখ মানুষ।

ইউক্রেন আগ্রাসনের কারণে পশ্চিমাদের চরম নিষেধাজ্ঞার মধ্যে পড়েছে রাশিয়া। তারপরও পিছপা হতে রাজি নন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন।

সূত্র: রয়টার্স, আল-জাজিরা


আরও খবর



হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে খুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

সাড়ে তিন বছর আগের হত্যার জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় খুন হলেন আশিকুর রহমান অপু (৩৫)। মঙ্গলবার (৭ জুন) সকালে যশোর শহরের খালধার রোড এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহত অপু মিয়া খালধার রোড এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে। অপুর বিরুদ্ধে হত্যাসহ ৭টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর শহরের বড়বাজার মাছ বাজার এলাকায় পাপ্পু হোসেন বাবু (১৮) হত্যাকাণ্ডে অপু জড়িত ছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ওই ঘটনার জের ধরে পাল্টা এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটলো বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

যশোর পুলিশের মুখপাত্র পুলিশ পরিদর্শক রূপণ কুমার সরকার জানান, মঙ্গলবার সকালে অপু রিকশায় বড়বাজার যাওয়ার পথে আমিনিয়া আলিয়া মাদরাসার সামনে পৌঁছালে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে এলাপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। ঢাকায় নেওয়ার পথে ফরিদপুরের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে অপু মারা যান।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের চিকিৎসক তানভীর আহম্মেদ জানান, অপুর শরীরে ধারালো অস্ত্রের অসংখ্য আঘাত রয়েছে। গলার অনেকাংশ কাটা। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক হওয়ায় ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছিল।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর শহরের বড়বাজার মাছ বাজার এলাকায় হত্যাকাণ্ডের শিকার হন পাপ্পু হোসেন বাবু (১৮)। শহরতলীর শেখহাটি বাবলাতলা এলাকার জলিল উদ্দিনের ছেলে বাবু’র মাছ বাজারের পাশে মোবাইল ফোনের রিচার্জের দোকান ছিল। টাকা বাকি রাখা নিয়ে বিরোধে অপুসহ তার তিন সহযোগী ছুরিকাঘাত করে পাপ্পুকে হত্যা করেন।


আরও খবর



হত্যার উদ্দেশ্যেই জোনায়েদ সাকির ওপর হামলা: ফখরুল

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

সীতাকুণ্ডে কনটেইনার দুর্ঘটনায় আহতদের দেখতে গিয়ে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকির ওপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, হত্যার উদ্দেশ্য নিয়ে জোনায়েদ সাকির ওপর আক্রমণ করে তাকে রক্তাক্ত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ জুন) এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এ নিন্দা জানান।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, এ হামলা নারকীয় এবং ইতিহাসে কলঙ্কিত হয়ে থাকবে। সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ডে আহতদের সহমর্মিতা জানাতে হাসপাতালে দেখতে গেলে জোনায়েদ সাকির ওপর হামলা কেবল কাপুরুষদের দ্বারা সম্ভব। এ হামলা সভ্যতা ও মানবিক মূল্যবোধের চরমবিরোধী। সরকার হিংস্র সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে যে দেশ চালাতে চায়, আজকের ঘটনা তারই প্রমাণ। এ হামলা সরকারের সব ব্যর্থতা থেকে দৃষ্টি ফেরানোর কৌশল। এই সহিংস ঘটনায় পৈশাচিক নাৎসিবাদ আরও তীব্র মাত্রায় আত্মপ্রকাশ করলো।

তিনি বলেন, সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের পরিবার ও আহতদের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস যখন ভারি হয়ে উঠেছে, ঠিক সেদিন গ্যাসের দাম অসহনীয় মাত্রায় বৃদ্ধি করার মাধ্যমে এ সরকার যে সবচেয়ে বড় গণদুশমন, সেটিই পুনরায় প্রমাণ করলো। সরকারের পেটোয়া সন্ত্রাসীদের প্রকাশ্যে জনপদের পর জনপদ দাপিয়ে বেড়ানোর পর হাসপাতালেও এদের রক্তাক্ত ছোবল থেকে নিস্তার পাচ্ছে না বিরোধীদল ও মতের মানুষরা। এটি কিসের আলামত?

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ভোট, গণতন্ত্র, সুষ্ঠু নির্বাচনসহ বিরোধী শক্তিকে আক্রমণ করে ধ্বংস করার তাদের অপচেষ্টা থেমে নেই। সরকার তাদের সব শক্তি দিয়ে একের পর এক অশুভ পরিকল্পনা এঁটে যাচ্ছে। তথাকথিত উন্নয়নের নামে যে হরিলুট চলছে, সেটিকে পূরণ করার জন্য জনগণকে ফতুর করতেই এ মুহূর্তে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে জন-অসন্তোষকে চাপা দিতেই সীতাকুণ্ডের কনটেইনার ডিপোর অগ্নিকাণ্ড ঘটানো হয়েছে কি না, সেটি নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তাই জোনায়েদ সাকির আহতদের দেখতে যাওয়াকে ক্ষমতাসীন মহল মোটেও বরদাশত করতে পারেনি।

‘হত্যার উদ্দেশ্য নিয়ে জোনায়েদ সাকির ওপর আক্রমণ করে তাকে রক্তাক্ত করা হয়েছে। এখন প্রতিরোধের সময় চলে এসেছে। সব গণতান্ত্রিক শক্তি একযোগে ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে রাস্তায় ব্যারিকেড গড়ে তুলে অবৈধ সরকারকে পরাজিত করার সংগ্রামে এখন ঐক্যবদ্ধ।’

তিনি বলেন, ছাত্রলীগের সশস্ত্র সন্ত্রাসী কর্তৃক জোনায়েদ সাকির ওপর সহিংস আক্রমণের আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। জোনায়েদ সাকির আশু সুস্থতা কামনা করছি।

কেএইচ/আরএডি


আরও খবর