Logo
শিরোনাম

শুরুটা ভালো হলো না আয়ুষ্মান খুরানার

প্রকাশিত:শনিবার ২৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩৪২জন দেখেছেন
Image

বলিউড অভিনেতা ও গায়ক আয়ুষ্মান খুরানা। তার অভিনয় ও গানে মুগ্ধ ভক্তরা। সম্প্রতি কঙ্গনা রানাউতের সিনেমা ‘ধাকড়’ ছবিটি মুক্তির পর সুপার ফ্লপ হয়েছে। সে পথেই হাঁটতে চলেছে এবার আয়ুষ্মান খুরানার সিনেমা ‘অনেক’।

গত ২৭ মে মুক্তি পায় সিনেমাটি। অনুভব সিনহা পরিচালিত ছবিটি মুক্তির পর বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়েছে প্রথম দিনেই।

বিগ বাজেটের সিনেমাটি উদ্বোধনী দিনে মাত্র ২ কোটি রুপি আয় করেছে। তবে নির্মাতারা আশা করেছিলেন সিনেমাটি খুব ভালো আয় করবে।

ভক্তরাও যেনো মেনে নিতে পারছেন না প্রিয় অভিনেতার সিনেমার এমন দর্শক খরা।

তবে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, সিনেমাটি ঘুরে দাঁড়াবে।


আরও খবর



নতুন গভর্নরের নেতৃত্বে একসঙ্গে কাজ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক-বিএসইসি

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩৫জন দেখেছেন
Image

নতুন গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ঘনিষ্ঠ ও নিবিড় সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে বিএসইসি।

শনিবার (১১ জুন) রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেছে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। বিএসইসির পক্ষে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম এই বিবৃতি পাঠিয়েছেন।

এতে বলা হয়েছে, পুঁজিবাজারের উন্নয়নে দেশের আর্থিকখাতের প্রধান দুই নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের মধ্যে সমন্বয়ের কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর হিসেবে আব্দুর রউফ তালুকদারের যোগ্য ও কুশলী নেতৃত্বে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আরও ঘনিষ্ঠ ও নিবিড় সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করবে এবং দেশের অর্থনীতিতে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

নতুন গভর্নরকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, করোনা মহামারির মহাসংকটকালে বিশ্ব অর্থনীতি যখন স্তিমিত, তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জীবন ও জীবিকার সমন্বয় করে দেশকে যেভাবে নেতৃত্ব দিয়েছেন তা আজ বিশ্বে অনুকরণীয় ও প্রশংসনীয়।

‘আর প্রধানমন্ত্রীর উদ্ভাবনী নেতৃত্ব ও দিকনির্দেশনায় করোনাকালীন দেশের অর্থনীতির ক্রান্তিকালে অর্থনীতি চাঙা করার জন্য বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজ তৈরি ও দেশের সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার।’

এতে আরও বলা হয়েছে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সংস্কার প্রক্রিয়া বিশেষ করে বাজেট সংস্কার, সামষ্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা, অবসরভোগী সরকারি চাকুরেদের ইএফটির মাধ্যমে পেনশন প্রদান এবং সঞ্চয়পত্রের অটোমেশনে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অনস্বীকার্য। তারই স্বীকৃতি হিসেবে ২০২১ সালে ‘ন্যাশনাল ইন্টিগ্রিটি অ্যাওয়ার্ড’ পান আব্দুর রউফ তালুকদার।

বিএসইসির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব হিসেবে আব্দুর রউফ তালুকদার সর্বদা পুঁজিবাজারবান্ধব নেতৃত্ব প্রদান করেছেন। দেশের পুঁজিবাজারের ক্রমবর্ধমান বিকাশে তার গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। ‘বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেট ডেভেলপমেন্ট কনফারেন্স- ২০২১’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ও প্যানেল আলোচক হিসেবে বক্তব্য রেখে তিনি পুঁজিবাজারের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন।

বিএসইসি জানায়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের শেয়ারবাজারসহ অর্থনৈতিক বিভিন্ন খাতের সম্ভাবনা তুলে ধরার পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশি এবং বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্র ও সুইজারল্যান্ডে আয়োজিত রোড শো’তে তিনি সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের ইতিবাচক ব্র্যান্ডিং তুলে ধরতে আয়োজিত রোড শো-গুলোতে আব্দুর রউফ তালুকদারের আন্তরিক অংশগ্রহণ দেশের পুঁজিবাজার তথা সামগ্রিক অর্থনীতির প্রতি তার দায়বদ্ধতার প্রমাণ দেয়।


আরও খবর



শেরপুরে বন্যার পানিতে নিখোঁজ দু’জনের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে বন্যার পানিতে নিখোঁজের ১৩ ঘণ্টা পর দু’জনের উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (১৮ জুন) সকাল ৬টার দিকে পৃথক স্থান থেকে এ দু’জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- উপজেলার সদর ইউনিয়নের বৈরাগীপাড়া গ্রামের মৃত নফজ উদ্দিনের ছেলে কৃষক আশরাফ আলী (৬০) ও ধানশাইল ইউনিয়নের বাগেরভিটা গ্রামের শেখ কাদের আলীর ছেলে রাজমিস্ত্রি আবুল কালাম (৩৩)।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. রকিব বাদশা জানান, শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে বৈরাগীপাড়া গ্রামের কৃষক আশরাফ আলী অসাবধানতাবশত বন্যার পানিতে পড়ে ভেসে যান। পরে শনিবার সকাল ৬টার দিকে ওই এলাকার শেষ প্রান্তে পানিতে মরদেহ ভাসতে দেখে উদ্ধার করে স্থানীয়রা।

অপরদিকে ধানশাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে বাগেরভিটা গ্রামের রাজমিস্ত্রি আবুল কালাম হাঁস ধরতে গিয়ে বন্যার পানিতে ভেসে নিখোঁজ হন। আজ শনিবার সকাল ৬টার দিকে বাগেরভিটা এলাকার বিলের পানিতে মরদেহ ভাসতে দেখে উদ্ধার করে আত্মীয়-স্বজনরা।

এর আগে শুক্রবার দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারে বিকেল থেকেই অভিযান পরিচালনা করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয়রা। তবে রাত আটটা পর্যন্ত নিখোঁজদের পাওয়া না যাওয়ায় উদ্ধার কাজ স্থগিত করা হয়।

ঝিনাইগাতী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রাজ্জাক দু’জনের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।


আরও খবর



ডিএমপির মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৬৮

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৬৮ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

তাদের কাছ থেকে ছয় হাজার ১৮ পিস ইয়াবা, ৬৯ কেজি ৮০০ গ্রাম গাঁজা, ২৭২ গ্রাম ৯০ হেরোইন, ১৪৪ বোতল ফেনসিডিল ও ৩৭ বোতল দেশি মদ উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) ভোর ৬টা থেকে শুক্রবার (২৩ জুন) ভোর ৬টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৪৫টি মামলা রুজু হয়েছে।


আরও খবর



সুন্দরবনে পর্যটক ও রাজস্ব বাড়াবে পদ্মা সেতু

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২৭জন দেখেছেন
Image

দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন আজ বাস্তবে রূপ নিয়েছে। স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে চলাচল করছে যানবাহন। আর এতেই বিশ্ব ঐতিহ্য ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন জুড়ে বইছে সুবাতাস। সুন্দরবনে এবার সরাসরি সড়ক পথেই যাওয়া যাবে। এতে সুন্দরবনে পর্যটকের সঙ্গে রাজস্ব আয় বাড়বে ৪-৫ গুণ।

জানা গেছে, পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় এখন সড়কপথে দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে খুলনার কয়রা ও দাকোপ উপজেলা, বাগেরহাটের মোংলা উপজেলা ও সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা হয়ে সরাসরি যাওয়া যাবে সুন্দরবনে। এটি ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকদের জন্য একটি আকর্ষণীয় বিষয়। ফলে ভ্রমণ মৌসুমে সুন্দরবনে পর্যটকদের সংখ্যা বাড়বে। সমৃদ্ধ হবে সুন্দরবন বিভাগের অর্থনীতি।

বন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১০ হাজার বর্গকিলোমিটার আয়তনের পৃথিবীর বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশের খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরা জেলা এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দক্ষিণ চব্বিশ পরগণা জেলায় অবস্থিত। ব্রিটিশ ভারত বিভাগের পর বনের দুই-তৃতীয়াংশ পড়েছে বাংলাদেশে, বাকিটা ভারতে। সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগের আওতাধীন সুন্দরবনের মোট আয়তন ৩৫৭৩.২৮ বর্গ কিলোমিটার। এর মধ্যে খুলনা জেলার সুন্দরবনের আয়তন ২০৭২.২৪ বর্গ কিলোমিটার। বাকিটা সাতক্ষীরা জেলাধীন। এ বন ঘেঁষে সাতক্ষীরার অবস্থান হওয়ায় সড়কপথ দিয়েই সুন্দরবন দেখা যায়।

jagonews24

বাংলাদেশের ৬টি জেলাজুড়ে সুন্দরবন বিস্তৃত হলেও একমাত্র সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জে এলাকা থেকে সরাসরি দেখা যায় সুন্দরবনের সবুজ আবহ। মুন্সিগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছালেই নদীর ওপারে চোখে পড়ে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের ‘ব্র্যান্ড’ সুন্দরবন।

সুন্দরবনকে পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয়, দৃষ্টিনন্দন ও আনন্দদায়ক করে তুলেছে সুন্দরবন ঘিরে মুন্সিগঞ্জ এলাকায় গড়ে ওঠা আকাশলীনা ইকো-ট্যুরিজম সেন্টার, মান্দারবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত, কলাগাছিয়া ইকো-ট্যুরিজম সেন্টার, দোবেকী ইকো-ট্যুরিজম সেন্টার, ক্যারাম মুরা ম্যানগ্রোভ ভিলেজ, ক্যারাম মুরা পাখি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র, কৈখালী সীমান্ত ও পাঁচ নদীর মোহনা, উড়ালমন আদিবাসী গ্রাম ও নৌকা ভ্রমণ সাইট এবং শিয়ালকুনি বনায়ন।

এছাড়া পর্যটকদের থাকার জন্য রয়েছে মুন্সিগঞ্জের কলবাড়িতে অবস্থিত বর্ষা রিসোর্ট ও ট্যুরিজম সেন্টার। আবাসিক সুবিধা রয়েছে মুন্সিগঞ্জের আকাশলীনা ইকো-ট্যুরিজম সেন্টারেও। একইসঙ্গে মুন্সিগঞ্জে রয়েছে সুশিলনসহ আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিলাসবহুল রিসোর্ট। এখানে স্বল্প খরচে পর্যটকদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে।

সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) এম এ হাসান জানান, সুন্দরবন একটি বিশ্ব ঐতিহ্য। পর্যটকদের কাছে সুন্দরবন খুবই আকর্ষণীয়। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় এখন ঢাকা থেকে সকালে এসে সুন্দরবন ঘুরে বিকেলে চলে যেতে পারবেন পর্যটকরা। এখানে পর্যটকদের জন্য সুন্দরবন ঘোরার সব ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আপাতত তিন মাস সুন্দরবনে প্রবেশের পাস বন্ধ রয়েছে। কোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে মৌসুমের আগেই পাস ইস্যু শুরু হবে।

২০২১ সালের জুন মাস পর্যন্ত প্রায় তিন কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় সাতক্ষীরা রেঞ্জের সুন্দরবনে পর্যটকের সংখ্যা বহুগুণ বৃদ্ধি পাবে। রাজস্ব আদায়ও বেড়ে দ্বিগুণ হবে। তবে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়।

সুন্দরবনের পূর্ব বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, ২০২১-২২ অর্থবছরে সুন্দরবনে পর্যটক এসেছে এক লাখ ২০ হাজার জন। এখান থেকে সুন্দরবন বিভাগের রাজস্ব আয় হয়েছে এক কোটি ২৫ লাখ টাকা। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় সুন্দরবনে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। পর্যটকদের সংখ্যা যেমন বাড়বে তেমনি রাজস্বও বাড়বে বলে এই বন কর্মকর্তা জানান।

jagonews24

তিনি বলেন, পর্যটকদের চাপ সামলাতে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল, হারবাড়িয়া, কটকা, কচিখালী ও দুবলা এবং পশ্চিম বিভাগের হিরন পয়েন্ট ও কলাগাছিয়া এই সাতটি ইকোট্যুরিজমের সঙ্গে নতুন আরও চারটি ইকো ট্যুরিজম কেন্দ্র যোগ করা হচ্ছে। সুন্দরবন ইকো ট্যুরিজম প্রকল্পের আওতায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের আন্ধারমানিক, শরণখোলা রেঞ্জের আলী বান্দা এবং পশ্চিম বিভাগের সাতক্ষীরা রেঞ্জের শেখের টেক ও কালাবগিতে নতুন এই ট্যুরিজমগুলো নির্মাণ করা হবে বলেও জানান তিনি। এসব ইকো ট্যুরিজমে পর্যটকদের সুব্যবস্থার জন্য গোলঘর, ফুটট্রেলার, পাবলিক শৌচাগার, ওয়াচ টাওয়ার ও রাস্তা করা হবে।

সুন্দরবনের ট্যুরিজম ব্যবসায়ীদের নেতা নাজমুল আযম ডেভিড বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকায় অধিকাংশ সময় পর্যটকরা সুন্দরবনে আসতে চাইতো না। এখন যেহেতু পদ্মা সেতু চালু হয়েছে তাই সেই চিরচেনা চিত্র একেবারেই পাল্টে যাবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার দূরত্ব কমে সহজ হওয়ায় এখন পর্যটকদের আকর্ষণও বাড়বে বলে মনে করেন তিনি।

পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বণ্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাওলাদার আজাদ কবির বলেন, এই বনে বাঘ, হরিণ, বানরসহ ৩১৫ প্রজাতির বণ্যপ্রাণী এবং সুন্দরী, বাইন, গরানসহ ৩৩৪ প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। মূলত এসব দেখতেই প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভ্রমণ পিপাসুরা ছুটে আসেন। তবে যোগাযোগ ব্যবস্থা অনুন্নত হওয়ায় মাঝে মাঝে মৌসুমেও পর্যটকদের ভাটা পড়ত। এখন সেতু চালু হওয়ায় পর্যটক বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সুন্দরবনের এ খাত থেকে রাজস্ব আয় হবে চার থেকে পাঁচ গুণ বেশি।


আরও খবর



‘পদ্মা সেতু উদ্বোধন বানচাল করতে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টায় বিএনপি’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান বানচাল করতে শ্রমিক আন্দোলনের নামে ভাঙচুর করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

সোমবার (৬ জুন) মিরপুর ও উত্তরায় শ্রম অসন্তোষ নিরসনে শ্রম ভবনে ত্রিপক্ষীয় সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সভা আয়োজন করে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর।

সংবাদ সম্মেলনে শাজাহান খান বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ঊর্ধ্বগতিতে শ্রমজীবী মানুষের অসুবিধা রোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্মরত পোশাক শ্রমিকদের মাঝে কার্ড প্রদান করার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছেন। উক্ত কার্ড দিয়ে শ্রমিকরা স্বল্পমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করার সুযোগ পাবেন।

তিনি বলেন, শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান দেশে ফেরার পর শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিম্নতম মজুরি বোর্ড গঠনের বিষয়ে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে উদ্যোগ নেবেন।

এসময় মঙ্গলবার থেকে কারখানা খোলা রাখার এবং শ্রমিকদের কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মিরপুর ও উত্তরায় শ্রম অসন্তোষের বিষয় তিনি বলেন, শ্রমিকরা কখনো প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করতে পারে না। এটা তৃতীয় পক্ষের ইন্ধন। কোনো রাজনৈতিক দলের ইন্ধনে হচ্ছে। বিএনপি চেষ্টা করছে এই আন্দোলনের সুফল নিয়ে শ্রমিকদের উপর ভর করে ক্ষমতায় আসতে।

সভায় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বিএম কন্টেইনার ডিপো লিমিটেড কারখানায় অগ্নিদুর্ঘটনায় আহত ও নিহত পরিবারের প্রতি শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন তিনি।

তিনি বলেন, আগামী ২৫ তারিখে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ প্রকল্প পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অনুষ্ঠান রয়েছে। এ অনুষ্ঠানকে বানচাল করার জন্য গার্মেন্টস সেক্টরে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে বিএনপি।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (যুগ্ম সচিব) মিনা মাসুদ উজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নজরুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি মো. আলাউদ্দিন মিয়া, জাতীয় গার্মেন্ট শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন প্রমুখ।


আরও খবর