Logo
শিরোনাম

স্বামীর কাছে যে ৫ জিনিস আশা করেন স্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

বিয়ে সবার জীবনেরই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিয়ের পরের জীবন সুখী করতে নারী-পুরুষ দুজনেরই সমান অবদান রাখতে হয়। এক্ষেত্রে সঙ্গীর ভালো-মন্দ, তার ইচ্ছা-অনিচ্ছা কিংবা সুবিধা-অসুবিধা সব দিকেই অন্যজনের খেয়াল রাখতে হয়। তবেই দাম্পত্য সুখী হবে।

যদিও নারীরা সাধারণত একটু চাপা স্বভাবের হন। ফলে স্বামীর বিষয়ে বিভিন্ন কথা, আশা কিংবা ইচ্ছা মনেই পুষে রাখেন তারা। বিয়ের পর অনেক স্বামীই মনে করেন তারা স্ত্রীর মনের সব খবরই রাখেন। তবে এই ধারণা ভুল। কারণ নারীর মনের খোঁজ রাখা বেশ কঠিন।

jagonews24

সব নারীই তার স্বামীর কাছ থেকে কিছু জিনিস আশা করেন। যা অনেকে মুখ ফুটে বলতে চান না। তবে বুদ্ধিমান স্বামীরা ঠিকই স্ত্রীর মনের আশা বুঝে নেন। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক স্বামীর কাছে কোন আশা কোন আশা করেন স্ত্রী-

>> ঘরের কাজ দুজনেরই ভাগাভাগি করে নেওয়া উচিত। তবে অনেক স্বামীই ঘরের কাজে স্ত্রীকে সাহায্য করেন না। আর স্ত্রী হয়তো তাদেরকে মুখে বলতেও পারেন না ওই কথা। তাই অবসরে থাকলে স্ত্রীকে ঘরের কাজে সাহায্য করা উচিত সব স্বামীর।

jagonews24

>> অনেক পুরুষই নিজের মতো করে সিদ্ধান্ত নেন কিংবা স্ত্রীর মতামতকে প্রাধান্য দেন না। এতে কিন্তু স্ত্রীর মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হতে পারে। তবে বুদ্ধিমান পুরুষরা কখনো স্ত্রীর মতামতকে এড়িয়ে চলেন না। সব স্ত্রীই চান তার স্বামী মনোযোগ দিয়ে কথা শুনবেন।

>> স্ত্রীকে হঠাৎ করে সারপ্রাইজ দেওয়ার মাধ্যমে সম্পর্ক আরও মজবুত হয়। স্বামীর কাছ থেকে সারপ্রাইজ প্রত্যাশা করেন কমবেশি সব স্ত্রীই। তাই স্বামীর উচিত এই বিষয়টি মাথায় রাখা।

jagonews24

>> ঘুরতে যেতে কে না পছন্দ করেন। আপনিও হয়তো পছন্দ করেন, তবে সময়ের অভাবে স্ত্রীকে নিয়ে ঘুরতে যেতে পারেন না! এই বিষয়টি কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সময় পেলেই স্ত্রীকে নিয়ে ঘুরে বেড়ানো উচিত স্বামীর। এতে মনও ভালো থাকে আবার মানসিক চাপও কমে। স্বামীকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার আশায় থাকেন অনেক স্ত্রী।

jagonews24

>> প্রতিটি মানুষের মধ্যেই প্রাধান্য পাওয়ার বাসনা থাকে। আপনার সঙ্গীর মধ্যেও এই আশা আছে নিশ্চয়ই। তাই সব বিষয়েই সঙ্গীকে প্রাধান্য দিন। অনেকেই স্ত্রীকে ছোট করে দেখেন। এমন মনোভাব সম্পর্ক নষ্ট করার জন্য দায়ী হতে পারে।


আরও খবর



বাংলাদেশ পুলিশে চাকরির সুযোগ

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
Image

ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে ‘ক্যাশিয়ার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ০৭ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, বাংলাদেশ পুলিশ

পদের বিবরণ
jagonews24

চাকরির ধরন: স্থায়ী
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
কর্মস্থল: ঢাকা

বয়স: ০১ জুন ২০২২ তারিখে ১৮-৩০ বছর। বিশেষ ক্ষেত্রে ৩২ বছর

আবেদনপত্র সংগ্রহ: আগ্রহীরা www.police.gov.bd অথবা iphq.police.gov.bd থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন।

আবেদনের ঠিকানা: অ্যাডিশনাল ইন্সপেক্টর জেনারেল, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, বাড়ি নং-০৩, রোড নং- ২১ (১৫), সেক্টর-০৪, উত্তরা, ঢাকা।

আবেদনের শেষ সময়: ০৭ জুলাই ২০২২

সূত্র: প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইট


আরও খবর



নাটোরে ২ মাদক কারবারির যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ জুন ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

নাটোরে দুই মাদক কারবারিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দুপুরে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শরীফ উদ্দিন এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মহিষালবাড়ী গ্রামের বেলাল হোসেন ও পবা উপজেলার দাদপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নান।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ৩ মার্চ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাটোরের বড়হরিশপুর এলাকায় একটি মাইক্রোবাস থামিয়ে তল্লাশি তালায় পুলিশ। এসময় মাইক্রোবাসের ড্যাসবোডে পলিথিন দিয়ে মোড়ানো এক কেজি ৪৭৪ গ্রাম হেরোইনসহ তাদের আটক করা হয়। আটকদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। দুই বছর তিন মাস পর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আরিফুর রহমান বলেন, সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।


আরও খবর



বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই দিনাজপুরের প্রধান ৩ নদীর পানি

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

দিনাজপুরে ছোট-বড় ১৯টি নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলার আত্রাই, পুনর্ভবা ও ছোট যমুনার পানি বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। বৃষ্টি হলে কোন সময় এ তিন নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আগামী ৭২ ঘণ্টায় দিনাজপুর জেলায় মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

গত কয়েকদিন ধরে উজান থেকে বেয়ে আসা পাহাড়ি ঢলে জেলার নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। শুক্রবার দিনাজপুরে ভারী বৃষ্টিপাতে নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সে বৃষ্টির প্রভাবে শুক্রবার জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত আত্রাই নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছিল। যা শনিবার সকালে বিপৎসীমার নিচে নেমে গেছে।

দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের সার্ভেয়ার মাহাবুব আলম জানান, জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়া আত্রাই, পুনর্ভবা ও ছোট যমুনার পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। পুনর্ভবা নদীর পানি ৩৩ দশমিক ৫০০ মিটার বিপৎসীমা থাকলেও বর্তমানে রয়েছে ৩০ দশমিক ৫১০ মিটার, আত্রাই নদীর বিপৎসীমা ৩৯ দশমিক ৬৫০ থাকলেও বর্তমানে রয়েছে ৩৮ দশমিক ৩৫০ এবং ছোট যমুনা নদীর পানি বিপৎসীমা ২৯ দশমিক ৯৫০ হলেও বর্তমানে রয়েছে ২৮ দশমিক ১ মিটার রয়েছে। ইতোমধ্যে শুক্রবারের বৃষ্টিপাতের ফলে আত্রাই নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছিল।

তিনি আরও জানান, দিনাজপুরে বৃষ্টিপাত হলে নদ নদীগুলোর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করবে। ফলে জেলার কিছু নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে দিনাজপুর আঞ্চলিক আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন বলেন, শনিবার সকাল পর্যন্ত জেলায় ৩৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। তবে ভারতের শিলিগুড়ি, আসামসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের ওপর বৃষ্টির বলয় রয়েছে। এর ফলে আগামী ৭২ ঘণ্টায় লালমনিরহাট, কুড়িগ্রামসহ আশপাশের কয়েকটি জেলায় ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। পাশাপাশি একই সময়ে দিনাজপুর জেলায় মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে তিনি জানান।


আরও খবর



নদীতে ড্রোন দিয়ে অভিযান, গ্রেফতার ১৭

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

নিষেধাজ্ঞার সময় মাছ শিকার বন্ধ রাখা ও নৌ-পথের নিরাপত্তায় প্রথমবারের মতো ড্রোন ব্যবহার করে অভিযান চালিয়েছে নৌ-পুলিশ।

অভিযানে ড্রোনের মাধ্যমে চিহ্নিত করে নদীতে পেতে রাখা ১০ লাখ ৫০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল, তিনটি বাল্কহেড, চারটি মাছ ধরার ট্রলার জব্দ করা হয়। এসময় ১৭ জনকে গ্রেফতার করে নৌ-পুলিশ।

বুধবার (১৫ জুন) রাতে নৌ-পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সাথী শর্মা এ তথ্য জানান।

jagonews24

তিনি বলেন, দেশের নৌ পথকে নিরাপদ রাখতে এবং মৎস্য ও জলজ সম্পদ সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে নৌ পুলিশ। ক্রমাগত অভিযানের কারণে ইলিশসহ সব প্রকার দেশীয় ও সামুদ্রিক মাছের উৎপাদন বেড়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথমবারের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ড্রোন ব্যবহারের মাধ্যমে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

jagonews24

নৌ-পুলিশ প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি মো. শফিকুল ইসলামের নির্দেশে নৌ পুলিশ সদরদপ্তরের পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) ও চাঁদপুর অঞ্চলের পুলিশ সুপারের তত্ত্বাবধানে চাঁদপুরের ষাটনল, মোহনপুর, একলাশপুর, চর উমেদ, লক্ষীরচর, রাজরাজেশ্বর ও চাঁদপুর সদরে এই অভিযান চালানো হয়।

নৌ-পুলিশ প্রধান জানান, নদীপথে ড্রোন ব্যবহার অপরাধ দমনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করবে। কোনো অপরাধের পূর্ব প্রস্তুতি, অপরাধের স্থান নির্ধারণ এই ড্রোনের মাধ্যমে সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব।


আরও খবর



সুন্দরবনে চিংড়ির পোনা আহরণ, ১২ জেলে আটক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

সুন্দরবনে অবৈধভাবে প্রবেশ করে বাগদা ও গলদার চিংড়ির রেনু আহরণের সময় ১২ জেলেকে আটক করেছে বনরক্ষীরা। বৃহস্পতিবার (৯ জুন) তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে বুধবার (৮ জুন) রাতে পূর্ব বনবিভাগের শরণখোলা স্টেশনের আড়াইবেকীর মোড় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে চারটি নৌকা, আটটি রেনু পোনা ধরা নেট জাল, চারটি সোলার প্যানেল, চারটি ব্যাটারিসহ বিভিন্ন মালামাল জব্দ করা হয়।

আটকরা হলেন- জেলার শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রামের খালেক জমাদ্দার (৬৬), মিরাজ হাওলাদার (৬৫), ছগির হাওলাদার (৪৩), সামাদ হাওলাদার (৩২), মালেক জমাদ্দার (৫০), জলিল হাওলাদার (৪৫), ছিদ্দিকুর রহমান (৪০), রফিকুল হাওলাদার (৩৮),হালিম পহলান (৪০), শরণখোলা গ্রামের নজরুল হাওলাদার (৪২), ইসমাইল হাওলাদার ও উত্তর সাইথখালী গ্রামের হাবিব শেখ (৫০)।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) মো. আসাদুজ্জামান জানান, প্রজনন মৌসুম শুরু হওয়ায় ১ জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সুন্দরবনে মৎস্য আহরণে নিষেধাজ্ঞা চলছে। কিন্তু এসব অসাধু জেলেরা সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গোপনে বাগদা ও গলদা রেনু পোনা আহরণের জন্য সংরক্ষিত বনে প্রবেশ করেন।


আরও খবর