Logo
শিরোনাম

তেলের সংকট তৈরি করা ব্যবসায়ীরা চিহ্নিত: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

দেশে ভোজ্যতেল নিয়ে যারা সংকট তৈরি করেছেন তারা চিহ্নিত হয়েছে। এই ব্যবসায়ীদের তথ্য প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

সোমবার (৯ মে) বেলা ১১টায় সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভোজ্যতেলের বাজার ব্যবস্থাপনা নিয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান।

আগামীতে তেলের দাম বাড়বে কিনা এমন প্রশ্নে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক বাজার মনিটর করবো। আশপাশের দেশগুলো দেখে বিবেচনা করবো সবকিছু। যতদূর দাম কমানো যায় তার চেষ্টা করবো।

তিনি বলেন, এলসি কত দামে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ক্লিয়ার করলো সেটা ধরে তেলের দাম নির্ধারণ করা হয়। আজকে ২৫০ টাকা হয়েছে সেটা ধরে কিন্তু দাম নির্ধারণ হচ্ছে না। আজকের দামে যদি ফিক্স করতাম তাহলে গতকাল টনপ্রতি তেলের দাম ছিল ১৯৫০ ডলার।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, ভোক্তা অধিকার আমাদের সাহায্য করছে। এত হাজার হাজার ব্যবসায়ীর কাছে পৌঁছানো মুশকিল। যেখানে যেখানে সম্ভব আমরা চেষ্টা করছি।

তেলের সংকট তৈরি করা ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, খুচরা পর্যায়ে কিন্তু কাজটি করেছে। আমাদের ভোক্তা অধিকার যেখানেই এ ধরনের ঘটনা পাচ্ছে তাদের জরিমানা-মামলা করছে। আমরা অ্যাসোসিয়েশনকে বলেছি তাদেরও ব্যবস্থা নিতে হবে। মিল মালিকদেরও করতে হবে মনিটরিং। কোন কোন জায়গায় এ ধরনের ডিলার আছে তাদের ডিলারশিপ বাতিল করতে পারেন। আইনগতভাবে যেখানে যেটা দরকার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

ভোজ্যতেল নিয়ে ব্যবসায়ীরা তাদের কথা রাখেনি উল্লেখ করে টিপু মুনশি বলেন, বলেছিলাম রমজানকে সামনে রেখে দাম বাড়াবেন না। কিন্তু তারা ঈদের সাতদিন সেই কথা রাখেনি। আমাদের সব অর্গানাইজেশনকে বলেছি, যে দাম নির্ধারিত আছে সেটি যাতে ঠিক রাখা হয়।

রমজানে ব্যবসায়ীদের কাছে তেলের দাম না বাড়ানোর অনুরোধ করাটা ভুল হয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, উচিত ছিল রমজানের ১৫ তারিখ দামটা বাড়ানো। কিন্তু একজন মুসলমান হিসেবে অনুরোধ করেছিলাম দয়া করে এটা বাড়াবেন না। আন্তর্জাতিক বাজারে কত দাম বেড়েছে সেটিও মিডিয়ায় আসা উচিত। লন্ডনে এক লিটার ফিক্সআপ করে দেওয়া হয়েছে, জার্মানিতে তেলই পাওয়া যাচ্ছে না সে কথাটা জানা দরকার। যদি দাম আরও বাড়ে, যুদ্ধ অনেকদিন চলে। আবার দাম কমলে সেটাও বলা উচিত।

এসময় বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ, টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আরিফুল হাসান, সিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

ওয়ালটনে চাকরির সুযোগ

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




গোপালগঞ্জে ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যায় একজনের ফাঁসি, দুজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যায় একজনের ফাঁসি ও দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে এক লাখ টাকা ও যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম সমিরন দাস।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দুপুর ১২টার দিকে জেলার অতিরিক্ত দায়রা জজ মো. আব্বাস উদ্দিন এ রায় দেন। মামলায় ২৫ আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের এপিপি মো. শহিদুজ্জামান খান মামলার বরাত দিয়ে বলেন, ২০০৫ সালের ১০ এপ্রিল গভীর রাতে ব্যাংকে প্রবেশ করে আয়ুব হোসেন মোল্লাকে (৫৫) কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় ব্যাংকের ব্যবস্থাপক শচীন্দ্র নাথ বালা বাদী হয়ে ২৮ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

দীর্ঘ শুনানির পর আজ (বৃহস্পতিবার) আদালত রায় ঘোষণা করেন। সমিরন দাস ছাড়া অপর আসামিরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

ওয়ালটনে চাকরির সুযোগ

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




‘প্রতিবন্ধকতা থাকলেও জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব‌’

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, প্রস্তাবিত বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৭.৫ ধরা হয়েছে। অনেক বড় বাজেট। এগুলো অর্জনে অনেক প্রতিবন্ধকতা আছে। কোভিডের প্রতিবন্ধকতা আছে, ইউক্রেনের প্রতিবন্ধকতা আছে। এরপরও আমরা আশাবাদী। আমরা প্রতিবন্ধকতা জয় করে সফলতা অর্জন করতে জানি।

শুক্রবার (১০ জুন) দুপুরে সিলেট বিভাগীয় আন্তঃপ্রাতিষ্ঠানিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশের যাতে উন্নয়ন হয়, মঙ্গল হয় সে জন্য সরকার কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী খুবই সাহসী নারী। করোনাকালীন সময় অনেক গণমাধ্যম বলেছিল দেশ শেষ। দেশের আর উন্নয়ন হবে না। কিন্তু আল্লাহ মেহেরবান করোনার সময় আমাদের প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৬.৯৪। যা অত্যন্ত সাফল্যজনক।

তিনি বলেন, দেশে ৬৫ হাজার জনপ্রতিনিধি রয়েছেন। এরমধ্যে মাত্র ৫২ জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে। ৬৫ হাজারের মধ্যে ৫২ জন এটা ‘নাথিং’। দেশে সুশাসন আছে বলেই জনপ্রতিনিধিরা দুর্নীতিতে জড়ান না।


আরও খবর

ওয়ালটনে চাকরির সুযোগ

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




ইউএস-বাংলায় এক্সিকিউটিভ পদে চাকরি

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স লিমিটেডে ‘সিনিয়র এক্সিকিউটিভ/এক্সিকিউটিভ’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১৮ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স লিমিটেড
বিভাগের নাম: অ্যাডমিন

পদের নাম: সিনিয়র এক্সিকিউটিভ/এক্সিকিউটিভ
পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক
অভিজ্ঞতা: ০৪ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
বয়স: নির্ধারিত নয়
কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা www.jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১৮ জুন ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর

ওয়ালটনে চাকরির সুযোগ

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২




পপগুরু আজম খান চলে যাওয়ার ১১ বছর

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
Image

পপগুরু আজম খান। আজ এ প্রিয় মানুষটির হারিয়ে যাওয়ার দিন। দেখতে দেখতেই ১১ বছর কেটে গেল তার প্রস্থানের। ২০১১ সালের ৫ জুন পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছিলেন আজম খান। তারপর থেকে ৫ জুন মানে দেশের সংগীতপিপাসু মানুষের কাছে শোকের দিন।

এই দিনটিতে নানাভাবে তাকে স্বরণ করে থাকেন গানপাগল মানুষেরা।

আজম খান দেশীয় ফোক ফিউশনের সাথে পাশ্চাত্যের যন্ত্রপাতির ব্যবহার করে বাংলা গানের এক নতুন ধারা তৈরি করেছিলেন। অনেকে তাকে বাংলাদেশের বব মার্লে বা বব ডেলান বলেও সম্মানিত করে থাকেন।

১৯৫০ সালে ২৮ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন আজম খান। তার পুরো নাম মাহবুবুল হক খান। বাবার নাম আফতাব উদ্দিন আহমেদ ও মা জোবেদা খাতুন। তার শৈশবের পাঁচ বছর কাটে আজিমপুর কলোনিতে। তারা ৪ ভাই ও এক বোন ছিলেন।

১৯৫৫ সালে তিনি প্রথমে আজিমপুরের ঢাকেশ্বরী স্কুলে ভর্তি হন। ১৯৫৬ সালে তার বাবা কমলাপুরে বাড়ি বানালে সেখানে চলে যান পরিবারসহ। কমলাপুরের প্রভেনশিয়াল স্কুলে প্রাইমারিতে এসে ভর্তি হন। তারপর ১৯৬৫ সালে সিদ্ধেশ্বরী হাইস্কুলে বাণিজ্য বিভাগে ভর্তি হন। এই স্কুল থেকে ১৯৬৮ সালে এসএসসি পাস করেন।

১৯৭০ সালে টিঅ্যান্ডটি কলেজ থেকে বাণিজ্য বিভাগে দ্বিতীয় বিভাগে উত্তীর্ণ হন।

১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে ২ নম্বর সেক্টরে পাকিস্তানি সৈন্যদের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

পপগুরু আজম খান ১৯৭০ সালে ‘উচ্চারণ’ নামে একটি ব্যান্ডদল প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ১৯৭২ সালে প্রথম স্টেজ প্রোগ্রাম করেন নটরডম কলেজে এবং একই সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রথম টেলিভিশন অনুষ্ঠান করেন। তবে ১৯৭৩ সালের ১ এপ্রিল ওয়াপদা মিলনায়তনের অনুষ্ঠানই তাকে খ্যাতিমান করে তোলেন।

আজম খান একাধারে ছিলেন সংগীতশিল্পী, গিটারিস্ট ও গীতিকার। ১৯৮২ সালে প্রকাশ হয় তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘এক জনম’। তিনি একে একে ১৬৮টি একক গান ৩০টি মিক্সস গানসহ ১৪টি অ্যালবামের মাধ্যমে শ্রোতাদের অসংখ্যা জনপ্রিয় গান উপহার দেন। আজম খানের জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে- ‘ওরে সালেকা ওরে মালেকা’, ‘আলাল দুলাল’, ‘অনামিকা চুপ’, ‘সারা রাত’ ইত্যাদি।

শিল্পী চরিত্রের পাশাপাশি আজম খান স্বনামধন্য ছিলেন একজন খেলোয়াড় হিসেবেও। নিজে সাঁতার কাটতেন এবং নতুন সাঁতারুদের মোশারফ হোসেন জাতীয় সুইমিং পুলে সপ্তাহে ৬ দিন সাঁতার শেখাতেন। ক্রিকেট ও ফুটবল খেলোয়াড় হিসেবেও ছিলেন পারদর্শী। এইসব কারণে দেশের ক্রীড়াঙ্গনেও ছিল তার দারুণ সমাদর। তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন।

পারিবারিক জীবনে তিনি দুই কন্যা ইমা এবং রিমা ও পুত্র হৃদয়ের জনক।


আরও খবর



স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি রাস্তা দেখিয়ে টিআর প্রকল্পের টাকা উত্তোলন

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

পিরোজপুরের নাজিরপুরে এলাকাবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি দুটি রাস্তা দেখিয়ে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) প্রকল্পের দেড় লাখ টাকা উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। একই সঙ্গে টানানো হয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের আওতাধীন টিআর প্রকল্পের সাইনবোর্ডও। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ শ্রীরামকাঠী গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেন শেখের বাড়ির পাশের একটি সুপারি গাছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের আওতাধীন টিআর প্রকল্পের কাজের সাইনবোর্ড টানানো আছে। এতে ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের সাধারণ টিআর দ্বিতীয় পর্যায়ের বরাদ্দ বাবদ জীবগ্রাম সুখরঞ্জন এদবরের বাড়ি থেকে উত্তমমিস্ত্রীর বাড়ি পর্যন্ত এবং দক্ষিণ শ্রীরামকাঠী গ্রামের তোফাজ্জেল শেখের বাড়ি থেকে সুদেব ঢালীর বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা মেরামত বাবদ ১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৯৮ টাকা বরাদ্দ দেখানো হয়।

ওই ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ শ্রীরামকাঠী গ্রামের সুশীল ঢালী বলেন, ‘আমাদের বাড়ির সামনের মাটির সরু রাস্তাটি ভাঙা ছিল। তা দিয়ে চলাচলে দীর্ঘদিন ধরে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল। তাই গত বছরের নভেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত ইউপির নির্বাচনের (তৃতীয় ধাপ) আগে ওই ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী লিটন হাওলাদার এলাকায় ভোট চাইতে আসেন। তখন রাস্তাটি সংস্কারের দাবি জানাই। এ বাবদ তিনি ১২ হাজার টাকা দেন। ওই টাকা দিয়ে বালু কিনে এবং আমরা স্থানীয় প্রায় ২৫ জন নারী-পুরুষ মিলে ৪০দিন ধরে রাস্তাটি মেরামতের কাজ করি। কিন্তু গত প্রায় দেড় মাস আগে স্থানীয় সংরক্ষিত (৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড) নারী ইউপি সদস্য শিলা শিকদারকে প্রকল্পের চেয়ারম্যান দেখিয়ে টাকা উত্তোলন করা হয়।’

ওই ওয়ার্ডের জীবগ্রামের নারায়ন হালদার বলেন, ‘নিরাপদ হালদারের বাড়ির পেছনের রাস্তাটি ভাঙাচুরা ও বর্ষাকালে কাদা হয়ে যায়। তাই নির্বাচনের আগে আমরা গ্রামবাসী মিলে ৭-৮ দিন স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করে রাস্তার পাশ থেকে মাটি কেটে রাস্তার উঁচু করি। পরে স্থানীয় মেম্বার প্রার্থী হাসান মোল্লা তাতে ড্রেজার দিয়ে বালু ভরাট করে দেন।’

পরাজিত মেম্বার প্রার্থী মো. হাসান মোল্লা বলেন, ‘নির্বাচনের আগে ভোট চাইতে গেলে গ্রামবাসী আমাকে ভোট দিবেন শর্তে তাদের ওই রাস্তাটিতে বিনামূল্যে প্রায় ৭৪ হাজার টাকার বালু ভরাট করে দেই। এর আগে গ্রামবাসী মিলে রাস্তাটির দুপাশ মাটি দিয়ে উঁচু করেছেন।’

road1

এ জানতে চাইলে টিআর প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির চেয়ারম্যান (সিপিসি) ও নারী ইউপি সদস্য শিলা শিকদার বলেন, ‘আমি ওয়ার্ডের নতুন মেম্বার। স্থানীয় সাধারণ সদস্য লিটন হালদার (লিটু) আমাকে ওই কাজের প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির চেয়ারম্যান করেছেন মাত্র। এর বাইরে কিছুই জানি না।’

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য লিটন হালদার জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাস্তাটি স্থানীদের সহায়তায় করা হয়েছে। তবে আমাদের ইউনিয়নের তেমন কোনো আয় না থাকায় রাস্তা দুটি প্রকল্পের আওতায় দেখিয়ে টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। এ টাকা পরিষদের মেম্বাররা নিজ নিজ এলাকায় উন্নয়নের জন্য ভাগ করে নিয়েছি।’

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. আলতাফ হোসেন ব্যাপারী জাগো নিউজকে বলেন, ওই ওয়ার্ডের নারী সদস্য ও সাধারণ সদস্য মিলে রাস্তাটি টিআর প্রকল্পের আওতায় দিতে অনুরোধ করেন। সে অনুযায়ী তাদের প্রকল্প দেওয়া হয়েছে। গত দু-চারদিন ধরে শুনছি ওই রাস্তা দুটি এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি করেছেন। বিষয়টি প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে।’

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. এস্রাফিল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি। খোঁজ নিয়ে সত্যতা মিললে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’


আরও খবর

ওয়ালটনে চাকরির সুযোগ

সোমবার ০৪ জুলাই ২০২২